“পার্থক্য বিবাদের কারণ হওয়া উচিত নয়”, কাশ্মীর পদক্ষেপ নিয়ে চিনকে বার্তা ভারতের

লাদাখকে পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল করার ভারতের পদক্ষেপের বিরোধিতা করেছে চিন

“পার্থক্য বিবাদের কারণ হওয়া উচিত নয়”, কাশ্মীর পদক্ষেপ নিয়ে চিনকে বার্তা ভারতের

সোমবার চিনের বিদেশমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করেন বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর

বেজিং:

জম্মু ও কাশ্মীরকে (Jammu and Kashmir) ভেঙে দুটি পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত। যে দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে ভাগ করা হচ্ছে, তারমধ্যে একটি লাদাখ। ভারতের এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করেছে চিন (Chaina)। সোমবার তা নিয়ে চিনকে গুরুত্বপূর্ণ বার্তা দিলেন ভারতের বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর (S Jayshankar)। চিনের আপত্তি উড়িয়ে ভারতের তরফে বলা হয়েছে, এটি পুরোপুরিই “অভ্যন্তরীণ বিষয়”। সোমবার চিনের বিদেশমন্ত্রী ওয়াং ই এর সঙ্গে বৈঠক করেন বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর। সেখানেই তিনি (S Jayshankar) বলেন, “দুটি দেশের নিশ্চিত করা উচিত, যদি আমাদের মধ্যে কোনও পার্থক্য থাকে, তাহলে তা বিবাদের কারণ হওয়া উচিত নয়”।

দিল্লি-লাহোর বাস পরিষেবা বাতিল, জানাল পরিবহন কর্তৃপক্ষ

আন্তর্জাতিক রাজনীতিতে ভারত-চিন (India-Chaina Reletaionship) সম্পর্ক “অন্যতম জায়গা” বলে মন্তব্য করেছে বলে বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্করকে (S Jayshankar) উদ্ধৃত করে জানিয়েছে সংবাদসংস্থা এএনআই। তিনি বলেন, “দু বছর আগে, আস্তানায়, বাস্তবতা বুঝতে পেরেছিলেন এবং সর্বসম্মতিক্রমে পৌঁছেছিলেন আমাদের নেতারা এই বিষয়ে, বিশ্বের এই অনিশ্চয়তার সময়ে, ভারত-চিন সম্পর্ক একটা স্থিতিশীল বিষয় হতে পারে”।

গত সপ্তাহে জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহার করে নেয় ভারত এবং রাজ্যটিকে ভেঙে দিয়ে, জম্মু ও কাশ্মীর এবং লাদাখ, দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে ভাগ করার ঘোষণা করে। ভারতের এই পদক্ষেপকে “গুরুত্বপূর্ণ উদ্বেগ”-এর বিষয় বলে মন্তব্য করে চিন (Chaina)।

ভারতের দিক থেকে সমঝোতা এক্সপ্রেস বাতিল করল রেল

ভারত ও পাকিস্তানকে সংযত থাকার বার্তা দেয় চিন, পাশাপাশি তারা বলে, দুটি দেশেরই উচিত এমন পদক্ষেপ এড়িয়ে চলা, যাতে “একতরফাভাবে” পরিস্থিতি পাল্টে যায় এবং “উত্তেজনা বাড়ায়”।

লাদাখকে পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে ভাগ করার ভারতের পদক্ষেপেরও বিরোধিতা করে চিন (Chaina)।

ভারতের তরফে জানানো হয়, কাশ্মীর নিয়ে পদক্ষেপ, “ভারতীয় অঞ্চলের এটি অভ্যন্তরীণ বিষয়”।

বিদেশমন্ত্রী (S Jayshankar) বলেন, “অন্য দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে মন্তব্য করে না ভারত এবং অন্য দেশের থেকেও এমনটাই আশা করে”।

‘দ্রাস চেনেন?', অজিত দোভালকে প্রশ্ন অনন্তনাগের পশু বিক্রেতার

চিনে (Chaina) ভারতের রাষট্রদূত ছিলেন এস জয়শঙ্কর (S Jayshankar)। সেই সময়ের প্রসঙ্গ তুলে ধরে চিনের বিদেশমন্ত্রী ওয়াং ই বলেন,  “চিন-ভারত সম্পর্ক (India-Chaina Reletaionship) ইতিবাচক এবং সক্রিয় করে তুলতে তাঁর অবদান রয়েছে”।

নরেন্দ্র মোদি সরকারের দ্বিতীয়বারে সুষমা স্বরাজের জায়গায় বিদেশমন্ত্রী হয়েছেন তিনিই, এস জয়শঙ্কর (S Jayshankar) দ্বিতীয় কূটনীতিবিদ হিসেবে এই পদে এলেন।তার আগে, আমেরিকা এবং চিনে (Chaina) ভারতের রাষ্ট্রদূত ছিলেন জয়শঙ্কর।