প্রধানমন্ত্রীকে জয় বাংলা লেখা ১০ হাজার পোস্ট কার্ড পাঠাল তৃণমূল

জয় শ্রী রামের পাল্টা জয় হিন্দ জয় বাংলা- বন্দেমাতরম। তৃণমূল এবং বিজেপির মধ্যে রাজনৈতিক তরজা এখন এই কয়েকটি শব্দের মধ্যে ঘোরাফেরা করছে।

প্রধানমন্ত্রীকে জয় বাংলা লেখা ১০ হাজার পোস্ট কার্ড পাঠাল তৃণমূল

দক্ষিণ দমদম পুরসভার চেয়ারম্যান নিজে গোটা বিষয়টি দেখভাল করেছেন

হাইলাইটস

  • প্রধানমন্ত্রীকে জয় বাংলা লেখা ১০ হাজার পোস্ট কার্ড পাঠাল তৃণমূল
  • নিউদিল্লিতে প্রধানমন্ত্রীর ঠিকানায় এই চিঠি গুলি পাঠানো হয়েছে
  • দক্ষিণ দমদম পুরসভার চেয়ারম্যান নিজে গোটা বিষয়টি দেখভাল করেছেন
কলকাতা:

জয় শ্রী রামের (Jai Shree Ram) পাল্টা জয় হিন্দ (Jai Hind) জয় বাংলা- বন্দেমাতরম (Vande Mataram) । তৃণমূল এবং বিজেপির মধ্যে রাজনৈতিক তরজা এখন এই কয়েকটি শব্দের মধ্যে ঘোরাফেরা করছে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জয় শ্রী রাম শুনে মেজাজ হারাচ্ছেন বলে তাঁর বাড়িতে জয় শ্রীরাম লেখা পোস্ট কার্ড পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছিল বিজেপি। এবার পাল্টা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ঠিকানায় দশ হাজার জয় হিন্দ এবং জয় বাংলা- বন্দেমাতরম লেখা পোস্টার পাঠালো তৃণমূল। সংবাদ সংস্থা এএনআই বলছে দমদম ডাকঘর থেকে নিউদিল্লিতে প্রধানমন্ত্রীর ঠিকানায় এই চিঠি গুলি পাঠানো হয়েছে। দক্ষিণ দমদম পুরসভার চেয়ারম্যান নিজে গোটা বিষয়টি দেখভাল করেছেন বলে সংবাদ সংস্থা  এএনআই জানিয়েছে। 

সৌজন্যে দলবদল! আনুষ্ঠানিকভাবে ভাটপাড়া পুরসভা দখল করল বিজেপি, নজরে আরও তিন

elva9f

ডাকঘরের  সামনে  ভিড়  করেছেন  তৃণমূল কর্মীরা।          

চেয়ারম্যান বলেন, আমরা আসলে বোঝাতে চাইছি মানুষ যে সমস্ত আদর্শকে পাথেয় করে চলে সেগুলো তাদের মনেই থাকে রাস্তায় কারও গাড়ির সামনে গিয়ে চিৎকার করার কোনও প্রয়োজন পড়ে না। চেয়ারম্যানের এই মন্তব্য করার একটি বাস্তব দিক রয়েছে। গত কয়েকদিনে বারবার দেখা গিয়েছে কখনও মুখ্যমন্ত্রীর গাড়ি কখনওবা রাজ্যের মন্ত্রীরা বৈঠক করছেন এমন কোনও বাড়ির সামনে গিয়ে জয় শ্রীরাম স্লোগান দেওয়া হচ্ছে। গত এক মাসের মধ্যে দু-দুবার মুখ্যমন্ত্রীর গাড়ির একেবারে সামনে এসে জয় শ্রী রাম স্লোগান দিয়েছেন বেশ কয়েকজন। তা নিয়ে প্রতিক্রিয়াও দিয়েছেন মমতা। 

এবছর বর্ষার আগমনে দেরি হবে এক সপ্তাহ, তবে স্বাভাবিক বৃষ্টিরই সম্ভাবনা

eh214fjo

 এই সেই  চিঠি।  

একইভাবে কাঁচরাপাড়ায় দিন কয়েক আগে এক তৃণমূল কর্মীর বাড়িতে বৈঠক করছিলেন রাজ্যের কয়েকজন মন্ত্রী। তাঁদের উপস্থিতির কথা জানতে পেরে বাড়ি ঘিরে স্লোগান দিতে থাকে বিজেপি। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে  যাচ্ছে  দেখে পুলিশ লাঠিচার্জ করে। এর  প্রতিবাদে প্রথমে কাঁচরাপাড়া স্টেশন পরে জগদ্দল থানার সামনে বিক্ষোভ কর্মসূচি করে বিজেপি।\

এরইমধ্যে রাজ্য বিজেপির কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয় জানান এখন থেকে গেরুয়া শিবিরের নেতারা বাংলায় জয় শ্রীরামের  পাশাপাশি জয় মহাকাল ধ্বনিও দেবেন। এ নিয়ে পাল্টা প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেছেন মনে হচ্ছে রামের টিআরপি কমে গিয়েছে তাই অন্য স্লোগান ব্যবহার করতে হচ্ছে বিজেপিকে।