This Article is From Aug 15, 2020

"এলওসি থেকে এলএসি, দেওয়া হয়েছে কড়া জবাব..." , হুঙ্কার নরেন্দ্র মোদির

PM Modi On Independence Day: "সন্ত্রাসবাদ হোক বা আগ্রাসনবাদ, ভারত দুইয়ের সঙ্গেই যুঝছে", নাম না করে পাকিস্তান ও চিনকে হুঁশিয়ারি দিলেন প্রধানমন্ত্রী

Independence Day 2020: এই নিয়ে সপ্তমবার লালকেল্লা থেকে স্বাধীনতা দিবসে ভাষণ দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি

হাইলাইটস

  • স্বাধীনতা দিবসের ভাষণে নাম না করে পাকিস্তান ও চিনকে হুঁশিয়ারি দিলেন মোদি
  • পাশাপাশি লাদাখ সংঘর্ষে শহিদ জওয়ানদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান প্রধানমন্ত্রী
  • ভারতীয় সেনা দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষায় আপোস করবে না, বলেন নরেন্দ্র মোদি
নয়া দিল্লি:

ভারতের ৭৪ তম স্বাধীনতা দিবসে (Independence Day 2020) জাতির উদ্দেশে ভাষণের সময় নাম না করে প্রতিবেশী দেশ পাকিস্তান ও চিনকে সমঝে দেওয়ার বার্তা (PM Modi On Independence Day) দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তাঁর মতে "এলওসি (LoC) থেকে এলএসি (LAC) পর্যন্ত" যখনই কেউ এদেশের সার্বভৌমত্বকে চ্যালেঞ্জ করেছে ভারতীয় সেনারা তখনই তার উপযুক্ত জবাব দিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী লালকেল্লার মঞ্চ থেকে বলেন,  "এলওসি (নিয়ন্ত্রণ রেখা) থেকে এলএসি (প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা) পর্যন্ত যখনই ভারতের সার্বভৌমত্বকে চ্যালেঞ্জ করা হয়েছে, আমাদের সেনারা তাঁদের মতো করে তার কড়া জবাব দিয়েছে।" লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় গত জুন মাসে ভারতীয় সেনাদের সঙ্গে লালফৌজের সংঘর্ষের কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী মোদি বলেন: "ভারতের অখণ্ডতা রক্ষা আমাদের কাছে সবার আগে। আমাদের জওয়ানরা ঠিক কী করতে পারে, দেশ কী করতে পারে, লাদাখের উদাহরণের মাধ্যমে গোটা বিশ্ব তা দেখেছে। যে বীর যোদ্ধারা আত্মবলিদান দিয়েছেন, আজ লালকেল্লা থেকে আমি তাঁদের সেলাম জানাই।"

১৫ জুন চিনা সেনাদের সঙ্গে ভারতীয় সেনাবাহিনীর সংঘর্ষ বাঁধে এবং সেই সময় দেশের জন্য ২০ জন ভারতীয় সেনা আত্মবলিদান দেন। পরে যদিও ভারত-চিন আলোচনার মাধ্যমে এই অচলাবস্থা কাটানোর চেষ্টা করা হয়। তবে শনিবার দেখা গেল, চিনের প্রতি বেশ কড়া মনোভাব পোষণ করে ওই দেশকে সতর্ক করলেন প্রধানমন্ত্রী মোদি। "সন্ত্রাসবাদ হোক বা আগ্রাসনবাদ, ভারত দুইয়ের সঙ্গেই যুঝছে", নাম না করে পাকিস্তান ও চিনকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন প্রধানমন্ত্রী।

"আজ প্রায় সারা বিশ্বই ভারতের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে এবং তাঁর প্রমাণ হলো রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের সদস্য (অ-স্থায়ী) করার জন্য রাষ্ট্রসংঘের ১৯২ টি দেশের মধ্যে ১৮৪ টি ভোট গেছে ভারতের পক্ষে", একথাও আরও একবার মনে করিয়ে দেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী মোদি, একটি জাফরান এবং সাদা সাফা এবং একটি অনুরূপ স্কার্ফ পরেছিলেন যা তিনি একটি মুখোশ হিসাবে ব্যবহার করেছিলেন, টানা সপ্তম বছরে লাল দুর্গ থেকে জাতিকে সম্বোধন করেছিলেন।

১ ঘণ্টা ২৬ মিনিটের ভাষণে প্রধানমন্ত্রী মোদি "আত্মনির্ভর ভারত", "লোকাল ফর ভোকাল" এবং "মেক ইন ইন্ডিয়া টু মেক ফর ওয়ার্ল্ড" এর মতো বিষয়গুলো নিয়েও বক্তব্য রাখেন। তাঁর ভাষণে উঠে আসে দেশের করোনা পরিস্থিতি এবং কোভিড ভ্যাকসিন তৈরির প্রসঙ্গও।

তবে ভারতের দুই প্রতিবেশী দেশের প্রতি ইঙ্গিত করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি জোর গলায় বলেন, "প্রতিবেশী শুধু সেই নয় যে আমাদের সীমান্ত এলাকা ভাগ করে নেয়, তাঁরাই প্রকৃত প্রতিবেশী যাঁরা এর সঙ্গে আমাদের হৃদয়ও ভাগ করে নেয়। যেখানে পারস্পরিক সম্পর্কের প্রতি শ্রদ্ধা তৈরি হয়, সেখানেই সম্পর্কে আরও উষ্ণতা আসে।যদি বৃহত্তরভাবে দেখা যায় তাহলে বোঝা যাবে যে ভারতের সঙ্গে অনেক দেশেরই ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রয়েছে। আমরা একসঙ্গে কাজ করছি এবং একে অপরের প্রতি শ্রদ্ধার কারণে পারস্পরিক সম্পর্কও তৈরি হয়েছে।"