"ভারতের কাছে জোড়া প্রতিবন্ধকতা করোনা আর সীমান্তে আগ্রাসন", চিনে বললেন এনভয়

বেজিংয়ে নিযুক্ত এই ভারতীয় আমলা সে দেশে বসবাসকারী প্রবাসী ভারতীয়দের একটি অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। স্বাধীনতা দিবস উদযাপনে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন তিনি

করোনা আর সীমান্ত এই দুই সমস্যায় জর্জরিত ভারত।

বেজিং:

চলতি বছরে জোড়া প্রতিবন্ধকতা ভারতের সামনে। কোভিড সংক্রমণ আর সীমান্তে আগ্রাসন। এভাবেই নাম না করে চিনকে, তাদের মাটিতে দাঁড়িয়েই দুষলেন রাষ্ট্রদূত বিক্রম মিশ্রি। বেজিংয়ে নিযুক্ত এই ভারতীয় আমলা সে দেশে বসবাসকারী প্রবাসী ভারতীয়দের একটি অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। স্বাধীনতা দিবস উদযাপনে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন তিনি। এর পরেই রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের ভাষণের সারাংশ পাঠ করেন। তারপরেই তিনি বলেন, "যেমনটা রাষ্ট্রপতি বলেছেন, চলতি বছর ভারত জোড়া প্রতিবন্ধকতার সম্মুখীন। প্রথম কোভিড-১৯ আর দ্বিতীয় সীমান্তে আগ্রাসন। দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ছড়িয়ে থাকা ভারতীয়দের উদ্দেশে আমি বলতে চাই এই যুদ্ধ স্বাধীনতার যুদ্ধের চেয়ে কিছু কম নয়।"

এদিকে, ভারতের ৭৪ তম স্বাধীনতা দিবসে জাতির উদ্দেশে ভাষণের সময় নাম না করে প্রতিবেশী দেশ পাকিস্তান ও চিনকে সমঝে দেওয়ার বার্তা দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তাঁর মতে "এলওসি  থেকে এলএসি পর্যন্ত" যখনই কেউ এদেশের সার্বভৌমত্বকে চ্যালেঞ্জ করেছে ভারতীয় সেনারা তখনই তার উপযুক্ত জবাব দিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী লালকেল্লার মঞ্চ থেকে বলেন,  "এলওসি (নিয়ন্ত্রণ রেখা) থেকে এলএসি (প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা) পর্যন্ত যখনই ভারতের সার্বভৌমত্বকে চ্যালেঞ্জ করা হয়েছে, আমাদের সেনারা তাঁদের মতো করে তার কড়া জবাব দিয়েছে।"

Newsbeep

লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় গত জুন মাসে ভারতীয় সেনাদের সঙ্গে লালফৌজের সংঘর্ষের কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী মোদি বলেন: "ভারতের অখণ্ডতা রক্ষা আমাদের কাছে সবার আগে। আমাদের জওয়ানরা ঠিক কী করতে পারে, দেশ কী করতে পারে, লাদাখের উদাহরণের মাধ্যমে গোটা বিশ্ব তা দেখেছে। যে বীর যোদ্ধারা আত্মবলিদান দিয়েছেন, আজ লালকেল্লা থেকে আমি তাঁদের সেলাম জানাই।



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)