পেটের যন্ত্রণা, এআইআইএমএসে ভর্তি করা হল পি চিদাম্বরমকে

গত সপ্তাহে, আদালতে শুনানির সময়, আবেদন করেন, প্রচণ্ড পেটে ব্যাথার চিকিৎসার জন্য তাঁতে হায়দরাবাদে চিকিৎসার জন্য যেতে দেওয়া হোক

পেটের যন্ত্রণা, এআইআইএমএসে ভর্তি করা হল পি চিদাম্বরমকে

পেটে যন্ত্রণা হওয়ায় এআইআইএমএসে ভর্তি করা হল পি চিদাম্বরমকে (ফাইল)

নয়াদিল্লি:

পেটের যন্ত্রণা হওয়ায় দিল্লির এআইআইএমএসে ভর্তি করা হল প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী তথা কংগ্রেস নেতা পি চিদাম্বরমকে (P Chidambaram) । আইএনএক্স মিডিয়া কেলেঙ্কারিতে (INX Media case) এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের (Enforcement Directorate) হেফাজতে রয়েছেন তিনি। গত সপ্তাহে, আদালতে শুনানির সময়, আবেদন করেন, প্রচণ্ড পেটে ব্যাথার চিকিৎসার জন্য তাঁতে হায়দরাবাদে চিকিৎসার  জন্য যেতে দেওয়া হোক। চিকিৎসার পর, তাঁকে আবারও হেফাজতে নেওয়ার আর্জি জানান তিনি। ইডির তরফে বলা হয়, কোনওরকম চিকিৎসার প্রয়োজনে তাঁকে দিল্লির এআইআইএমএসে নিয়ে যাওয়া হবে। সোমবার সকালে, তাঁকে আরএমএল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে পেটের যন্ত্রণা হওয়ায়, তাঁকে এআইআইএমএসে নিয়ে যাওয়া হয়।

আইএনএক্স মিডিয়া দুর্নীতির মামলায় জামিন পেলেন পি চিদাম্বরম

৩০ অক্টোবর পর্যন্ত ইডি হেফাজতে রয়েছেন পি চিদাম্বরম। চলতি মাসের গোড়ার দিকে, তাঁকে তিহার জেল থেকে ইডি হেফাজতে নিয়ে যাওয়া হয়।পি চিদাম্বরমকে, সাতদিনের হেফাজতে নেওয়ার আবেদন জানায় এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট। ইডির পক্ষের আইনজীবী সলিসিটর জেনারেল তুষার মেটা সেই আবেদনের বিরোধিতা করেন, এবং বলেন, যদি সংস্থার তদন্তে কাটছাঁট করা হয়, তাহলে সেটা হবে বিচারের ব্যর্থতা। আদালতে তুষার মেটা বলেন, নথিপত্রের প্রমাণে দেখা গিয়েছে, পি চিদাম্বরম আর্থিক তছরূপে যুক্ত। তিনি আদালতে আরও বলেন, সাক্ষীদের বয়ান, সহকারী ষড়যন্ত্রকারী এবং পি চিদাম্বরমের বয়ানের মধ্যে স্পষ্ট অসঙ্গতি রয়েছে, ফলে তাঁকে সাক্ষী এবং অন্যান্য প্রমাণের মুখোমুখি করানো প্রয়োজন।

সিবিআইয়ের চার্জশিটে "মার্জনা" তালিকায় পি চিদাম্বরমের বিরুদ্ধে অভিযোগকারী ইন্দ্রাণী মুখোপাধ্যায়!

২১ অগস্ট পি চিদাম্বরমকে গ্রেফতার করে সিবিআই, এক পক্ষকার আগে পর্যন্ত তিহার জেলে ছিলেন তিনি, তারপর তাঁকে ইডির হেফাজতে দেওয়া হয়। 

আইএনএক্স মিডিয়া কেলেঙ্কারিতে পি চিদাম্বরমের বিরুদ্ধে অভিযোগ, ২০০৭-এ কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী থাকাকালীন, আইএনএক্স মিডিয়া সংস্থাকে বিদেশলগ্নি পাওয়ার অনুমোদন দিয়েছিলেন তিনি, ওই সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন পিটার মুখোপাধ্যায় এবং ইন্দ্রাণী মুখোপাধ্যায়, তারজন্য ঘুষ নিয়েছিলেন পি চিদাম্বরমের থেলে কার্তি চিদাম্বরম। সিবিআইয়ের চার্জশিটে, পি চিদাম্বরম, কার্তি চিদাম্বরমসহ একাধিক পদস্থ আমলা এবং বেসরকারি সংস্থার বিরুদ্ধে সরকারের ক্ষতির কারণ হিসেবে তুলে ধরা হয়েছে। পি চিদাম্বরম ৯.৯৬ লক্ষ টাকা ঘুষ নিয়েছিলেন বলে অভিযোগ।

আজকের গুরুত্বপূর্ণ খবরগুলি দেখতে ক্লিক করুন: 

পিটার মুখোপাধ্যায়ও অভিযুক্ত, তবে ইন্দ্রাণী মুখোপাধ্যায়, পি চিদাম্বরমের নাম করেছিলেন, তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়নি। পিটার মুখোপাধ্যায় ও ইন্দ্রাণী মুখোপাধ্যায়, শিনা বোরা হত্যাকাণ্ডে জেলে রয়েছেন। ইন্দ্রাণী মুখোপাধ্যায়ের মেয়ে শিনা বোরা।

More News