“শুধুমাত্র সাম্প্রদায়িক রাজনীতি...”, নাগরিকত্ব আইনের জেরে দল ছাড়লেন বিজেপি নেতা

বিজেপি নেতা উসমান প্যাটেল এএনআইকে বলেন, “শুধুমাত্র সাম্প্রদায়িক রাজনীতি” করছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির দল, এবং জরুরি বিষয়গুলিকে অবহেলা করছে

“শুধুমাত্র সাম্প্রদায়িক রাজনীতি...”, নাগরিকত্ব আইনের জেরে দল ছাড়লেন বিজেপি নেতা

নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে দল ছাড়লেন ইন্দোরের বিজেপি নেতা উসমান প্যাটেল

নয়াদিল্লি:

নাগরিকত্ব আইনের (Citizenship Amendment Act) বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে কাউন্সিলর পদের পাশাপাশি দল ছাড়লেন মধ্যপ্রদেশের ইন্দোরের এক বিজেপি নেতা। বিজেপি নেতা উসমান প্যাটেল (Usman Patel) সংবাদসংস্থা এএনআইকে বলেন, “শুধুমাত্র সাম্প্রদায়িক রাজনীতি” করছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির দল, এবং জরুরি বিষয়গুলিকে অবহেলা করছে, যেমন, আর্থিক মন্দা,”সমস্ত ধর্মের মানুষের মধ্যে ফাটল ধরাতে” এগুলো করা হচ্ছে। তিনি বলেন, “৪০ বছর ধরে, সম্পূর্ণ একাগ্রতার সঙ্গে আমি বিজেপি করেছি। যাইহোক, আমায় পদত্যাগ করতে হল, কারণ, সংসদে নাগরিকত্ব আইন পাস হওয়া নিজেদের আদর্শ-“বসুদৈব কটুম্ববকম” বিরুদ্ধে যাচ্ছে বিজেপি। তিনি বলেন, “প্রকৃত ইস্যুগুলি থেকে সরে যাচ্ছে বিজেপি। এরা শুধুমাত্র সাম্প্রদায়িক রাজনীতি করছে। জিডিপি নীচে নামছে এবং মুদ্রাস্ফীতি বাড়ছে, অথচ দল এমন আইন আনছে যাতে, সমস্ত ধর্মের মানুষের মধ্যে ফাটল ধরায়”।

নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে মুখ খোলায় উসমান প্যাটেলই প্রথম বিজেপি নেতা নন, গতমাসে নিজেদের সদস্যপদ ছেড়েছেন প্রায় ৮০ জন বিজেপি নেতা, নাগরিকত্ব আইকে একটি “বিভাজনমূলক” পদক্ষেপ বলে মন্তব্য করেছেন তাঁরা।

রাজ্যের আরেক বিজেপি নেতা অজিত বোরাসি, যাঁর বাবা প্রাক্তন কংগ্রেস সাংসদ, তিনি বলেন, “এনআরসি এবং সিএএ শুধুমাত্র মুসলিমদের ওপরেই প্রভাব ফেলবে না, তপশিলি জাতি, উপজাতি , অনগ্রসর শ্রেণীর মানুষের ওপরেও প্রভাব ফেলবে”।

নাগরিকত্ব আইন নিয়ে খড়গহস্ত বিরোধীরা, এই আইনের বিরুদ্ধে শাহিনবাগে চলছে বিক্ষোভ, যা ইতিমধ্যেই নাগরিত্ব আইনের প্রতিবাদের মুখ হয়ে উঠেছে।

এবারের দিল্লি নির্বাচনে অন্যতম ইস্যু হয়ে উঠেছে শাহিনবাগের প্রতিবাদ, বিক্ষোভ, শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভের বিরুদ্ধে ঘৃণামূলক মন্তব্য করেছেন বিজেপির লোকসভার সাংসদ প্রবেশ বার্মা, প্রচারসভায় তিনি বলেন,  “তারা আপনাদের ঘরে ঢুকবে, বোন ও মেয়েদের ধর্ষণ করবে, তাদের মেরে ফেলুন”।

hc06d25দিল্লির শাহিনবাগে নাগরিকত্ব সংশোধন আইনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভে সামিল শখানেক মানুষ

এর আগে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে “জঙ্গি” বলে মন্তব্য করেছিল বিজেপি, বৃহস্পতিবার  কেজরিওয়ালের বিরুদ্ধে “শাহিনবাগে বিরিয়ানি সরবরাহ” করার অভিযোগ তোলে বিজেপি।

Newsbeep

অবিজেপি শাসিত রাজ্যগুলির মধ্যে অন্যতম মধ্যপ্রদেশ, করল এবং বাংলা ছাড়া, তারাও নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে প্রস্তাবনা পাশ করিয়েছে

নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে সমালোচনা আটকাতে ময়দানে নেমেছেন অমিত শাহ এবং প্রধানমন্ত্রী মোদি, বিরোধী শিবিরের বিরুদ্ধে ভুয়ো খবর রটানোর অভিযোগ তুলেছেন তাঁরা, এবং ইচ্ছাকৃতভাবে মানুষের সঙ্গে ধোঁকাবাজির অভিযোগ তোলা হয়েছে।

ডিসেম্বরে, ঝাড়খণ্ডের সভায়, নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভকারীদের “গণতান্ত্রিকভাবে” বিরোধিতা করার কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী মোদি এবং বলেন, সংবিধানকে “পবিত্র গ্রন্থ” মনে করে বিজেপি।

জানা গিয়েছে, ইন্দোরের সভাপতি গোপি কৃষ্ণ নিমাকে পদত্যাগপত্র পাঠিয়েছেন উসমান প্যাটেল। তবে তাঁর পদত্যাগপত্র গৃহীত হয়েছে কিনা, তা জানা যায়নি।