Shaheen Bagh: "ওরাই ধর্ষণ করবে, মেরে ফেলবে": বিতর্কিত মন্তব্য বিজেপি সাংসদের

Delhi Assembly Elections 2020: পশ্চিম দিল্লির সাংসদ, পারবেশ সাহেব সিং ভার্মা বিকাশপুরীতে নির্বাচনী প্রচার চালানোর সময় ওই বিস্ফোরক মন্তব্য করেন

দিল্লির বিধানসভা নির্বাচন "দেশের ঐক্যের পক্ষে সিদ্ধান্ত নেবে", বলেন Parvesh Sahib Singh Verma

হাইলাইটস

  • শাহিনবাগের বিক্ষোভকারীদের নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য এক বিজেপি সাংসদের
  • এই বিক্ষোভকারীদের মধ্যেই কেউ কেউ ধর্ষণ করে হত্যা করবে, বলেন গেরুয়া সাংসদ
  • নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে গত একমাস ধরে অবস্থান বিক্ষোভ চলছে শাহিনবাগে
নয়া দিল্লি:

দিল্লিতে বিজেপি ক্ষমতায় এলে শাহিনবাগের (Shaheen Bagh) এই বিক্ষোভ-আন্দোলন একঘণ্টার মধ্যেই হাপিস হয়ে যাবে, এমনই দাবি করলেন বিজেপির এক সাংসদ। শুধু এই দাবিই নয়, আরও এক ধাপ এগিয়ে শাহিনবাগের বিক্ষোভকারীদের নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্যও করে বসলেন পশ্চিম দিল্লির সাংসদ, পারবেশ সাহেব সিং ভার্মা। দিল্লি বিধানসভার (Delhi Assembly Elections 2020) নির্বাচনী প্রচার করতে গিয়ে বিকাশপুরীর জনসভা থেকে শাহিনবাগের বিক্ষোভকারীদের সম্পর্কে তিনি (Parvesh Sahib Singh Verma) বলেন, "ওরাই আপনার বাড়িতে প্রবেশ করবে, আপনার বোন এবং কন্যাকে ধর্ষণ করবে"। "এটা যেমন তেমন নির্বাচন নয়। এই নির্বাচন আসলে একটি জাতির ঐক্যের পক্ষে সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্যে নির্বাচন। ১১ ফেব্রুয়ারি বিজেপি এখানে ক্ষমতায় আসলে আপনি এক ঘণ্টার মধ্যে কোনও প্রতিবাদীকে খুঁজে পাবেন না। শুধু তাই নয়, যদি জিততে পারি তবে জয়ের একমাসের মধ্যে আমরা সরকারি জমিতে একটি মসজিদও হতে দেব না", বলেন ওই বিজেপি সাংসদ।

CAA: "এত জোরে বোতাম টিপুন যাতে শাহিনবাগ কারেন্ট খায়", বললেন অমিত শাহ

নিজের বিতর্কিত মন্তব্যের প্রসঙ্গে আরও বিশদ ব্যাখ্যা করে মঙ্গলবার সংবাদসংস্থা এএনআই-কে পারবেশ সাহেব সিং ভার্মা বলেন, "যে লক্ষ লক্ষ মানুষ এখানে (শাহিনবাগ) জড়ো হয়েছে ... ওরাই আপনার বাড়িতে প্রবেশ করবে, আপনার বোন ও কন্যাকে ধর্ষণ করবে, হত্যা করবে। তাই এখনই সিদ্ধান্ত নিন, না হলে ভবিষ্যতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং অমিত শাহ আপনাকে বাঁচাতে আসবেন না।"

পশ্চিম দিল্লির সাংসদ, পারবেশ সাহেব সিং ভার্মা বিকাশপুরীতে নির্বাচনী প্রচার চালানোর সময় ওই বিস্ফোরক মন্তব্য করেন।

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনে ২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে পাকিস্তান, আফগানিস্তান ও বাংলাদেশ থেকে ধর্মীয় নির্যাতনের শিকার হয়ে এ দেশে আশ্রয় নেওয়া হিন্দু, খ্রিস্টান, শিখ, ফার্সি, জৈন ও বৌদ্ধ শরণার্থীদের ভারতীয় নাগরিকত্ব প্রদানের কথা বলা হয়েছে। আইন অনুযায়ী, এই সম্প্রদায়ের শরণার্থীদের বেআইনি অনুপ্রবেশকারী হিসেবে দেখা হবে না। তাঁদের ভারতীয় নাগরিকত্ব দেওয়া হবে। সমালোচকদের মতে, এই আইন মুসলিমদের জন্য বৈষম্যমূলক এবং সংবিধানে বর্ণিত দেশের ধর্মনিরপেক্ষ ভাবমূর্তির পরিপন্থী। 

এক মাসেরও বেশি সময় ধরে, দক্ষিণ পূর্ব দিল্লির শাহিনবাগে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ সমাবেশ করতে অবস্থান বিক্ষোভে বসেছেন বহু মানুষ। সেখানে অন্তত দুই শতাধিক মহিলাও যোগ দিয়েছেন। প্রতিবেশী তিনটি দেশ থেকে কেবলমাত্র অমুসলিম শরণার্থীদের নাগরিকত্ব দেওয়ার যে বিধান নাগরিকত্ব আইনে দেওয়া হয়েছে তার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতেই ওই অবস্থান বিক্ষোভ।

Delhi Assembly Elections 2020: তাসের টেক্কা হবে "শাহিনবাগ", পরিকল্পনায় বিজেপি?

এদিকে "শাহিনবাগের সমর্থনে নাকি বিরোধিতায় আপনি", এই ইস্যুতে একটি সমীক্ষা চালানোর পথে হাঁটতে চলেছে বিজেপি। গেরুয়া দলের এক নেতা জানিয়েছেন যে, দলের পক্ষ থেকে সাধারণ মানুষ তো বটেই, এমনকি আম আদমি পার্টি এবং কংগ্রেসকেও জিজ্ঞাসা করা হবে যে তাঁরা শাহিনবাগের আন্দোলনকে সমর্থন করেন নাকি এর বিরোধিতা করছেন?

Listen to the latest songs, only on JioSaavn.com