This Article is From Jul 03, 2019

মৌলবাদী কার্যকলাপ ছড়াতে রাজ্যের ২ জেলার মাদ্রাসা ব্যবহার করছে জামাত-উল-মুজাহিদিন; কেন্দ্র

রাজ্যের ২ টি জেলার বিভিন্ন মাদ্রাসাকে ব্যবহার করে সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপের ভিত্তি প্রস্তুত করছে বাংলাদেশের সন্ত্রাসবাদী সংগঠন

মৌলবাদী কার্যকলাপ ছড়াতে রাজ্যের ২ জেলার মাদ্রাসা ব্যবহার করছে জামাত-উল-মুজাহিদিন; কেন্দ্র

বাংলায় ঘটে চলা রাজনৈতিক হিংসার বিষয়েও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক পশ্চিমবঙ্গ সরকারের প্রতি উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। 

নিউ দিল্লি:

এই রাজ্যের ২ টি জেলার বিভিন্ন মাদ্রাসাকে ব্যবহার করে সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপের ভিত্তি প্রস্তুত করছে বাংলাদেশের সন্ত্রাসবাদী সংগঠন। মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক (Union Home Ministry) জানিয়েছে, সন্ত্রাসী সংগঠন জামাত-উল-মুজাহিদিন বাংলাদেশ (Jamaat-ul-Mujahideen Bangladesh) মৌলবাদী কার্যকলাপের অনুশীলন ও দলে নিয়োগ (radicalisation and recruitment activities) চালিয়ে যাওয়ার জন্য এই রাজ্যের বর্ধমান ও মুর্শিদাবাদ জেলার বেশ কিছু মাদ্রাসা (Madrasas in Burdwan and Murshidabad district) ব্যবহার করছে। সাম্প্রতিক এই বাংলায় ঘটে চলা রাজনৈতিক হিংসার বিষয়েও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক পশ্চিমবঙ্গ সরকারের প্রতি উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। 

ছেলে-মেয়ে একসঙ্গে পড়লেই হেনস্থা! আলাদা দিনে পড়ানোর সিদ্ধান্ত মালদার সরকারি স্কুলে

স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী জি কিশান রেড্ডি (Minister of State for Home G Kishan Reddy) লোকসভায় একটি লিখিত উত্তরে বলেন, সংশ্লিষ্ট বিষয়ে প্রয়োজনীয় তথ্য ও যথাযথ পদক্ষেপের বিষয়ে পরামর্শ সংশ্লিষ্ট রাজ্য সরকার (West Bengal government) ও সংস্থাগুলির সাথে নিয়মিতভাবে ভাগ করে নেওয়া হয়।

তিনি বলেন, “অবৈধ কার্যকলাপ (প্রতিরোধ) আইন, ১৯৬৭ (Unlawful Activities (Prevention) Act, 1967) অনুযায়ী জামাত-উল-মুজাহিদিন বাংলাদেশ (Jamaat-ul-Mujahideen Bangladesh) বা জামাত-উল-মুজাহিদিন ভারত (Jamaat-ul-Mujahideen India) বা জামাত-উল-মুজাহিদিন হিন্দুস্তান (Jamaat-ul-Mujahideen Hindustan) ও তার সকল প্রকাশকে এই বছরের ২৩ মে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসাবে অবহিত করা হয়েছে।"

মন্ত্রী আরও বলেন, ২০১৯ সালের সাধারণ নির্বাচনের আগে, নির্বাচন চলাকালীন এবং পরেও পশ্চিমবঙ্গের রাজনৈতিক কর্মী সহ বহু সাধারণ মানুষের রাজনৈতিং হিংসায় মৃত্যু ও আহত হওয়ার বেশ কয়েকটি ঘটনা সম্পর্কে তথ্য পাওয়া গেছে।

 ‘‘এবার রাজ্যে চলতে থাকা হিংসা বন্ধ হোক'': রাজ্যে শান্তির আবেদন নুসরতের

তিনি বলেন, “এই বিষয়ে কেন্দ্র সরকার যে উদবিগ্ন তা রাজ্যসরকারকে জানিয়েছে কেন্দ্র এবং ৯ জুন ২০১৯-এই তারিখে একটি উপদেষ্টা জারি করা হয়েছিল। তাতে রাজ্য সরকারকে আইন-শৃঙ্খলা, শান্তি ও জনসাধারণের নিরাপত্তা বজায় রাখতে বলা হয়েছিল।"



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)