রাজীব কুমারের সন্ধানে বাড়ি, পাঁচতারা হোটেলে তল্লাশি সিবিআইয়ের

Chit Fund Scam: সূত্রের খবর, নতুন করে রাজ্য পুলিশের ডিজিকে চিঠি দিয়ে রাজীব কুমারের ফোন নম্বর চেয়েছে সিবিআই, যাতে তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করা যাবে

রাজীব কুমারের সন্ধানে বাড়ি, পাঁচতারা হোটেলে তল্লাশি সিবিআইয়ের

চিঠিতে ডিজি বলেন, আইনজীবী মারফৎ রাজীব কুমার তাঁকে জানিয়েছেন, ২৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ছুটিতে যাবেন তিনি।

কলকাতা/নয়াদিল্লি:

রাজীব কুমারের (Rajeev Kumar) সন্ধানে বৃহস্পতিবার তাঁর বাড়ি, পাঁচতারা হোটেলে তল্লাশি চালালো সিবিআই (CBI)। কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনারের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করার আবেদন জানায় সিবিআই, পাশাপাশি নতুন করে তাঁকে হাজিরার নোটিশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। আলিপুরের অতিরিক্ত বিচারবিভাগীয় মেজিস্ট্রেট, বৃহস্পতিবার এডিজি সিআইডি রাজীব কুমার এবং সিবিআইয়ের আইনজীবীর সওয়ালের পর, রায়দান স্থগিত রেখেছেন।এদিন তরিঘরি রাজ্য পুলিশের এডিজিকে চিঠি দিয়ে রাজীব কুমারের ফোন নম্বর চেয়েছে সিবিআই, যে ফোন নম্বরের মাধ্যমে তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করা যাবে। রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে তথ্যপ্রমাণ লুকানোর অভিযোগ রয়েছে, যে তথ্যপ্রমাণগুলি সারদাকাণ্ডের (Saradah Scam) চূড়ান্ত চার্জশিটজমা দেওয়ার ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় ছিল সিবিআইয়ের কাছে। কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার নোটিশ এড়িয়েছেন তিনি এবং কোথায় রয়েছেন, তাও জানা নেই তদন্তকারীদের।

আগাম জামিন পেলেন না কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমার

তদন্তকারী সংস্থার এক আধিকারিক জানান, নতুন করে নোটিশ দিয়ে রাজীব কুমারকে শুক্রবার সকাল ১১টায় হাজিরা দিতে বলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দিনভর আইপিএস অফিসারের আলিপুরের আবাসন, ইএম বাইপাসের একটি পাঁচতারা হোটেলসহ শহরের বিভিন্ন জায়গায় তল্লাশি চালায় সিবিআই।  গত শুক্রবার রাজীব কুমারের গ্রফতারি থেকে সুরক্ষা প্রত্যাহার করে কলকাতা হাইকোর্ট। আলিপুর আদালতে সিবিআই জানায়, একাধিকবার এই আইপিএস আধিকারিককে সারদাকাণ্ডে তদন্তে সহযোগিতার জন্য নোটিশ পাঠানো হলেও, হাজিরায় ব্যর্থ হয়েছেন তিনি।

রাজীব কুমারের খোঁজে বিশেষ দল তৈরি করল সিবিআই: সূত্র

অতিরিক্ত মুখ্য বিচারবিভাগীয় মেজিস্ট্রেট সুব্রত মুখোপাধ্যআয়ের এজলাসে সিবিআইয়ের আইনজীবী জানান, তদন্ত সহযোগিতা করছেন না রাজীব কুমার। তাঁদের দাবি, অযৌক্তিক কারণ দেখিয়ে হাজিরা এড়াচ্ছেন রাজীব কুমার এবং সল্টলেকে তদন্ত সংস্থার দফতরে হাজিরার জন্য আরও সময় চাইছেন। রাজীব কুমারের আইনজীবী জানান, তিনি একজন সাক্ষী, অভিযুক্ত নন, ফলে এই মামলায় তাঁর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করতে পারে না আদালত। রাজীব কুমারের তদন্ত সহযোগিতা না করার অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে, তিনি জানান, রাজীব কুমার পলাতক নন, এবং সিবিআইকে জানিয়েছিলেন, ২৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত পাওয়া যাবে না তাঁকে।

সোমবারেও হাজিরায় ব্যর্থ কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমার

এর আগের বিভিন্ন মামলার উদাহরণ তুলে ধরেন সিবিআইয়ের আইনজীবী, তারমধ্যে রয়েছে, দাউদ ইব্রাহিমের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির প্রসঙ্গও। রাজীব কুমারের আইনজীবী বলেন, সেই মামলাটি ছিল দেশের মোস্ট-ওয়ান্টেডের বিরুদ্ধে, যা এই মামলায় প্রযোজ্য নয়। দক্ষিণ ২৪ পরগনার আলিপুর আদালতে সারদা চিটফান্ড মামলা রুজু করা হয়। ১৭ সেপ্টেম্বর আগাম জামিনের আবেদন জানিয়ে বারাসাত জেলা ও দায়েরা আদালতের দ্বারস্থ হন রাজীব কুমার, যদিও তা পাননি তিনি। দায়েরা বিচারক জানান, যেহেতু মামলা দায়ের হয়েছিল আলিপুর জেলা আদালতে, ফলে এই বিষয়ে তাঁদের কোনও এক্তিয়ার নেই।

সিবিআইয়ের নোটিশ নিয়ে রাজীব কুমারের আবেদনের অগ্রিম শুনানির আর্জি খারিজ

সোমবার, রাজ্য পুলিশে ডিজি সিবিআইকে জানান, রাজীব কুমারকে পাঠানো নোটিশ তাঁর সরকারি ঠিকানায় পাঠানো হয়েছে, তবে এখনও কোনও উত্তর আসেনি। চিঠিতে ডিজি বলেন, আইনজীবী মারফৎ রাজীব কুমার তাঁকে জানিয়েছেন, ২৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ছুটিতে যাবেন তিনি। চিঠিতে আরও উল্লেখ করা হয়, নিজের পক্ষে আইনি সুরক্ষার চেষ্টায় রয়েছেন রাজীব কুমার।

উচ্চ হারে ফেরৎ-এর প্রলোভন দেখিয়ে লক্ষাধিক আমানতকারীর থেকে ২৫০০ কোটি টাকা তোলা এবং তা আত্মসাৎ করার অভিযোগ সারদা গ্রুপ অফ কোম্পানিজের বিরুদ্ধে। ২০১৪-এ সারদাসহ অন্যান্য চিটফান্ডগুলির তদন্তভার সিবিআইয়ের হাতে তুলে দেয় সুপ্রিম কোর্ট। তার আগে চিটফান্ড কেলেঙ্কারির তদন্তে সিট বা বিশেষ তদন্তকারী দল গঠন করেছিল রাজ্য সরকার, সেই সিটের প্রধান ছিলেন রাজীব কুমার।