ফের অসুস্থ অমিত শাহ, ভর্তি করা হলো এইমসের পোস্ট কোভিড কেয়ারে

Amit Shah: কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী গত তিন-চার দিন ধরে ক্লান্তি এবং সারা শরীরে ব্যথা অনুভব করছিলেন বলে জানিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ

ফের অসুস্থ অমিত শাহ, ভর্তি করা হলো এইমসের পোস্ট কোভিড কেয়ারে

Coronavirus: গত সপ্তাহেই অমিত শাহের করোনা পরীক্ষার ফল নেগেটিভ এসেছিলো

হাইলাইটস

  • ফের অসুস্থ বোধ করায় অমিত শাহকে হাসপাতালে ভর্তি করা হলো
  • দিল্লির এইমস হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে তাঁকে
  • গত সপ্তাহেই করোনা নেগেটিভ হিসাবে ধরা পড়েন তিনি
নয়া দিল্লি:

গত সপ্তাহেই সবে মাত্র কোভিড-১৯ (Coronavirus) এর প্রকোপ কাটিয়ে নেগেটিভ হিসাবে ধরা পড়েছিলেন অমিত শাহ, এরই মধ্যে ফের অসুস্থ বোধ করায় হাসপাতালে ভর্তি করতে হলো তাঁকে। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে (Amit Shah) দিল্লির এইমস (AIIMS) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়ছে। ওই সরকারি হাসপাতালের তরফে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ গত তিন-চার দিন ধরে ক্লান্তি এবং সারা শরীরে ব্যথা অনুভব করছিলেন। এইমসের সংবাদমাধ্যম ও প্রোটোকল বিভাগের চেয়ারপার্সন ডঃ আরতি ভিজ জানিয়েছেন, "অমিত শাহ গত তিন-চার দিন ধরে ক্লান্তি বোধ করছিলেন এবং সারা শরীরে ব্যথা অনুভব করছেন। এর আগে তিনি কোভিড -১৯ নেগেটিভ হিসাবে ধরা পড়েছেন। তা সত্ত্বেও অসুস্থ বোধ করায় তাঁকে কোভিড চিকিৎসার জন্যই ফের এইমস-এ ভর্তি করা হয়েছে। তিনি স্থিতিশীল অবস্থাতে আছেন এবং হাসপাতালে থেকেই নিজের কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন।" 

কোভিড -১৯ পরীক্ষায় নেতিবাচক ফল আসার পর, ৫৫ বছর বয়সী অমিত শাহকে গত সপ্তাহেই গুরগাঁওয়ের বেসরকারি হাসপাতাল মেদান্ত থেকে বাড়ি পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছিল। সেই সময় তিনি টুইট করেন যে চিকিৎসকদের পরামর্শে তিনি আরও কিছুদিন বাড়িতে সবার থেকে বিচ্ছিন্ন অবস্থায় থাকবেন।

অত্যন্ত সংক্রামক কোভিড -১৯ পরীক্ষায় ইতিবাচক ফলাফল আসার তিন সপ্তাহ আগে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার এক বৈঠকে অংশ নিয়েছিলেন। সেই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং ও অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন সহ শীর্ষস্থানীয় মন্ত্রীরা প্রায় সকলেই। সামাজিক দূরত্ব সহ সমস্ত সুরক্ষাজনিত নিয়মাবলী অনুসরণ করেই এই গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকটি করা হয়। জানা গেছে, বৈঠকটিতে জাতীয় শিক্ষানীতি বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

Newsbeep

তবে অমিত শাহ করোনা আক্রান্ত হিসাবে ধরা পড়ার পরই তিনি যাঁদের সংস্পর্শে এসেছিলেন তাঁদের সকলকেই সেল্ফ কোয়ারান্টাইনে যাওয়ার জন্য অনুরোধ করা হয়।

এদিকে দেশে করোনা সংক্রমণের গতি অপ্রতিরোধ্যই রয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় এদেশে ৫৫,০৭৯ জনের শরীরে নতুন করে বাসা বাঁধলো করোনা ভাইরাস; ফলে সব মিলিয়ে দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ২৭.০২ লক্ষে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের সাম্প্রতিক পরিসংখ্যান অনুযায়ী, সোমবার সারাদিনে ৮৭৬ জনের মৃত্যু হয়েছে কোভিড-১৯ এ ভুগে। ফলে এদেশে এপর্যন্ত মোট ৫১,৭৯৭ জনের প্রাণ কাড়লো এই ভয়ঙ্কর সংক্রামক রোগ । তবে ১৯,৭৭ লক্ষেরও বেশি মানুষ করোনা থেকে সুস্থও হয়ে উঠেছেন। তথ্য বলছে, দেশে এই পুনরুদ্ধারের হার বেড়ে এখন ৭৩.১৮% এ গিয়ে পৌঁছেছে।