‘দুর্গাপুজো কার্নিভাল’-কে ‘‘গণতন্ত্রের পরিহাস’’ বলে কটাক্ষ বিজেপির

বিজেপির অভিযোগ, এমন এক সময় এই কার্নিভাল (Durga Puja Carnival 2019) আয়োজন করছে রাজ্য সরকার, যখন রাজ্যজুড়ে বহু বিজেপি কর্মীর হত্যার ঘটনা ঘটছে।

‘দুর্গাপুজো কার্নিভাল’-কে ‘‘গণতন্ত্রের পরিহাস’’ বলে কটাক্ষ বিজেপির

তৃণমূল কংগ্রেস অবশ্য দিলীপ ঘোষের মন্তব্যকে বেশি গুরুত্ব দিতে নারাজ।

কলকাতা:

‘দুর্গাপুজো কার্নিভাল'-কে (Durga Puja Carnival) ‘‘গণতন্ত্রের পরিহাস'' বলে শুক্রবার সমালোচনা করলেন বিজেপির (BJP) রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তাঁর অভিযোগ, এমন এক সময় এই কার্নিভাল (Durga Puja Carnival 2019) আয়োজন করছে রাজ্য সরকার, যখন রাজ্যজুড়ে বহু বিজেপি কর্মীর হত্যার ঘটনা ঘটছে। তাঁর দাবি, এসবই করা হচ্ছে মানুষের দৃষ্টি ঘোরাতে। সাংবাদিকদের বিজেপি নেতা বলেন , ‘‘দুর্গাপুজোর সময় পাঁচজন বিজেপি কর্মীকে খুন করা হয়েছে, মুর্শিদাবাদের তিনটি হত্যাকাণ্ড ছাড়া। মুর্শিদাবাদে যে স্কুল শিক্ষক খুন হয়েছেন তিনি আমাদের দলীয় সমর্থক। এর থেকে রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি প্রতিফলিত হয় এবং বোঝা যায় সেটা কীভাবে ভেঙে পড়েছে। এবং রাজ্য এক কার্নিভালের আয়োজন করেছে যা গণতন্ত্রের পরিহাস ছাড়া কিছুই নয়।''

বাংলার পরিস্থিতি জানাতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, রাষ্ট্রপতির কাছে সময় চাইল বিজেপি

তিনি বলেন, মানুষকে রক্ষা করতে সরকার এবং মুখ্যমন্ত্রীর ব্যর্থতা থেকে মানুষের দৃষ্টি অন্য দিকে ঘোরানোর জন্য এই প্রচেষ্টা। রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর কাছে বাংলার আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির সম্পর্কে অবহিত করার জন্য বিজেপি সময় চাওয়ার পরই দিলীপ ঘোষ এই বক্তব্য রাখলেন।

তৃণমূল কংগ্রেস অবশ্য দিলীপ ঘোষের মন্তব্যকে বেশি গুরুত্ব দিতে নারাজ। তারা জানিয়েছে, বিজেপি দেশের অর্থনৈতিক মন্দা থেকে সকলের দৃষ্টি ঘোরাতেই এমন বলছে।

‘‘গত ৪ দিনে ৮ জনের মৃত্যু'': পুরোহিতের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে বিজেপির আক্রমণ

বর্ষীয়ান তৃণমূল নেতা তাপস রায় জানিয়েছেন, ‘‘বিজেপির উচিত ভিত্তিহীন অভিযোগ আনা বন্ধ করা। বাংলার আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি একদম ঠিক আছে। কেবল বিজেপি সেটা নষ্ট করতে চাইছে। বরং বিজেপিই পেশীবহুল জাতীয়তাবাদের প্রোপাগান্ডার দ্বারা মানুষের মনোযোগ দেশের অর্থনৈতিক মন্দা থেকে সরানোর চেষ্টা করছে।''

শহর ও শহরের আশপাশের যে সমস্ত পুজো এবার রাজ্য সরকারের ‘বিশ্ববাংলা শারদ সম্মান ২০১৯' পেয়েছে তারাই যোগ দিয়েছে ‘দুর্গাপুজো কার্নিভাল'-এ। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও তাঁর মন্ত্রিসভার সদস্যরা ছাড়াও এখানে উপস্থিত বিভিন্ন দেশ থেকে আগত বহু বিদেশি অতিথিও। রাজ্য সরকার আয়োজিত ওই কার্নিভালে প্রতিটি পুজো কমিটির একটি করে ট্যাবলো থাকবে। সেগুলি একের পর এক রেড রোডে আসবে। প্রতিটি কমিটিকে ২ মিনিট করে দেওয়া হয়েছে পারফরম্যান্সের জন্য।

দেখুন ভিডিও

দেখুন কার্নিভালের ভিডিও:

More News