This Article is From Jun 23, 2020

Coronavirus: ভারতে মৃত ১৪ হাজারেরও বেশি মানুষ! দেশজুড়ে সংক্রমিত ৪.৪ লক্ষ

মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল বলেছেন যে, জাতীয় রাজধানীতে পরিস্থিতি ধীরে ধীরে স্থিতিশীল হচ্ছে। অন্যদিকে গোয়ায় এই মারণরোগ থেকে প্রথম মৃত্যুর খবর মিলেছে।

Coronavirus: ভারতে মৃত ১৪ হাজারেরও বেশি মানুষ! দেশজুড়ে সংক্রমিত ৪.৪ লক্ষ
ভারতে এখন পর্যন্ত ১৪,০০০ এরও বেশি মানুষের মৃত্যু করোনাভাইরাসে! এ পর্যন্ত মোট সংক্রমিত ৪.৪ লক্ষ; আরোগ্যলাভের হার ৫৬ শতাংশেরও বেশি। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের আজ সকালে প্রকাশিত তথ্যে দেখা গিয়েছে, ভারতে একদিনে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১৪,৯৩৩ জন মানুষ! যার ফলে সংক্রমণের পরিমাণ বেড়ে দাঁড়াল ৪,৪০,২১৫। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে ৩১২ জনের মৃত্যুর ঘটনার পরে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৪,০১১ জনে। সোমবার দিল্লি কোভিড-১৯ সংক্রমণের কারণে মৃত্যুর সংখ্যা বাড়ায় দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ক্ষতিগ্রস্থ রাজ্যের তালিকায় উঠে এসেছে। মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল যদিও বলেছেন যে, জাতীয় রাজধানীতে পরিস্থিতি ধীরে ধীরে স্থিতিশীল হচ্ছে। অন্যদিকে গোয়ায় এই মারণরোগ থেকে প্রথম মৃত্যুর খবর মিলেছে।

দেখে নিন করোনাভাইরাসের সাম্প্রতিক চিত্র; ১০ টি পয়েন্টে

  1. সোমবার মহারাষ্ট্রের কোভিড-১৯ আক্রান্তের সংখ্যা ১,৩৫,৭৯৬-এ পৌঁছেছে, রাজ্যে ৩৭২১ টি নতুন করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে। মুম্বইয়েই আক্রান্তের সংখ্যা ৬৭,৫৮৬ এবং প্রতিবেশী থানেতে আক্রান্ত ২৫,৩৯০ জন। রাজ্যে মোট মৃত্যুর সংখ্যা গত ২৪ ঘণ্টায় বেড়ে ৬,২৮৩-এ পৌঁছেছে। মুম্বইয়ে মৃত্যুর সংখ্যা ৩,৭৩৭।

  2. অরবিন্দ কেজরিওয়াল সরকার গত রাতে ঘোষিত নতুন বিধি অনুসারে জানিয়েছে যে, দিল্লির মানুষজন যারা ল্যাব-ভিত্তিক সোয়াব টেস্টের মাধ্যমে করোনাভাইরাস পজিটিভ হিসেবে ধরা পড়ছেন তাদের প্রথমে কোনও একটি সরকারি কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হবে যেখানে মেডিকেল অফিসার জানাবেন যে তাঁরা হোম কোয়ারান্টাইনে থাকার যোগ্য কিনা। অ্যান্টিজেন পরীক্ষার মাধ্যমে কেউ পজিটিভ প্রমাণিত হলে তার পরীক্ষার কেন্দ্র বা আশেপাশের কেন্দ্রগুলির মাধ্যমে ঘটনাস্থলেই মূল্যায়ন করা হবে। রাজধানীতে ২,২৩৩ জনের মৃত্যু হয়েছে এই ভাইরাসে, আক্রান্ত ৬২,৬৫৫ জন।

  3. গত ২৪ ঘণ্টায় ২৭১০ জন কোভিড-১৯ পজিটিভ ধরা পড়ায় তামিলনাড়ুতে সংক্রমণের সংখ্যার তীব্রতা নতুন মাত্রা ছুঁয়েছে। এই রাজ্যে এখনও পর্যন্ত ৬২,০৮৭ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত। চেন্নাইয়ের পরে, COVID-19 বিস্তার নিয়ন্ত্রণের ব্যবস্থার অংশ হিসাবে ২৪ থেকে ৩০ জুনের মধ্যে মাদুরাই শহর এবং আশেপাশের এলাকায় লকডাউন হবে।

  4. কর্ণাটকের মেডিকেল শিক্ষামন্ত্রী কে সুধাকরের স্ত্রী এবং কন্যা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত। একদিন আগেই কে সুধাকরের দেহে এই ভাইরাস ধরা পড়ে। কর্ণাটক ও রাজধানী বেঙ্গালুরুতে গত কয়েকদিনে করোনাভাইরাস সংক্রমণের সংখ্যা বেড়েছে, রাজ্যের মোট সংক্রমণের সংখ্যা বর্তমানে ৯,৩৯৯। এ পর্যন্ত ১৪২ জন করোনাভাইরাস-আক্রান্ত রোগী মারা গেছেন।

  5. অন্যদিকে, ভারতে করোনাভাইরাস মহামারীর বাড়তে থাকা সংক্রমণের মধ্যে সুপ্রিম কোর্ট ওড়িশাকে সাত দিনের রথযাত্রা উত্সবকে সীমিতভাবে উদযাপনের অনুমতি দেওয়ার একদিনের পরেই ঐতিহাসিক বদলের সাক্ষী রইল এই ধর্মীয় উৎসব। এই প্রথম ভক্তবিহীন জগন্নাথ মন্দিরে বিপুল সংখ্যক পুরোহিত পুরীর বিখ্যাত রথযাত্রার আয়োজন করলেন।

  6. তেলেঙ্গানায় করোনাভাইরাস সংক্রমণের সংখ্যা ৮,৬৭৪-এ দাঁড়িয়েছে এবং মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২১৭। নিহতদের মধ্যে পুলিশের অ্যাসিস্ট্যান্ট সাব ইন্সপেক্টর ও একজন চিকিৎসকও রয়েছেন। রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী এই মহামারী মোকাবিলায় রাজ্যকে সহায়তা করতে কেন্দ্র সরকারের ব্যর্থতার অভিযোগ তুলেছেন। মন্ত্রী এটালা রাজেন্দ্র জানান যে, তেলেঙ্গানা জার্মানি থেকে কোবোস ৮৮০০ নামে একটি গুরুত্বপূর্ণ নমুনা পরীক্ষার মেশিন অর্ডার করেছিল যা একদিনে ৩,৫০০ থেকে ৪,০০০ নমুনা নিতে পারত তবে কেন্দ্র এই মেশিন পশ্চিমবঙ্গে পাঠিয়ে দেয়।

  7. কেরলে গত ২৪ ঘণ্টায় কোভিড-১৯ এর ১৩ টি নতুন সংক্রমণ ধরা পড়েছে, মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩৩১০। রাজ্য সরকারের সূত্র জানিয়েছে, কেরলে মোট কোভিড-১৯ পজিটিভ ক্ষেত্রে ৮৯.৫ শতাংশই বিদেশ থেকে ফিরে আসা মানুষ রয়েছেন। কেরল থেকে আসার পরে সোমবার তামিলনাড়ুতে ১৬ জনের দেহে এই ভাইরাস মিলেছে।

  8. অসম কমপক্ষে সাত দিনের জন্য গুয়াহাটিতে ওয়ার্ড-ভিত্তিক লকডাউন চাপানোর বিষয়ে বিবেচনা করছে বলে জানিয়েছেন রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা।

  9. জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয় জানিয়েছে যে আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্র সোমবার করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের ফলে ১,২০,০০০ মৃত্যুর মারাত্মক সীমা পার করেছে। ২৪ ঘণ্টার মধ্যে এই দেশে আরও ৪২৫ জন মারা গেছেন। রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ভাইরাসে মৃত্যুর সংখ্যা ১,৫০,০০০ ছাড়িয়ে যেতে পারে, যদিও তিনি জোর দিয়ে বলেছেন যে, দেশ এই রোগের বিস্তারকে ধীর করার পদক্ষেপ না নিলে দুই থেকে চার মিলিয়ন মানুষর প্রাণহারা হতে পারত।

  10. করোনাভাইরাস মহামারী গত বছরের শেষ দিকে চিনে প্রথম আত্মপ্রকাশের পর থেকে বিশ্বব্যাপী ৪.৭২ লক্ষ মানুষকে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিয়েছে। ৯০.৯৪ লক্ষেরও বেশি মানুষ অত্যন্ত সংক্রামক এই ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন।



.