দ্বিতীয় সাফল্যঃ শরীর থেকে HIV নির্মূল হল আরও এক জনের

ডাক্তার গুপ্তা জানিয়েছেন ২০০৩ সালে ওই ব্যক্তি HIV-তে আক্রান্ত হন এবং ২০১৭ সালে তিনি হজকিন্স লিম্ফোমা নামক এক ধরনের ব্লাড ক্যান্সারে আক্রান্ত হন।

দ্বিতীয় সাফল্যঃ শরীর থেকে HIV নির্মূল হল আরও এক জনের

বিশ্বব্যাপী ৩৭ মিলিয়ন মানুষ এই মুহূর্তে HIV-তে আক্রান্ত।

হাইলাইটস

  • London man received bone marrow transplant from HIV resistant donor
  • Ravindra Gupta, professor and HIV biologist, co-led team of doctors
  • First known case of functional cure of HIV is of an American man in 2007
লন্ডন:

HIV-তে আক্রান্তদের মৃত্যুই ভবিতব্য- এমনটাই আগে শোনা যেত। কিন্তু এই ধারণাটা ধীরে ধীরে বদলাচ্ছে। প্রথমত HIV-তে আক্রান্ত সেটা প্রকাশ্যে কেউ বলতেই চায় না, আর চিকিৎসা সেখানে দূর কি বাত। তবে চিকিৎসার সাহায্যে HIV নির্মূল হয়েছে সেটাও ওয়ান্স ইন এ ব্লু মুন গোছেরই ব্যাপার। কিন্তু এবার তেমনই ঘটল। ব্রিটেন নিবাসী এক ব্যক্তির বোন ম্যারো ট্রান্সপ্ল্যান্টের মাধ্যমে AIDS নির্মূল হয়েছে এমন নজিরবিহীন ঘটনা এবার উঠে এলো সকলের সামনে। চিকিৎসকরা তাকে লন্ডন পেশেন্ট নামে অভিহিত করেন। HIV প্রতিরোধ করে এমন বোন ম্যারো স্টেম সেল প্রতিস্থাপনের প্রায় তিন বছরের মাথায় ওই রোগীর দেহ থেকে নানা রকম পরীক্ষা নিরীক্ষার মধ্যে দিয়ে HIV-এর জীবাণু সম্পূর্ণরূপে দূর করতে পেরেছেন চিকিৎসকরা। ওই ব্যক্তির চিকিৎসক দলের এক সদস্য রবীন্দ্র গুপ্তা জানিয়েছেন, “এই মুহূর্তে ওই ব্যক্তি সম্পূর্ণ সুস্থ রয়েছে।“

২০০৭ সালে টিমোথি ব্রাউন নামক এক আমেরিকান ব্যক্তি HIV-তে আক্রান্ত হন এবং তিনি চিকিৎসার মধ্যে দিয়ে পুরোপুরি সুস্থ হয়ে যান। তিনিই বিশ্বের প্রথম ব্যক্তি যিনি HIV থেকে নিষ্কৃতি পান এবং এখনও পর্যন্ত তিনি রোগমুক্ত আছেন।

আরও পড়ুনঃ গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে নাম উঠল প্রয়াগরাজের কুম্ভ মেলার

Newsbeep

এই মুহূর্তে বিশ্বব্যাপী ৩৭ মিলিয়ন মানুষ HIV-তে আক্রান্ত এবং ১৯৮০ সাল থেকে আজ পর্যন্ত ৩৫ মিলিয়ন মানুষ মারা গিয়েছেন। বিজ্ঞানীদের গবেষণায় ধরা পড়েছে এক ধরনের জটিল ভাইরাস দিয়ে তৈরি ওষুধে HIV নিরাময় সম্ভব। ডাক্তার গুপ্তা জানিয়েছেন ২০০৩ সালে ওই ব্যক্তি HIV-তে আক্রান্ত হন এবং ২০১৭ সালে তিনি হজকিন্স লিম্ফোমা নামক এক ধরনের ব্লাড ক্যান্সারে আক্রান্ত হন। ২০১৬ সালে তিনি অত্যন্ত অসুস্থ হয়ে পড়েন এবং তার বাঁচার আশা ক্ষীণ হয়ে পড়ে। সেই সময় চিকিৎসকরা তার বোন ম্যারো ট্রান্সপ্লান্টের সিদ্ধান্ত নেন। গত মঙ্গলবার সাংবাদিক সম্মেলনে ঘটনাটি প্রকাশ্যে আসে।



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)