নানা পদের খাবারের লোভনীয় সম্ভার, উদরপূর্তির ডাক দিচ্ছে 'আহারে বাংলা'

Food Festival: ৬ দিন ধরে চলবে এই উৎসব, প্রায় ১৫২ টি খাবারের স্টল ও ৩২ টি মিষ্টির স্টল রয়েছে এই খাদ্য উৎসবে

নানা পদের খাবারের লোভনীয় সম্ভার, উদরপূর্তির ডাক দিচ্ছে 'আহারে বাংলা'

Ahare Bangla: রাজ্য সরকার আয়োজিত খাদ্য উৎসবে রয়েছে জিভে জল আনা নানা খাবার

কলকাতা:

আহা! কথায় বলে উদর পূর্তিতেই মনে ফূর্তি আসে। আর তাই খাদ্য রসিক বাঙালি তথা রাজ্যের মানুষের মনে ফূর্তি আনতে একেবারে ঝালে-ঝোলে-অম্বলে 'আহারে বাংলা'-র আয়োজন করেছে রাজ্য সরকার (West Bengal government)। নানা ঐতিহ্যপূর্ণ রান্না, যার নাম শুনলেই আপনার জিভে জল আসতে বাধ্য তেমন নানা খাবার নিয়েই প্রতিবছরের মতো এবছরও পশ্চিমবঙ্গ সরকার আয়োজিত বার্ষিক খাদ্য উৎসব 'আহারে বাংলা' সাড়া ফেলল সবার মধ্যে। একেবারে গতানুগতিক বাঙালি খাবার থেকে শুরু করে মহাদেশের বিভিন্ন ধরণের খাবার রয়েছে এই খাদ্য উৎসবে (food festival), জানিয়েছেন এই খাদ্য উৎসবের সঙ্গে জড়িত সরকারি আধিকারিকরা। মঙ্গলবারই উদ্বোধন হয়েছে এই খাদ্য উৎসবের (Ahare Bangla) যা চলবে ৬ দিন। জানা গেছে,  প্রায় ১৫২ টি খাবারের স্টল রয়েছে এই উৎসবে। সরকারি আধিকারিকরা জানিয়েছেন, প্রায় ৪৬ টি বিখ্যাত হোটেল এবং রেস্তোঁরা রাজ্য সরকার আয়োজিত এই দুর্দান্ত লোভনীয় উৎসবে অংশ নিচ্ছে। ঝাল-ঝোল-অম্বলের পর আপনার মিষ্টি মুখ করার ব্য়বস্থাও থাকছে 'আহারে বাংলা'-য়।এই খাদ্য উৎসবে থাকছে ৩২ টি মিষ্টির স্টলও যেখান থেকে মনলোভা নানা মিষ্টি আপনি ইচ্ছে হলেই কিনে খেতে পারবেন।

ট্রেনে খাবার খেতে এবার গুণতে হবে অতিরিক্ত টাকা! কোন ট্রেনে কত বাড়ল খাবারের দাম?

এই রাজ্য তো বটেই ও গোটাদেশের নানা খাবারের স্বাদ গ্রহণ করতে হলে আপনাকে একবার যেতেই হবে  'আহারে বাংলা'-য়।  ''ব্ল্যাক চিকেন'' ''হায়দরাবাদি বিরিয়ানি'' থেকে ''ক্ষিরপাই'', "শক্তিগড়ের ল্যাংচা" এবং "কৃষ্ণনগরের সরপুরিয়া"-এর মতো মজাদার মিষ্টিও পাওয়া যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন। সল্টলেক সেন্ট্রাল পার্কে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। রাজ্য সরকারের প্রাণী সম্পদ উন্নয়ন বিভাগের আধিকারিক জানিয়েছেন, ২৪ নভেম্বর পর্যন্ত এই উৎসব চলবে।  'আহারে বাংলা' আসলে বাঙালির প্রিয় অথচ হারিয়ে যাওয়া কিছু খাবারেরও সন্ধান দেবে।

অনিদ্রায় ভুগছেন? খেয়ে দেখতে পারেন এই ৫ ঘুমপাড়ানিয়া খাবার

ওই খাদ্য উৎসবে রাজ্যের মানুষকে 'তুলাইপাঞ্জি চাল' (বিভিন্ন জাতের ধান) এবং 'ঢেঁকি ছাটা চাল' (দেশীয়ভাবে প্রক্রিয়াজাত করা চাল) -এর মতো বিভিন্ন চাল সম্পর্কেও জানতে সহায়তা করবে, জানিয়েছেন কৃষি বিপণন বিভাগের এক আধিকারিক। খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ, কৃষি বিপণন, মৎস্য, শিল্প, পঞ্চায়েত ও পল্লী উন্নয়ন প্রভৃতি রাজ্য সরকারের বিভিন্ন বিভাগও খাদ্য উৎসবে যোগ দিয়েছে। তাছাড়া ওই খাদ্য উৎসবে স্টল দিয়েছে বিভিন্ন স্বনির্ভর গোষ্ঠীও। তাই যদি খাদ্যরসিক হন, তবে আর বাড়ি বসে না থেকে বেরিয়ে পড়ুন, সটান চলে যান রাজ্য সরকারের উদ্যোগে আয়োজিত খাদ্য উৎসব 'আহারে বাংলা'-য়।



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)
More News