ধৃত আইএস জঙ্গির বাড়ি থেকে আইইডি ও আত্মঘাতী কোট উদ্ধার দিল্লি পুলিশের

তার বিরুদ্ধে ইউএপিএ ধারায় মামলা দায়ের হয়েছে। পুলিশ সূত্রে খবর, ধৃতের বাড়ি থেকে দুটি প্রেসার কুকার আইডি-সহ ১৫ কেজির বিস্ফোরক

ধৃতের বাড়ি থেকে উদ্ধার হওয়া সামগ্রি।

নয়াদিল্লি:

বিস্ফোরক ডিভাইজ, সুইসাইড কোটের মতো নাশকতার একাধিক সামগ্রি উদ্ধার করেছে দিল্লি পুলিশ। এই সামগ্রিগুলো উদ্ধার হয়েছে আইএস জঙ্গি সন্দেহে ধৃত আবু ইউসুফের বাড়ি থেকে। উত্তরপ্রদেশের বলরামপুরের তার বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে এই ডিভাইজ আর কোট উদ্ধার করেছে দিল্লি পুলিশ। শুক্রবারই তাকে গ্রেফতারের পর দেশজুড়ে বড়সড় নাশকতার ছক বানচাল করেছে পুলিশ। সেই বাড়ি থেকে পাওয়া গিয়েছে আইএসের পতাকা ও পুস্তিকা। শুক্রবার দিল্লির ধৌলাকুঁয়া এলাকায় একপ্রস্থ গুলির সংঘর্ষ হয়েছে পুলিশ ও দুই আই এস জঙ্গির। ধৃতকে রবিবার আদালতে তোলা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে ইউএপিএ ধারায় মামলা দায়ের হয়েছে। পুলিশ সূত্রে খবর, ধৃতের বাড়ি থেকে দুটি প্রেসার কুকার আইডি-সহ ১৫ কেজির বিস্ফোরক। একটা বন্দুক বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।
এই গ্রেপ্তারির পরেই দিল্লি পুলিশের বিশেষ দল বলরামপুর গিয়ে এই তল্লাশি অভিযান চালিয়েছে। স্থানীয়দের পুলিশি নিরাপত্তা দিয়ে পরিবারের সদস্যদের জিজ্ঞাসাবাদের পাশাপাশি অভিযান চালায় দিল্লি পুলিশ।

পুলিশ কর্তাদের মতে, ওই সন্দেহভাজন রাজধানী দিল্লির বেশ কয়েকটি জায়গা ঘুরে রেইকি করছিলো এবং একটি জঙ্গিহানার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ছিলো। বিষয়টি নিয়ে আরও বিস্তারিত তদন্ত করা হচ্ছে বলেও জানিয়েছেন তাঁরা। কিছুদিন আগেই জঙ্গি সংগঠন আইএসআইএসের সঙ্গে যোগাসাজশ থাকার অভিযোগে বেঙ্গালুরু থেকে একজন চিকিৎসককে গ্রেফতার করা হয়। তার কয়েকদিন পরেই এই ব্য়ক্তিকে গ্রেফতার করা হলো।

এমএস রামাইয়া মেডিকেল কলেজের চক্ষু বিশেষজ্ঞ হিসাবে কাজ করা ২৮ বছর বয়সী রহমানকে সোমবার গ্রেফতার করে জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা এনআইএ। চলতি বছরের মার্চ মাসে দিল্লি থেকে গ্রেফতার করা এক দম্পতির কাছ থেকে পাওয়া খবর ও সূত্র অনুযায়ী অভিযান চালিয়ে তাঁকে গ্রেফতার করা হয়। এই দম্পতির সঙ্গে দিল্লির তিহার জেলে বন্দি এক ব্যক্তি সহ আইসিস জঙ্গিগোষ্ঠী এবং অন্যান্য সন্ত্রাসবাদী সংগঠনের সঙ্গেও যোগাযোগ ছিল বলে অভিযোগ ওঠে।
 

(ANI, PTI থেকে সংগৃহীত)

Newsbeep