"আমাদের সেনাবাহিনী দেশকে রক্ষা করতে চেষ্টার কসুর করবে না": প্রধানমন্ত্রী

Ladakh: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেন, "ভারত মাতার দিকে যারা নজর দিয়েছিল তাদের শিক্ষা দিয়ে তবেই আমাদের ২০ জন বীর জওয়ান লাদাখে শহিদ হয়েছিলেন"

PM Modi: যাঁরা প্রিয়জন হারিয়েছেন তাঁদের পাশে গোটা দেশ দাঁড়িয়েছে

হাইলাইটস

  • ভারতীয় সীমান্ত পেরিয়ে কেউ এদেশে ঢুকতে পারেনি, বললেন মোদি
  • প্রধানমন্ত্রী বলেন, চিনাদের শিক্ষা দিয়ে তবেই ভারতীয় দওয়ানরা শহিদ হয়েছেন
  • শুক্রবার সর্বদলীয় বৈঠকে ভারতের অবস্থান ফের স্পষ্ট করেন নরেন্দ্র মোদি
নয়া দিল্লি:

সোমবার লাদাখ (Ladakh) সীমান্তে চিনা (China) সেনার হাতে প্রাণ হারিয়েছেন ২০ জন ভারতীয় সেনা। তারপর থেকেই দুই দেশের মধ্যে পরিস্থিতি আরও ঘোরালো হয়ে উঠেছে। এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতেই শুক্রবার এক সর্বদল বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সেই বৈঠকে বিরোধী দলগুলোর সামনে প্রধানমন্ত্রী (PM Narendra Modi) বলেন,"ভারতীয় সীমান্তের ভিতরে কেউ ঢুকতে পারেনি, কোনও পোস্টও দখল করতে পারেনি তারা"। তবে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা বা এলএসি-তে চিন যেভাবে আচরণ করেছে তাতে গোটা দেশ যে আহত ও ক্ষুব্ধ, একথাও উল্লেখ করতে ভোলেননি তিনি। যে ২০ জন ভারতীয় সেনা নিহত হয়েছেন তাঁদের স্মরণ করে প্রধানমন্ত্রী মোদি বলেন, "ভারত মাতার দিকে যারা নজর দিয়েছিল তাদের শিক্ষা দিয়ে তবেই আমাদের ২০ জন বীর জওয়ান লাদাখে শহিদ হয়েছিলেন, তার আগে নয়"। সর্বদলীয় বৈঠকে অবশ্য সব বিরোধী দলের নেতাদেরই চিনা আগ্রাসনের প্রতিক্রিয়ায় সরকারের সঙ্গে একমত হন।

"লাদাখ সংঘাত নিয়ে আমরা এখনও অন্ধকারে!" সর্বদলীয় বৈঠকের পর বললেন সনিয়া গান্ধি

প্রধানমন্ত্রী মোদি বলেন, "আমি আপনাদের আশ্বস্ত করতে চাই এই বলে যে, আমাদের সেনা বাহিনী আমাদের দেশকে রক্ষা করতে চেষ্টার কসুর করবে না। এখন আমাদের কাছে এতটাই শক্তি আছে যে কেউ আমাদের এলাকার এক ইঞ্চিও দখল করতে পারবে না"।

চিনা প্রেসিডেন্ট "কিম জং উনের" কুশপুতুল পুড়িয়ে বিতর্কে আসানসোলের বিজেপি নেতা

"এখন আমরা আমাদের সশস্ত্র বাহিনীকে যেকোনও রকম পদক্ষেপ নেওয়ার অনুমতি দিয়েছি, কূটনৈতিকভাবেও আমরা চিনকে নিজেদের অবস্থান পরিষ্কার করে বুঝিয়ে দিয়েছি। নিজেদের সার্বভৌমত্ব রক্ষা করে তবেই ভারত শান্তি ও বন্ধুত্ব চায়", স্পষ্ট করে জানান প্রধানমন্ত্রী।

সোমবার ভারত ও চিনের সেনাদের মধ্যে সংঘর্ষের জেরে ২০ জন ভারতীয় সেনা আত্মবলিদান দিয়েছেন। ওদিকে সংবাদসংস্থা এএনআই জানায় যে, ক্ষতি এড়াতে পারেনি চিনও। ওই সংঘর্ষে সেদেশে হতাহত কমপক্ষে ৪৩ জন জওয়ান। চিনা সেনারা "পূর্ব পরিকল্পিতভাবেই পদক্ষেপ" নিয়েই সোমবার গালওয়ান উপত্যকায় ওই সংঘর্ষের পরিস্থিতি তৈরি করে যার ফলে ২০ জন ভারতীয় সেনা মারা যায়, বুধবার কেন্দ্রীয় বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর চিনের বিদেশমন্ত্রী ওয়াং ইয়িকে ফোন মারফত একথা বলেন।