"মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ভোটব্যাংক হারানোর ভয়েই রেগে যাচ্ছেন": AIMIM Bengal

West Bengal: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের "সংখ্যালঘু চরমপন্থা" নিয়ে মন্তব্যের জন্য এবার চরম নিন্দা করলেন এআইএমআইএম রাজ্য সভাপতি জামিরুল হাসান

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর ভোট ব্যাংক হারাতে ভয় পাচ্ছেন বলে দাবি করল AIMIM Bengal (ফাইলচিত্র)

কলকাতা:

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) "সংখ্যালঘু চরমপন্থা" নিয়ে মন্তব্যের জন্য এবার চরম নিন্দা করলেন এআইএমআইএম রাজ্য সভাপতি (AIMIM Bengal) জামিরুল হাসান। তিনি দাবি করেছেন যে পশ্চিমবঙ্গে (West Bengal) এআইএমআইএম নিজেদের জমি তৈরি করছে এই বিষয়টি বুঝতে পেরেই ক্ষেপে যাচ্ছেন তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী। এই রাজ্যে মজবুত হয়ে উঠছে এআইএমআইএম, যার জন্যেই মেজাজ হারাচ্ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, "কারণ তাঁর রাজনীতি সংখ্যালঘু ভোট ব্যাংককে ঘিরেই আবর্তিত হয়", বলেন জামিরুল হাসান। রাজ্যে ক্ষমতাসীন তৃণমূল সরকার ভোট ব্যাংকের রাজনীতি ছাড়া মুসলিম সম্প্রদায়ের জন্যে আদৌ ভাল কিছু করছে না বলে অভিযোগ করে তিনি বলেন যে অল ইন্ডিয়া মজলিস-ই-ইত্তেহাদ-উল-মুসলিমীন বা এআইএমআইএম পশ্চিমবঙ্গে ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনেও লড়বে।

তিনি সংবাদসংস্থা প্রেস ট্রাস্ট অফ ইন্ডিয়াকে বলেছেন, "আমরা গত লোকসভা নির্বাচনে লড়ার জন্যেও প্রস্তুত ছিলাম তবে আমাদের দলের সভাপতি আসাদুদ্দিন ওয়াইসি সংখ্যালঘু ভোট বিভক্ত হতে পারে এবং তৃণমূল প্রার্থীরা সংখ্যালঘু অধ্যুষিত অঞ্চলগুলিতে হেরে যেতে পারেন বলেই এ রাজ্য থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে বারণ করেছিলেন।"

“সংখ্যালঘু বিচ্ছিন্নতাবাদী” মন্তব্য নিয়ে বাকযুদ্ধ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও আসাউদ্দিন ওয়েসির

হাসান বলেন যে বাংলায় বিশেষত সীমান্তবর্তী জেলাগুলিতে এইআইএমআইএমের জনপ্রিয়তা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে বলেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর মেজাজ হারাচ্ছেন।

সোমবার একটি অনুষ্ঠানে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “হিন্দুদের মধ্যে যেমন বিচ্ছিন্নতাবাদ রয়েছে, তেমনই সংখ্যালঘুদের মধ্যেও বিচ্ছিন্নতাবাদ বাড়ছে। একটি রাজনৈতিক দল রয়েছে, এবং তারা বিজেপির থেকে টাকা নিয়েছে, তারা হায়দরাবাদের দল, পশ্চিমবঙ্গের নয়”। বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী জেলা কোচবিহারের একটি সভায় গিয়ে এমন বলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মধ্যে ফাটল ধরানোর চেষ্টা সফল হবে না, বললেন মুখ্যমন্ত্রী

জবাবে, হায়দরাবাদের সাংসদ তথা এআইএমআইএম নেতা আসাউদ্দিন ওয়াইসি বলেন, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কথা অনুযায়ী, যদি আমদের কাজ বিচ্ছিন্নতাবাদ হয়, তাহলে আমার কিছু বলার নেই। বিচ্ছিন্নতাবাদ সেটাই যে তিনি পশ্চিমবঙ্গে বিজেপিকে ঢুকতে দিয়েছেন, এদিকে যেহেতু রাজ্যে মুসলিমদের মধ্যে মানবতার সূচক কম, সেই কারণে, তিনি মুসলিমদের নীচু নজরে দেখছেন”।

তিনি ট্যুইটে আরও লেখেন, যে কোনও সংখ্যালঘুদের মধ্যে বাংলার মুসলিম সম্প্রদায় মানবতার সূচকে সবচেয়ে খারাপ অবস্থায়, এটা বলা ধর্মীয় বিচ্ছিন্নতাবাদ সৃষ্টি করা নয়। ওয়াইসি সেখানে পোস্ট করেন, “হায়দরাবাদের দল থেকে দিদি যদি শঙ্কিত থাকেন, তাহলে তার উত্তরে আমাদের বলা উচিত. বাংলার ৪২টি আসনে কীভাবে বিজেপি ১৮টিতে জিতল”।

More News