"মৃত ইঁদুর": সনিয়া গান্ধিকে নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য হরিয়ানা মুখ্যমন্ত্রীর

মুখ্যমন্ত্রী মনোহর লাল খট্টারের এই মন্তব্যের তীব্র নিন্দা করে সনিয়া গান্ধির কাছে তাঁর ক্ষমা চাওয়ার দাবি তুলল Congress

হরিয়ানার সোনিপতে বিজেপির হয়ে প্রচার চালাচ্ছিলেন Manohar Lal Khattar (ফাইল ছবি)

নয়া দিল্লি:

রবিবার হরিয়ানা বিধানসভার (Haryana Election 2019) একটি নির্বাচনী সমাবেশ চলাকালীন কংগ্রেস সভাপতি সনিয়া গান্ধির বিরুদ্ধে আপত্তিজনক মন্তব্য করার কারণে হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী মনোহরলাল খট্টরকে তীব্র সমালোচনা করেছে ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস। তাঁর এই মন্তব্যের মাধ্যমেই বিজেপির "নারী বিদ্বেষী চরিত্র" প্রকাশ পেয়েছে, বলেছে সনিয়ার দল। হরিয়ানার (Haryana) সোনিপতে বিজেপির হয়ে প্রচার চালানোর সময় ওই বিতর্কিত মন্তব্য করেন তিনি (Manohar Lal Khattar)। ওই সমাবেশ থেকে মনোহরলাল খট্টর বলেন, "লোকসভা নির্বাচনে পরাজয়ের পরে, রাহুল (রাহুল গান্ধি) দলের সভাপতি পদ থেকে ইস্তফা দেন এবং বলেন যে কংগ্রেসের নতুন প্রধান গান্ধি পরিবার থেকে আসবেন না। আমরা তাঁর সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাই। পরিবারতন্ত্রের রাজনীতি শেষ হওয়া ভাল। তারপরে, ওই দল দেশ জুড়ে (নতুন সভাপতির জন্য) অনুসন্ধান শুরু করে। তিন মাস পরে তাঁরা সেই সনিয়া গান্ধিকেই (Sonia Gandhi) কংগ্রেস প্রধান হিসাবে ঘোষণা করে। এটা অনেকটা পাহাড় খনন করে ইঁদুর পাওয়ার মতো ঘটনা, তাও আবার মরা ইঁদুর"।

হরিয়ান মুখ্যমন্ত্রী মনোহর লাল খট্টারের এই মন্তব্যের তীব্র নিন্দা করে সনিয়া গান্ধির কাছে তাঁর ক্ষমা চাওয়ার দাবি তুলেছে কংগ্রেস।

"বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী যে মন্তব্য করেছেন তা কেবল সস্তা এবং আপত্তিকরই নয়, এটি বিজেপির নারী বিদ্বেষী চরিত্রও প্রকাশ করে। আমরা মুখ্যমন্ত্রী এমএল খাট্টারের এই মন্তব্যের তীব্র নিন্দা জানাই এবং তাঁর কাছ থেকে তাৎক্ষণিকভাবে ক্ষমা চাওয়ার দাবি তুলছি" , হিন্দিতে টুইট করে কংগ্রেস।

'দলীয় কর্মীরাও সুন্দরী কাশ্মীরিদের বিয়ে করতে পারবেন': রসিকতা হরিয়ানা মুখ্যমন্ত্রীর

গত লোকসভা নির্বাচনে কংগ্রেসের ভরাডুবির দায়ভার নিজের কাঁধে নিয়ে কংগ্রেসের সভাপতি পদ থেকে ইস্তফা দেন রাহুল গান্ধি।  তিনি তাঁর মা সনিয়া গান্ধি এবং বোন প্রিয়াঙ্কা গান্ধি ভঢরাকেও এই পদে বসানোর প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে দেন এবং জোর দিয়ে বলেন যে কংগ্রেসকে অবশ্যই গান্ধি পরিবারের বাইরে কোনও নেতার সন্ধান করতে হবে।

যদিও কয়েক মাস ধরে আলোচনার পরে, দলের শীর্ষ সিদ্ধান্ত গ্রহণকারী সংস্থা, কংগ্রেসের কার্যকরী কমিটি, সেই সনিয়া গান্ধিকেই অন্তর্বর্তীকালীন কংগ্রেস সভাপতির দায়িত্ব দেয়।

Haryana Assembly Election 2019: হরিয়ানা বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি প্রার্থী ববিতা ফোগত, যোগেশ্বর দত্ত

এর আগে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সহ বিজেপি নেতৃত্ব গত কয়েক দশকগুলিতে নেহেরু-গান্ধি পরিবারের সদস্যদেরই দলের সভাপতি করার প্রথাকে সমালোচনা করে পরিবারতন্ত্রের রাজনীতি করার অভিযোগ করেন। 

২০১৪ সালে হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী হওয়া মনোহরলাল খট্টর নিজের বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য কুখ্যাত। অগাস্টে জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদাকে অবলুপ্ত করে দেওয়ার পরে কাশ্মীরি মহিলাদের নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করেন এবং ব্যাপক সমালোচিত হন।

আগামী ২১ অক্টোবর হরিয়ানায় বিধানসভা নির্বাচন এবং তার তিন দিন পরে সেখানে ভোট গণনা হবে। এই নির্বাচন উপলক্ষেই সে রাজ্যে সরগরম রাজনীতি।

দেখুন ভিডিও:

More News