This Article is From May 08, 2020

মালগাড়ির চাকায় পিষ্ট হয়ে চিরঘুমে ১৫ জন পরিযায়ী শ্রমিক

Maharashtra: জানা গেছে, রেললাইন ধরে হাঁটতে হাঁটতে ক্লান্ত হয়ে লাইনের উপরেই ঘুমিয়ে পড়েছিলেন তাঁরা, সেখানেই শুক্রবার ভোর ৫.১৫ নাগাদ মালগাড়ির চাকার তলায় পিষ্ট হন

মালগাড়ির চাকায় পিষ্ট হয়ে চিরঘুমে ১৫ জন পরিযায়ী শ্রমিক

Workers Run Over By The Train: ভারতীয় রেল সূত্রে খবর, ওই শ্রমিকরা দীর্ঘদিন আটকে থাকার পর রেল লাইন ধরে হেঁটে বাড়ির উদ্দেশে রওনা দিয়েছিলেন

হাইলাইটস

  • মোট ২০ জন শ্রমিকের মধ্যে ১৫ জন মারা গেছেন মালগাড়ির ধাক্কায়
  • ৪ জন মানসিক ধাক্কায় বিপর্যস্ত, ১ জন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন
  • মৃতদের পরিবার পিছু ৫ লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করেছে মধ্যপ্রদেশ সরকার
মুম্বই:

শুক্রবার সকালে মহারাষ্ট্রের (Maharashtra) আওরঙ্গাবাদ (Aurangabad) জেলায় মালগাড়ির তলায় চাপা পড়ে মৃত্যু হল কমপক্ষে ১৫ জন পরিযায়ী শ্রমিকের। ভারতীয় রেল সূত্রে খবর, ওই শ্রমিকরা দীর্ঘদিন আটকে থাকার পর রেল লাইন ধরে হেঁটে বাড়ির উদ্দেশে রওনা দিয়েছিলেন। কিন্তু মধ্যপ্রদেশের ওই শ্রমিকদের (Migrant Labour) আর বাড়ি ফেরা হলো না।  সংবাদসংস্থা পিটিআই  জানিয়েছে,  ওই যাত্রীরা রেললাইন ধরে হাঁটতে হাঁটতে ক্লান্ত হয়ে যাওয়ায় করমাদের কাছে লাইনের উপরেই ঘুমিয়ে পড়েছিলেন। সেই সময়ই ঘটে ওই মর্মান্তিক ঘটনা। ২০ জনের শ্রমিক দলের মধ্যে যে ৫ জন বেঁচে গেছেন তাঁদের মধ্যে ৪ জনকে দুর্ঘটনার জেরে হওয়া ভয়ঙ্কর মানসিক ধাক্কা কাটিয়ে ওঠার জন্যে প্রয়োজনীয় পরামর্শ দিচ্ছেন পুলিশের এক ঊর্ধ্বতন কর্তা মোক্ষদা পাতিল। পঞ্চম জনকে গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে যে মধ্যপ্রদেশের দিকে রওনা দেওয়া ওই শ্রমিকরা সম্ভবত ধরে নিয়েছিলেন যে করোনা ভাইরাসের (Coronavirus) সংক্রমণকে আটকাতে যে লকডাউন জারি আছে তার জেরে কোনও ট্রেন চলাচল করছে না। সেই কথা ভেবেই দীর্ঘ দূরত্ব অতিক্রম করতে করতে  ক্লান্ত হয়ে তাঁরা রেললাইনের উপরেই ঘুমিয়ে পড়েছিলেন।

"মহারাষ্ট্রে মালগাড়ির চাকার তলায় ১৫ শ্রমিকের মৃত্যুতে মর্মাহত", টুইট প্রধানমন্ত্রীর

যদিও বেশিরভাগ রাজ্যই নিজেদের রাজ্যের শ্রমিকদের বাড়ি ফেরাতে কেন্দ্রের সহযোগিতায় "শ্রমিক ট্রেন" চালাচ্ছে, তবে অনেক রাজ্যে এ ব্যাপারে হাতও তুলে নিয়েছে। শ্রমিকদের ফেরাতে গ্যাঁটের কড়ি খরচ করতে চায় না তাঁরা। রেলের তরফ এই দুর্ঘটনার কথা স্বীকার করে নিয়ে বলা হয়েছে যে, মালগাড়ির চালক একদল মানুষকে রেললাইনের উপর শোয়া অবস্থায় দেখতে পেয়ে ট্রেন থামানোর চেষ্টা করলেও শেষপর্যন্ত বিফল হয় তাঁর প্রচেষ্টা।

মহারাষ্ট্রের প্রাক্তন স্পিকার হরিভাউ বাগদে, যিনি ফুলামব্রির বিধায়কও বটে তিনি দুর্ঘটনাস্থলটি পরিদর্শনে যান।

এদিকে মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান ঘটনায় মৃত শ্রমিকদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান এবং দুর্ঘটনায় মারা যাওয়া শ্রমিকদের পরিবারের জন্য সাহায্য চেয়ে রেলমন্ত্রী পীযূষ গয়ালের সঙ্গে কথা বলেন। এছাড়া রাজ্যের তরফ থেকে শিবরাজ সিং চৌহান মৃতদের পরিবারপিছু পাঁচ লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেওয়ারও ঘোষণা করেন।

"কোনও পরিযায়ী শ্রমিক পায়ে হেঁটে যেন না ফেরেন": নির্দেশ যোগী আদিত্যনাথের

আহত পরিযায়ী শ্রমিকরা যাতে যথাযথ চিকিৎসা পরিষেবা পায় তার জন্যে মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরের সঙ্গেও যোগাযোগ করেন মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী।

রেল মন্ত্রক টুইটে জানিয়েছে, "শুক্রবার ভোরে ট্র্যাকে কিছু শ্রমিক দেখে মালগাড়ির লোকো পাইলট ট্রেন থামানোর চেষ্টা করলেও শেষ পর্যন্ত তা করা যায়নি। বদলাপুর ও করমাদ স্টেশনের মাঝামাঝি জায়গায় পারভানী-মনমাদ এলাকায় ওই দুর্ঘটনাটি ঘটে। যাঁরা মারা গেছেন তাঁরা ছাড়াও আহত হয়েছেন একাধিক শ্রমিক। আহতদের উদ্ধার করে আওরঙ্গবাদ সিভিল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। ঘটনাটি কীভাবে ঘটলো তা জানতে তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।"

দক্ষিণ রেলওয়ের জনসংযোগ আধিকারিক জানিয়েছেন,"ঘটনাটি জানার সঙ্গে সঙ্গে রেল সুরক্ষা বাহিনী এবং পুলিশ দুর্ঘটনা স্থলে পৌঁছয়।"