সেদিনের সেই সাংবাদিক সম্মেলনের জন্য কোনও আক্ষেপ নেই, এনডিটিভিকে বললেন বিচারপতি চেলামেশ্বর

সুপ্রিম কোর্টের ভূমিকা নিয়ে যে চার বিচারপতি সাংবাদিক সম্মেলন করে প্রশ্ন তুলেছিলেন, তিনি তাঁদের মধ্যে অন্যতম।

সেদিনের সেই সাংবাদিক সম্মেলনের জন্য কোনও আক্ষেপ নেই, এনডিটিভিকে বললেন বিচারপতি চেলামেশ্বর

এনডিটিভি-র সাথে একান্ত আলাপচারিতায় বিচারপতি চেলামেশ্বর

নিউ দিল্লি: বিচারপতি যষ্টি চেলামেশ্বর সুপ্রিম কোর্টের দ্বিতীয় প্রবীণতম বিচারপতি অবসর গ্রহণ করলেন শুক্রবার। গত জানুয়ারিতে বিভিন্ন মামলায় সুপ্রিম কোর্টের ভূমিকা নিয়ে যে চার বিচারপতি সাংবাদিক সম্মেলন করে প্রশ্ন তুলেছিলেন, তিনি তাঁদের মধ্যে অন্যতম। এই মুহুর্তে দাঁড়িয়ে সেদিনের সেই সাংবাদিক সম্মেলনের দিকে তাকালে কি অন্যরকম কিছু মনে হয়? বিচারপতি চেলামেশ্বর এনডিটিভিকে বলেন, "না। আমি কোনওভাবেই অনুতপ্ত নই"।
 

নিচে সাক্ষাৎকারটির নির্বাচিত অংশ রইল:
 


 এনডিটিভি:- সুপ্রিম কোর্টের ইতিহাসে এই প্রথমবার চারজন বর্ষীয়ান বিচারপতি প্রকাশ্যে এসে প্রধান বিচারপতিকে নিয়ে নিজেদের হতাশার কথা ব্যক্ত করলেন। ওই তথাকথিত প্রতিবাদী পদক্ষেপের নেতৃত্বে ছিলেন বিচারপতি চেলামেশ্বর। তিনিই এখন রয়েছেন আমাদের সামনে। ভারতীয় সংবিধান-ব্যবস্থা সম্বন্ধে তাঁর অভিজ্ঞতা ও অভিমত আমরা শুনব। প্রায় 21 বছর ধরে আপনি ভারতীয় আদালতে বিচারপতির পদ অলঙ্কৃত করেছেন। তার মধ্যে সুপ্রিম কোর্টে কাটিয়েছেন সাড়ে ছয় বছর। এরপর কী? আপনি কি কোনও বই লেখার কথা ভাবছেন? নাকি, এরপর কোনও সরকারি পদ অলঙ্কৃত করবেন?

বিচারপতি চেলামেশ্বর:- না। কোনও সরকারি পদ নয়। আমি বছরখানেক আগেই ঘোষণা করে দিয়েছিলাম যে, অবসরের পর আর কোনও সরকারি পদ গ্রহণ করব না। লেখালেখিটা একটা ভালো বিকল্প। সম্ভবত,  লেখালেখি করারই চেষ্টা করব আমি।

এনডিটিভি:- আমরা কি আপনার থেকে একটা বেস্টসেলার আশা করতে পারি তবে?

বিচারপতি চেলামেশ্বর:- না। আমি জানি না কোন বইকে 'বেস্ট' বলা যায়। আমার ধারণা নেই।

এনডিটিভি:- আদালতে যা ঘটেছিল সেইসব নিয়ে কিছু...? 

বিচারপতি চেলামেশ্বর:- আমি ওটা নিয়ে আপাতত ভাবছিই না। আমি তার থেকেই বেশি সিরিয়াস কিছু লিখতে চাই। ক্ষণস্থায়ী প্রাসঙ্গিকতা রয়েছে ও ক্ষণস্থায়ী উত্তেজনা দেয় এমন বিষয়ের বাইরে গিয়ে অনেক বেশি করে সিরিয়াস কাজের প্রচণ্ড প্রয়োজন।

এনডিটিভি:- কী ধরনের কাজের কথা বলছেন?

বিচারপতি চেলামেশ্বর:- সুপ্রিম কোর্টের ভূমিকার বিবর্তন এবং এই দেশের গণতন্ত্রে অজস্র খানাখন্দ থাকা সত্ত্বেও মাথা উঁচু করে টিকে থাকা, এইসব নিয়েই লিখব সম্ভবত।

এনডিটিভি:- যে সাংবাদিক সম্মেলনটি আপনারা করেছিলেন, তার কারণ কী ছিল? ঠিক কোন ঘটনার জন্য আপনারা ওটা করতে বাধ্য হয়েছিলেন?

বিচারপতি চেলামেশ্বর:- সেরকম কোনও বিশেষ ঘটনা নয়। একটা বিশেষ ঘটনা নয়। ওই সাংবাদিক সম্মেলনটি আসলে ছিল অনেক ঘটনার যোগফল।

এনডিটিভি:- আপনি তাহলে দীর্ঘদিন ধরেই এগুলো সহ্য করে আসছিলেন?

বিচারপতি চেলামেশ্বর:- হ্যাঁ। আপনি মনে করে দেখুন,  আমরা যখন সংবাদমাধ্যমের সামনে আসি, এই ব্যাপারটি নিয়ে কথা বলতে, যে চিঠিটা আপনাদের দেওয়া হয়েছিল, তা কিন্তু সাংবাদিক সম্মেলনের দিন লেখা হয়নি। লেখা হয়েছিল তার আগে। 2017 সালের নভেম্বর মাসে।  আসলে ওই সময় এমন কয়েকটা ব্যাপার ঘটছিল, যার দিকে আমরা বহুবার দৃষ্টি  আকর্ষণ করানোর চেষ্টা করেও কোনও ফল পাইনি। আমরা নিজেরাও সংশ্লিষ্ট ইস্যুগুলো নিয়ে কোনও সমাধানে পৌঁছতে পারিনি সেই সময়। যে কারণে ওই সময়টা আমাদের দাঁতে দাঁত চেপে সহ্য করতে হয়েছিল।

এনডিটিভি:-  এটা কি আদালতের সবাই মিলে নিজেদের মধ্যে বৈঠক করে সমাধান করা যেত না?

বিচারপতি চেলামেশ্বর:-  নভেম্বরে তো চিঠিটা লেখা হয়েছিল। কিন্তু, কোনও উত্তর আসেনি। আমরা কেউ বাচ্চা নই। আমরা প্রচার বা লাইমলাইট পাওয়ার জন্য ওই সাংবাদিক সম্মেলনটা করিনি। আমরা প্রত্যেকেই দায়িত্বশীল মানুষ। আমরা সাধারণ মানুষ। তারপরেও আপনারা কী করে ভাবছেন যে ব্যাপারটা মেটানোর কোনও চেষ্টাই করা হয়নি তার আগে?

এনডিটিভি:- সবরকমভাবেই চেষ্টা করা হয়েছিল?

বিচারপতি চেলামেশ্বর:- হ্যাঁ। সবরকমভাবেই যথাসম্ভব চেষ্টা করা হয়েছিল। যখন আমরা বুঝতে পারলাম যে কোনওভাবেই এই সমস্যার সমাধান আর হওয়ার নয়, তখনই নিরূপায় হয়ে ওই সাংবাদিক সম্মেলন করতে হয় আমাদের।

এনডিটিভি:- বাকি বিচারপতিদের ভূমিকা কী ছিল...

বিচারপতি চেলামেশ্বর:- এই ব্যাপারে কথা না বলাই ভালো। এখন পুরোটাই সাধারণ মানুষের কাছে চলে এসেছে। তবে হ্যাঁ, এই ব্যাপারে আমাদের চারজনেরই সমান দায়িত্বশীল ভূমিকা রয়েছে।

এনডিটিভি:- আপনি কি এখন কোনওভাবে অনুতপ্ত?

বিচারপতি চেলামেশ্বর:- না। আমি অনুতাপ করি না।

এনডিটিভি:- আপনারা যেটা করেছিলেন, তা কি ঠিক হয়েছিল?

বিচারপতি চেলামেশ্বর:- অবশ্যই। আমি মনে করি, আমি যা করেছিলাম, তা ঠিকই করেছিলাম।

এনডিটিভি:- কিন্তু স্যার, একজন সাধারণ মানুষের কাছে যদি এই বার্তা যায় যে, আমাদের বিচারপতিরা নিজেদের মধ্যে লড়াই করছে, শুধুমাত্র...

বিচারপতি চেলামেশ্বর:- কে এই সাধারণ মানুষ? আমাকে বলুন।

এনডিটিভি:- এমন তো বহু মানুষ আছেন, যাঁরা এই কথা ভেবেছেন।

বিচারপতি চেলামেশ্বর:- দেখুন, আপনি খোঁজ নিলে দেখতে পারবেন বহুসংখ্যক সাধারণ মানুষ ইন্টারনেটেও এই নিয়ে লিখেছেন। যদি আপনি ইন্টারনেট ফলো করেন, মন দিয়ে, তাহলে বুঝতে পারবেন। তাই এইসব ব্যাপার নিয়ে মাথা ঘামিয়ে লাভ নেই বিশেষ।

এনডিটিভি:- ওই ঘটনাটি ঘটে যাওয়ার পর এখন কি সুপ্রিম কোর্টে সবকিছু ঠিকঠাক চলছে?

বিচারপতি চেলামেশ্বর:- আমি  এমন কথা বলতে পারি না যে, সবকিছুই ঠিকঠাক চলছে সুপ্রিম কোর্টে। তবে, আমরা বেশ কিছু সমস্যার দিকে আঙুল তুলে দেখিয়েছিলাম। সেগুলোর সংশোধনের জন্য কিছুটা সময় তো লাগবেই...

( সংক্ষেপিত)

 
Listen to the latest songs, only on JioSaavn.com