“মানুষের রায়কে সম্মান”, দিল্লির ফলাফল নিয়ে প্রতিক্রিয়া মনোজ তিওয়ারির

Delhi election results 2020: মনোজ তিওয়ারি বলেন, “আমি আশা রাখি, মানুষের প্রত্যাশা পূরণ করবে দিল্লি সরকার”

“মানুষের রায়কে সম্মান”, দিল্লির ফলাফল নিয়ে প্রতিক্রিয়া মনোজ তিওয়ারির

Delhi election results 2020: হিন্দিতে ট্যুইটারে তিনি লেখেন, “দিল্লির ভোটারদের ধন্যবাদ

নয়াদিল্লি:

যতক্ষণ পেরেছেন দলের জয় নিয়ে আত্মবিশ্বাস দেখিয়েছেন দিল্লি বিজেপি সভাপতি মনোজ তিওয়ারি (Manoj Tiwari), অবশেষে মঙ্গলবার বিকেলে পরাজয় স্বীকার করলেন তিনি এবং দিল্লি নির্বাচনে (Delhi Election) জয়ের জন্য অরবিন্দ কেজরিওয়ালের আম আদমি পার্টিকে (Aam Aadmi Party) অভিনন্দন জানালেন দিল্লির বিজেপি সভাপতি মনোজ তিওয়ারি। হিন্দিতে ট্যুইটারে তিনি লেখেন, “দিল্লির ভোটারদের ধন্যবাদ। কঠোর পরিশ্রমের জন্য দলের সকল কর্মীবৃন্দকে ধন্যবাদ। অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে অভিনন্দন”। মনোজ তিওয়ারি আরও বলেন, “আমি আশা রাখি, মানুষের প্রত্যাশা পূরণ করবে দিল্লি সরকার”। দিল্লি বিধানসভায়  ৭০ আসনের মধ্যে ৬৩টি আসনে জিততে চলেছে আম আদমি পার্টি, সাতটি  আসনে জয় পেতে পারে বিজেপি, যদিও ২০১৫ ফলাফলের চেয়ে সংখ্যাটা বেশি।

শনিবার মনোজ তিওয়ারি ট্যুইট করেন যে, ৪৮টি আসনে জিতবে তাঁর দল, এবং দিল্লিতে সহজভাবে সরকার গড়বে, পাশাপাশি মানুষকে সেই ট্যুইট “সেভ” করে রাখারও পরামর্শ দেন তিনি।

“ষষ্ঠ ইন্দ্রিয়ের” মাধ্যমে নিজের ইতিবাচক ভাবনার পক্ষে সওয়াল করেন মনোজ তিওয়ারি। কনট প্লেসে অরবিন্দ কেজরিওয়ালের হনুমান মন্দিরে যাওয়ার পর, সেখানকার পবিত্রতার সঙ্গে “আপোস” করা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন তিনি, সেখানে যে হাতে জুতো খুলেছিলেন, সেই হাতেই পুজোর ফুল দিতে দেখা যায় কেজরিওয়ালকে।

এদিন সকালে, দিল্লি বিজেপি সভাপতি বলেন, ৫৫টির বেশি আসনে জিতলেও অবাক হবেন না তিনি।

ভোট গণনা শুরু হতেই বিজেপির পিছিয়ে থাকার খবর আসতে শুরু করে, সেই সময়, দলের কর্মী সমর্থকদের মনোবল হারাতে নিষেধ করেন এবং শেষ না হওয়া পর্যন্ত কার্যকর নয় বল জানান।

তিনি বলেন, “অনেক রাউন্ড গণনা বাকি রয়েছে। আমি আমাদের কর্মীদের বলেছি, মনোবল হারানোর কোনও প্রয়োজন নেই। আমরা ভাল জায়গায় রয়েছি। ২৭টি আসনে, আপ ও বিজেপির মধ্যে ১,০০০ ভোটের ব্যবধান রয়েছে। যা কিছু হতে পারে”।

দিল্লি বিধানসভায় সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে প্রয়োজন ৩৬টি আসন।

মনোজ তিওয়ারি পরে সাংবাদিকদের বলেন, যদি বিজেপি হারে, তাঁর ঘাড়ে দোষ চাপবে। তাঁর কথায়, “আমরা হারের পর্যালোচনা করব। আমরা আশা রাখি, ভবিষ্যতে দোষ কম চাপানো এবং বেশি কাজ হবে”।