This Article is From Jul 03, 2019

বৃষ্টির তোড়ে বাঁধ ভেঙে বন্যা মহারাষ্ট্রে, মৃত ৬ নিখোঁজ ১৮

মুম্বই থেকে ২৭৫ কিমি দূরে অবস্থিত এই গ্রামে পৌঁছেছে জাতীয় বিপর্যয় প্রতিরক্ষা বাহিনী (NDRF)। তারা তল্লাশি ও উদ্ধার অভিযান চালাচ্ছে।

এই গ্রামে পৌঁছেছে জাতীয় বিপর্যয় প্রতিরক্ষা বাহিনী (NDRF)। তারা তল্লাশি ও উদ্ধার অভিযান চালাচ্ছে।

হাইলাইটস

  • ওই বাঁধ ভেঙে যাওয়ার ফলে বন্যায় ভেসে গেল বহু গ্রাম
  • ছ’জনের মৃত্যু হয়েছে, নিখোঁজ ১৮ জন
  • জাতীয় বিপর্যয় প্রতিরক্ষা বাহিনী তল্লাশি ও উদ্ধারকাজ চালাচ্ছে
মুম্বই:

প্রবল বৃষ্টিতে (Heavy rain) বাঁধ ভেঙে গেল মহারাষ্ট্রের (Maharashtra) রত্নগিরি (Ratnagiri) জেলায়। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ন'টা নাগাদ ওই বাঁধ ভেঙে যাওয়ার ফলে বন্যায় ভেসে গেল নিকটবর্তী অ্যাকলে, রিক্তোলি, ওভালি, কালকাভনে এবং নন্দিভাসে সহ সাতটি গ্রাম। ছ'জনের মৃত্যু হয়েছে। নিখোঁজ ১৮ জন। ১২টি বাড়ি ও ২০টি গাড়ি ভেসে গিয়েছে বন্যার তোড়ে। সংবাদ সংস্থা আইএএনএস সূত্রে জানা যাচ্ছে, উনিশ বছরের পুরনো তিওয়ারে বাঁধে আগেই ফাটল দেখা গিয়েছিল। স্থানীয়দের দাবি, জেলা প্রশাসনকে বিষয়টি জানালেও বাঁধ মেরামতের কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। মুম্বই থেকে ২৭৫ কিমি দূরে অবস্থিত এই গ্রামে পৌঁছেছে জাতীয় বিপর্যয় প্রতিরক্ষা বাহিনী (NDRF)। তারা তল্লাশি ও উদ্ধার অভিযান চালাচ্ছে। তাদের সঙ্গে প্রশাসনিক কর্মী, পুলিশ ও স্বেচ্ছাসেবীরাও রয়েছে বলে জানা যাচ্ছে।

কলকাতায় নামার সময় পিছলে ডান দিকে ঘুরে গেল স্পাইসজেটের বিমান

ad557138

মুম্বই সহ মহারাষ্ট্র জুড়ে প্রবল বৃষ্টির দাপট ক'দিন ধরেই অব্যাহত। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়নবিশ জানিয়েছেন, গতকাল থেকে বারো ঘণ্টার মধ্যে অতিরিক্ত ৩০০ থেকে ৪০০ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে মুম্বইতে। এছাড়াও থানে, পালঘর, রায়গড় জেলার পাশাপাশি নাসিক, রত্নগিরি, সিন্ধুবাগ ও রাজ্যের পশ্চিম প্রান্তেও প্রবল বর্ষণ শুরু হয়েছে।

রেকর্ড বৃষ্টিতে বিপর্যস্ত মুম্বইয়ের মালাড আন্ডারপাসে ডুবে গেল গাড়ি,মৃত ২

মুখ্যমন্ত্রী সাংবাদিকদের জানান, ‘‘গত ১২ ঘণ্টায় এই শহরে অপ্রত্যাশিত ৩০০ থেকে ৪০০ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। গত এক দশকে সর্বাধিক। বর্তমান নিকাশি ব্যবস্থায় পরিস্থিতির মোকাবিলা করা সমস্যার হয়ে যাচ্ছে প্রবল বৃষ্টির কারণে। বিকেল থেকে বৃষ্টি আরও বেড়েছে।''

মঙ্গলবার সকালের প্রবল বৃষ্টিতে ২০-রও বেশি মানুষ নিহত হয়েছেন। মুম্বই পূর্ব মালাডে একটি পাঁচিল ভেঙে পড়ে ওই দুর্ঘটনা ঘটে। ধ্বংসস্তূপের মধ্যে আটক দেহ উদ্ধার করা হয়। নিহতদের মধ্যে রয়েছে ১২ বছরের এক বালিকার দেহও। মৃত্যুর ১৪ ঘণ্টা পরে তার দেহটি উদ্ধার করা সম্ভব হল। থানের কল্যাণ অঞ্চলেও একটি দুর্ঘটনাতেও কয়েক জনের মৃত্যু হয়েছে।

মুখ্যমন্ত্রী নিহতদের পরিবারকে ৫ লক্ষ টাকা জরিমানা দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন।

সোমবার রাতে মুম্বই বিমানবন্দরে অবতরণের সময় পিছলে যায় স্পাইসজেটের একটি বিমান। রানওয়েতে ধাক্কা মারে সেটি। ১৬৭ জন যাত্রী ছিলেন বিমানটিতে। তবে কেউ আহত হননি।

এদিকে উত্তর মুম্বইতে একটি এসইউভি গাড়ি দুর্ঘটনায় দু'জন মারা যা‌ন।

রেললাইনে জল জমার কারণে বহু দূরপাল্লার ট্রেন চলাচল বাতিল হয়েছে। লোকাল ট্রেন চলাচলও ব্যাহত হয়েছে।

আবহাওয়া দফতর ৪ ও ৫ জুলাই প্রবল বর্ষণের আশঙ্কার কথা জানিয়েছে থানে ও পালঘরে। ৩ থেকে ৫ জুলাইয়ের মধ্যে বন্যাবিপর্যস্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে মুম্বইয়ের।