৩১ জুলাই পর্যন্ত বন্ধ রাজ্যের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান: পার্থ চট্টোপাধ্যায়

জুলাইয়ের প্রথম দুই সপ্তহে এই পরীক্ষাগুলো আয়োজনের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল শিক্ষা দফতর

৩১ জুলাই পর্যন্ত বন্ধ রাজ্যের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান: পার্থ চট্টোপাধ্যায়

নিট আর জেইই'র মতো প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষা স্থগিত করা হতে পারে। (প্রতীকী ছবি)

কলকাতা:

৩১ জুলাই অবধি বন্ধ থাকবে রাজ্যের সব স্কুল-কলেজ আর বিশ্ববিদ্যালয় (School-Colleges in Bengal)। মঙ্গলবার জানালেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় (Education Minister) সিদ্ধান্তের জেরে অনিশ্চিত কলেজ সেমিস্টার ও উচ্চমাধ্যমিকের বাকি থাকা পরীক্ষা। জুলাইয়ের প্রথম দুই সপ্তহে এই পরীক্ষাগুলো আয়োজনের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল শিক্ষা দফতর। এদিকে, বৃহস্পতিবার বাকি থাকা দ্বাদশ শ্রেণির বোর্ড পরীক্ষার বিষয়ে সুপ্রিম কোর্টকে নিজের সিদ্ধান্ত জানাবে সিবিএসই।কেন্দ্রীয় মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের (সিবিএসই) পক্ষের সলিসিটার জেনারেল সুপ্রিম কোর্টকে জানিয়েছেন যে বৃহস্পতিবারের মধ্যেই কেন্দ্রীয় সরকার দ্বাদশ শ্রেণির বাকি থাকা পরীক্ষা আয়োজনের নিজের সিদ্ধান্ত জানাবে।“সিদ্ধান্ত গ্রহণের প্রক্রিয়া শেষ পর্যায়ে রয়েছে এবং বৃহস্পতিবারের মধ্যে এটি চূড়ান্ত করা হবে,” জানান কেন্দ্র এবং সিবিএসইয়ের পক্ষের সলিসিটার জেনারেল। এই বিষয়ের শুনানি বৃহস্পতিবার বেলা ২ টো পর্যন্ত পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে।

সীমান্ত-সহ দেশ সঙ্কটাপন্ন! দায়ী এনডিএ সরকারের অদক্ষতা: সনিয়া গান্ধি

বোর্ড গত সপ্তাহে আদালতকে জানিয়েছিল যে ‘খুব শীঘ্রই' বাকি থাকা পরীক্ষার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। ১ থেকে ১৫ জুলাইয়ের মধ্যে বাকি থাকা দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষা নেওয়ার জন্য বিজ্ঞপ্তি বাতিল করার দাবি তুলে একদল অভিভাবক আবেদন করেছিলেন। তাঁদের আবেদনে দাবি করা হয় অভ্যন্তরীণ মূল্যায়নের ভিত্তিতে বা ব্যবহারিক পরীক্ষার জন্য বরাদ্দ নম্বরের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখেই পড়ুয়াদের পরীক্ষায় নম্বর দেওয়া হোক।

ক্রমাগত বেড়ে চলা সংক্রমণ হারে উদ্বিগ্ন মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রক। ফলে, ঝুলে থাকা বোর্ড পরীক্ষা আর ইঞ্জিনিয়ার এবং মেডিক্যাল পরীক্ষা আয়োজন ফের স্থগিত রাখার সম্ভাবনা। জুলাই মাসের ১-১৫-এর মধ্যে এই পরীক্ষা আয়োজনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল। মন্ত্রকের একটি সূত্র সোমবার এই খবর দিয়েছে।

ইতিহাসে প্রথম! কোনও ভক্ত সমাগম ছাড়াই রথে চেপে যাত্রা শুরু জগন্নাথ-বলরাম-সুভদ্রার

সেই সূত্রের তরফে খবর, কিছু পরীক্ষা বাতিল হতে পারে। আর নিট আর জেইই'র মতো প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষা স্থগিত করা হতে পারে। "পড়ুয়াদের নিরাপত্তা প্রাধান্য। বর্তমান পরিস্থিতি পরীক্ষা আয়োজনের সহায়ক নয়।" এমনটাই বলেছে মন্ত্রকের ওই সূত্র। এবিষয়ে সুপ্রিম কোর্টে মঙ্গলবার শুনানি হবে। শীর্ষ আদালতে অভিভাবকদের একাংশ ১২ ক্লাসের বোর্ড পরীক্ষা বাতিল সংক্রান্ত নোটিশ খারিজের আবেদন জানান। সেই মামলার শুনানি মঙ্গলবার।

এদিকে, পরীক্ষা না হলে, তখন কী? এই প্রশ্নের জবাব খুঁজতে বিকল্প মূল্যায়ন পদ্ধতি খোঁজ শুরু করছে বোর্ড। যদিও নিট আর জয়েন্ট বাতিল কথা যাবে না। সেটা স্থগিত করতে হবে। এমনটাই ওই সূত্রের দাবি।