বর্ধমানে খুন বিজেপি কর্মী, অভিযুক্ত তৃণমূল

বর্ধমানের কেতুগ্রাম বিজেপি কর্মীকে খুন করার অভিযোগ উঠল তৃণমূলের বিরুদ্ধে। অভিযোগ, বিজেপির পতাকা তোলার জন্য ৫০ বছরের সুশীল মণ্ডলকে হত্যা করা হয়েছে।

 Share
EMAIL
PRINT
COMMENTS
বর্ধমানে খুন বিজেপি কর্মী, অভিযুক্ত তৃণমূল

পুলিশ জানিয়েছে, যথাযথ তদন্ত না করে তাদের পক্ষে এই নিয়ে কোনও মন্তব্য করা উচিত হবে না


কলকাতা: 

বর্ধমানের কেতুগ্রাম বিজেপি (BJP) কর্মীকে খুন করার অভিযোগ উঠল তৃণমূলের (TMC) বিরুদ্ধে। সংবাদ সংস্থা আইএএনএস সূত্রানুসারে জানিয়েছে, বিজেপির পতাকা তোলার জন্য ৫০ বছরের সুশীল মণ্ডলকে হত্যা করা হয়েছে। আজ সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেবেন নরেন্দ্র মোদী। সেই উপলক্ষেই বিজেপির দলীয় পতাকা উত্তোলন করতে গেলে হত্যা করা হয় সুশীলবাবুকে। কেতুগ্রাম পুলিশ স্টেশনের এক আধিকারিক আইএএনএসকে বলেন, ‘‘ওঁকে হত্যা করা হয়েছে। আমরা অপরাধীকে সনাক্ত করতে চেষ্টা করছি।'' স্থানীয় তৃণমূল কংগ্রেস নেতারা এই খুনের সঙ্গে কোনও রকম সম্পর্ক থাকার অভিযোগকে অস্বীকার করেছেন। পুলিশ জানিয়েছে, যথাযথ তদন্ত না করে তাদের পক্ষে এই নিয়ে কোনও মন্তব্য করা উচিত হবে না। এক আধিকারিক বলেন, ‘‘একজন মারা গিয়েছেন। সন্দেহভাজনদের নাম জানা গিয়েছে। রাজনৈতিক দোষ দেওয়ার চিরচেনা খেলা শুরু হয়েছে। আমরা বিষয়টি খতিয়ে দেখছি।''

বিজেপির দাবি, লোকসভার ফলাফল প্রকাশিত হওয়ার পর থেকেই শাসক দল প্রতিহিংসামূলক আক্রমণ চালাচ্ছে বিজেপি সমর্থকদের উপরে। এর আগে তৃণমূলের উপরে অভিযোগ আনা হয়েছিল, তারা গত এক সপ্তাহে পশ্চিম বর্ধমান ও বীরভূমের তিনটি অঞ্চলে টিউবঅয়েল ভেঙে দিয়েছে ও জলের সংযোগ কেটে দিয়েছে। বিজেপি মনে করছে বর্ধমান-দুর্গাপুর লোকসভা কেন্দ্রে তাদের প্রার্থী এসএস আলুওয়ালিয়ার তৃণমূলের মমতাজ সঙ্ঘমিতাকে ২৪৩৯ ভোটে হারিয়ে দেওয়াটাই এইসব হামলার পিছনের কারণ।

বিজেপি কর্মী লালু মণ্ডল বলেন, ‘‘বীরভূম লোকসভার কনকপুর গ্রামে সমস্ত টিউবঅয়েল ভেঙে দেওয়া হয়েছে, কারণ আমরা ভালো ফল করেছি।''

তৃণমূলের পঞ্চায়েত সদস্য পঞ্চানন দাস অভশ্য জোরের সঙ্গে জানিয়েছেন, তাঁদের দলের কেউ টিউবঅয়েলের কোনও ক্ষতি করেনি। তিনি বলেন, ‘‘এগুলো মিথ্যে অভিযোগ। বিজেপি জিতেছে, আর এবার আমাদের মিথ্যে কেসে ফাঁসাতে চাইছে।'' সেই সঙ্গে তিনি জানিয়ে দেন, ভাঙা টিউবঅয়েল সব সারিয়ে দেওয়া হয়েছে।

বীরভূমের রামপুরহাট ব্লকের বিজেপি কর্মীরাও দাবি করেছেন, তৃণমূল কর্মীরা এখানে পাঁচ থেকে ছ'টি টিউবঅয়েল ভেঙেছে। তাদের প্রার্থী দুধকুমার মণ্ডল জেতার পরেই এই কাণ্ড ঘটিয়েছে তৃণমূল, এমনই দাবি তাঁদের।

তৃণমূলের বিরুদ্ধে বিজেপির বহুদি‌নের অভিযোগ তারা এ রাজ্যে তাদের কর্মীদের উপর অত্যাচার করে। বুধবার, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়ে দেন, তিনি নরেন্দ্র মোদীর শপথগ্রহণের অনুষ্ঠানে যাবেন না। তাঁর অভিযোগ, বিজেপির দাবি গত ছ'বছরে তাদের ৫৪ জন কর্মীকে মেরে ফেলেছে তৃণমূল।

‘‘এই উৎসবের মাধ্যমে গণতন্ত্রের উদযাপন হয়। কোনও রাজনৈতিক দলের অধিকার নেই রাজনৈতিক ফায়দা তুলতে তার অবমূল্যায়ন ঘটায়।'' পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীকে লেখা একটি নোটে এই কথা লিখে জানান। সেই সঙ্গে তাঁৱ দাবি, এই রাজ্যে কোনও ‘‘রাজনৈতিক খুন'' হয় না।

এবারের লোকসভা নির্বাচনে দারুণ লড়ে ৪২টির মধ্যে ১৮টিতে জয়ী হয় গেরুয়া শিবির। শাসক তৃণমূলের থেকে তারা মাত্র চারটি কম আসনে জয়ী হয়েছে। মমতার দল সেখানে ২০১৪ সালে পেয়েছিল ৩৪ আসন।



পশ্চিমবঙ্গের খবর, কলকাতার খবর , আর রাজনীতি, ব্যবসা, প্রযুক্তি, বলিউড আর ক্রিকেটের সকল বাংলা শিরোনাম পড়তে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

NDTV Beeps - your daily newsletter

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................