কিশোরীর মাথা থেঁতলে ধর্ষণ! ‘বদলা নেবই’ বললেন বিজেপি প্রার্থী প্রজ্ঞা ঠাকুর

প্রজ্ঞা ঠাকুর টুইট করেছেন, “এই রাজ্যে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ছত্রভঙ্গ। কমল নাথ ছিন্দওয়ারার মুখ্যমন্ত্রী হয়ে উঠেছেন কেবল। বেটি, আমরা প্রতিশোধ নেবই।"

কিশোরীর মাথা থেঁতলে ধর্ষণ! ‘বদলা নেবই’ বললেন বিজেপি প্রার্থী প্রজ্ঞা ঠাকুর

Bhopal rape case: এই ব্যক্তি কিশোরীকে নিকটবর্তী একটি নির্জন জায়গায় নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে

হাইলাইটস

  • পুলিশের সন্দেহ কিশোরীর কাকীমাও এই ঘটনায় জড়িত
  • কাকীমার সঙ্গেই মেয়েটি স্থানীয় মন্দিরে যায়
  • মধ্যপ্রদেশে ধর্ষণের ঘটনা উত্তরোত্তর বাড়ছে
ভোপাল:

১২ বছরের কিশোরীকে ধর্ষণ করে হত্যার ঘটনা ঘটল মধ্যপ্রদেশের রাজধানী ভোপালে!  অভিযোগ, মঙ্গলবার ওই কিশোরীকে দুইজন পুরুষ ধর্ষণ করে হত্যা করে। পুলিশের সন্দেহ, এই কিশোরীর কাকীমা মূল অভিযুক্তকে চেনেন এবং তিনিও এই অপরাধে জড়িত। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ১৬ বছর বয়সী ওই কাকীমার সঙ্গেই স্থানীয় মন্দিরে যায় ওই কিশোরী। পুলিশ জানিয়েছে, এই সময়েই মূল অভিযুক্তের খপ্পরে পড়ে সে। ওই ব্যক্তি তাঁকে নিকটবর্তী একটি নির্জন জায়গায় নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে। এখানেই শেষ না, ধর্ষণের পরে পাথর দিয়ে মাথা থেঁতলে হত্যাও করে। পুলিশ আরও জানিয়েছে, মর্মান্তিক এই ঘটনার সময় ওই কাকীমা সেখান থেকে চলে যান।

 "ছোট পোশাক পরেছে, ওদের ধর্ষণ করুন"! গুরগাঁওয়ের মলে ফতোয়া এক মহিলার, দেখুন ভিডিও

পরের দিনই মৃতার পরিবার পুলিশের কাছে ওই দুই ব্যক্তির বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করে এবং তাঁদের গ্রেফতারও করা হয়। এই ঘটনায় কিশোরীর কাকীমাকের গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

কমল নাথ নেতৃত্বাধীন কংগ্রেস সরকারকে এই ঘটনায় আক্রমণ করেছেন ভোপালের বিজেপি প্রার্থী (BJP candidate from Bhopal) প্রজ্ঞা ঠাকুর (Pragya Thakur)। তিনি টুইট করেছেন, “এই রাজ্যে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ছত্রভঙ্গ। কমল নাথ ছিন্দওয়ারার মুখ্যমন্ত্রী হয়ে উঠেছেন কেবল। বেটি, আমরা প্রতিশোধ নেবই।"

সংবাদ সংস্থা পিটিআই জানিয়েছে, মেয়ের মৃত্যুর খবর পাওয়ার পরেই গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন ওই মেয়েটির মা, তৎক্ষণাৎ চিকিত্সার প্রয়োজনে এই বিজেপি নেতা মেয়েটির মাকে নিয়ে হাসপাতালে যান। 

Newsbeep

বাবরি মসজিদ নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য, তিন দিন প্রচার করতে পারবেন না সাধ্বী

গত বছরের জুলাই মাসে সাত বছর বয়সী এক শিশুকে মান্দসৌর জেলার তার স্কুলের বাইরে অপহরণ করা হয়। অপহরণ করে তুলে নিয়ে গিয়ে দুই পুরুষ ওই শিশুটিকে নির্যাতন এবং ধর্ষণ করে, এবং তারপর পরে শিশুটির গলা কেটে হত্যাও করে। এই ঘটনার বীভৎসতায় দেশব্যাপী বিক্ষোভ দেখা যায় এবং হাজার হাজার সাধারণ মানুষ সহ রাজনৈতিক নেতারাও অপরাধীদের মৃত্যুদণ্ড দাবি করেন।

তৎকালীন রাজ্যের বিরোধী দলীয় নেতা কমল নাথ টুইট করেছিলেন, “মধ্যপ্রদেশ দেশের মধ্যে ধর্ষণের ঘটনার শীর্ষে! কবে এই ধরনের ঘটনা বন্ধ হবে? কবে আমাদের বোন-মেয়েরা নিরাপদ পরিবেশ পাবে?"

মধ্যপ্রদেশে ধর্ষণের বেশ কয়েকটি ঘটনা ঘটেছে। বস্তুত, এই রাজ্যে, ২০১৬ এবং ২০১৭ সালে. ধর্ষণের ঘটনা সবথেকে বেশি হয়েছে বলেই জানাচ্ছে সরকারি তথ্য।