কৃষিই ছিল প্রথম জীবিকা; নিজের গ্রামে ফিরে মাঠে ফের চাষ করছেন নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকী!

তাঁর বাবা নবাবউদ্দিন সিদ্দিকী নিজেও কৃষক ছিলেন। তবে সন্তানের উপযুক্ত শিক্ষার জন্য জোর দিয়েছিলেন তিনি। উত্তর প্রদেশের মুজাফফরনগরের বুধনা গ্রাম থেকে নওয়াজউদ্দিন প্রথম স্নাতক হন।

কৃষিই ছিল প্রথম জীবিকা; নিজের গ্রামে ফিরে মাঠে ফের চাষ করছেন নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকী!

উত্তর প্রদেশের মুজাফফরনগরের বুধনা গ্রাম থেকে নওয়াজউদ্দিন প্রথম স্নাতক হন।

হাইলাইটস

  • বুধনা গ্রাম থেকে এই ভিডিও শেয়ার করেছেন নওয়াজউদ্দিন
  • ভিডিওতে নওয়াজউদ্দিনকে দিনের শেষে হাত ধুতে দেখা যায়
  • অভিনেতার জামাকাপড়ে ঘামের দাগ, কাদার ছোপ তখনও উজ্জ্বল!
নয়াদিল্লি:

গত মাসেই নিজের শহর বুধনায় ইদ উদযাপন করতে গিয়েছিলেন অভিনেতা নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকী। জীবনের ২০ বছরেরও বেশি সময় ধরে কৃষিকাজ করেছেন নওয়াজ। আর সেই কৃষিতেই ফের মন দিয়েছেন অভিনেতা। সম্প্রতি নিজের সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টে, ৪৬ বছর বয়সী এই অভিনেতা চাষের মাঠে কাঠানো দিনের একটি ঝলক শেয়ার করেছেন। “আজকের মতো শেষ” ক্যাপশন লিখে পোস্ট করা ভিডিওতে নওয়াজউদ্দিনকে দিনের শেষে হাত ধুতে দেখা যায়। পিছনে তখন অস্তগামী সূর্য। কোদাল তুলে নিয়ে বেরিয়ে যেতে দেখা যায় নওয়াজকে। সারা দিনের চাষের পরে, নওয়াজউদ্দিনের জামাকাপড়ে ঘামের দাগ, কাদার ছোপ তখনও উজ্জ্বল। ইনস্টাগ্রামে এই পোস্টে এক অনুরাগী লিখেছেন, “এই তো, একেই আমরা ‘ডাউন টু আর্থ' বলি”। অন্য একজন লিখেছেন: “আপনি একজন অনুপ্রেরণা স্যার,” আরেক অনুরাগী লিখেছেন: “এত বড় অভিনেতা হওয়ার পরেও আপনি জীবনে এত সরল কেমন করে?"

দেখুন নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকীর পোস্ট:

নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকীর এই পোস্টটি ২০১৬ সালের আরও একটি এমনই পোস্টের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়েছে। ওই পোস্টে নওয়াজ তাঁর পরিবারের সরষে ক্ষেত থেকে কয়েকটি ছবি শেয়ার করেছিলেন। ট্রাক্টরে চেপে মাঠ চষে বেড়িয়েছিলেন নওয়াজউদ্দিন, অন্যান্য কৃষকদের সঙ্গেও মতবিনিময় করেন অভিনেতা। এনডিটিভিকে এক সাক্ষাৎকারে নওয়াজউদ্দিন বলেছিলেন: “এখানকার কৃষকদের সঙ্গে আমি কথাবার্তা বলে তাদের সমস্যাগুলো আরও ভালভাবে বুঝতে পারছিলাম। আমি নিজেই চাষ করতাম তাই একজন কৃষক কোন কোন সমস্যার মুখোমুখি হতে পারেন তা বুঝতে পেরেছি। সুষ্ঠু গবেষণামূলক পদক্ষেপের মাধ্যমে কৃষকদের পরিস্থিতি উন্নতি করা প্রয়োজন।"

নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকী অল্প বয়সেই কৃষিকাজ শুরু করেছিলেন। তাঁর বাবা নবাবউদ্দিন সিদ্দিকী নিজেও কৃষক ছিলেন। তবে সন্তানের উপযুক্ত শিক্ষার জন্য জোর দিয়েছিলেন তিনি। উত্তর প্রদেশের মুজাফফরনগরের বুধনা গ্রাম থেকে নওয়াজউদ্দিন প্রথম স্নাতক হন। অভিনেতা হওয়ার আকাঙ্ক্ষায় তিনি ন্যাশনাল স্কুল অফ ড্রামায় যোগ দিয়েছিলেন এবং গ্যাংস অফ ওয়াসেপুর, বদলাপুর এবং রমন রাঘব ২.০, নেটফ্লিক্স সিরিজ দ্য স্যাক্রেড গেমসে তাঁর অভিনয় চিরস্মরণীয়।

প্রাক্তন স্ত্রী আলিয়া সিদ্দিকী সম্প্রতি বিবাহ বিচ্ছেদের জন্য আইনি নোটিশ পাঠিয়েছেন এই অভিনেতাকে। নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকী এবং আলিয়া ২০০৯ সালে বিয়ে করেন এবং তাঁদের এক কন্যার নাম শোরা, পুত্রের নাম ইয়ানী সিদ্দিকী।

নওয়াজউদ্দিনকে শেষ জি ৫-এ মুক্তি পাওয়া সিনেমা ঘুমকেতুতে দেখা গিয়েছে।