স্ত্রীয়ের কাছে ২ কিলো কেন ২ গ্রাম সোনা ছিল প্রমাণ করতে পারলে রাজনীতি ছেড়ে দেবঃ অভিষেক

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রী রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে  এফআইআর দায়ের করে শুল্ক দপ্তর (Customs) । সরকারি কর্মীদের কাজে বাধা ও হুমকি দেওয়ার মতো অভিযোগ নথিবদ্ধ  হয়েছে বলে জানা গিয়েছিল।

স্ত্রীয়ের কাছে ২ কিলো কেন ২ গ্রাম সোনা ছিল প্রমাণ করতে পারলে রাজনীতি ছেড়ে দেবঃ অভিষেক

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। (ফাইল চিত্র)

হাইলাইটস

  • স্ত্রী রুজিরার কাছে ২ গ্রাম সোনাও ছিল না বলে দাবি করলেন অভিষেক
  • ণমূল সাংসদের দাবি তাঁর স্ত্রী চিকিৎসার জন্য থাইল্যান্ডে গিয়েছিলেন
  • গোটা বিষয় নিয়ে তৃণমূলকে কড়া আক্রমণ করেছে বিজেপি
কলকাতা:

তাঁর স্ত্রী রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে ২ কিলো কেন ২ গ্রাম সোনাও ছিল না বলে  দাবি করলেন তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, কেউ যদি প্রমাণ করতে পারেন যে  আমার  স্ত্রীয়ের কাছে এমন কোনও দ্রব্য যদি ছিল যার উপর শুল্ক দিতে হয় তাহলে আমি রাজনীতি ছেড়ে দেব।  তাছাড়া আমার স্ত্রী বলে তাঁকে বিশেষ সুবিধা দেওয়া হয়েছিল- এটাও যদি কেউ  প্রমাণ করতে পারেন তাহলেও আমি রাজনীতিতে থাকব না। তৃণমূল সাংসদের  দাবি তাঁর স্ত্রী  চিকিৎসার জন্য থাইল্যান্ডে গিয়েছিলেন। এক টানা  ৭৫  মিনিট জিজ্ঞাসাবাদের পর তিনি অভিষেকের আপ্ত সহায়ককে ফোন করেন। সেই ফোন পাওয়ার পর আপ্ত সহায়ক  পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করেন আর তখন অভিষেকের স্ত্রীকে সাহায্য করতে  একজন মহিলা  কনস্টেবলকে সেখানে পাঠান হয়। তিনি যাতে অসুস্থ হয়ে না পড়েন তা  নিশ্চিত করতেই এমনটা করা হয়েছিল বলে অভিষেক জানান। 

১৫ তারিখ রাতের ওই ঘটনা নিয়ে পুলিশে এফআইআর দায়ের করেন তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রী । সেখানে তিনি শুল্ক দপ্তরের আধিকারিকদের বিরুদ্ধে  দুর্ব্যবহার এবং ৫০ হাজার টাকা চাওয়ার অভিযোগ আনেন। অভিষেক বলেন, আমার সঙ্গে রাজনৈতিক ভাবে লড়াই করতে না পেরে স্ত্রীকে হেনস্থা করা হচ্ছে। 

অভিষেকের স্ত্রীয়ের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করল শুল্ক দপ্তর

এই ঘটনা  প্রসঙ্গে এদিন অভিষেকের পাশাপাশি বিজেপির তরফেও সাংবাদিক সম্মেলন  করা  হয়েছে। ওই সাংবাদিক সম্মেলন থেকে বিজেপির রাজ্যসভার সাংসদ স্বপন দাশগুপ্ত এবং দলের নেতা মুকুল রায় রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে  থাকা পাসপোর্ট নিয়ে প্রশ্ন করেন।  তাঁদের দাবি তাঁর কাছে  থাইল্যান্ডের পাসপোর্ট ছিল। একজন ব্যক্তির কাছে  দুটো  পাসপোর্ট কী করে থাকতে  পারে তা  নিয়েও বিস্ময় প্রকাশ করেন বিজেপি নেতারা। অল্প সময়ের মধ্যেই প্রশ্নের জবাব দেন  তৃণমূল  সাংসদ। তিনি জানান তাঁর স্ত্রী থাইল্যান্ডে জন্মেছেন। সে দেশেরই নাগরিক। তাঁর কাছে থাইল্যান্ডের পাসপোর্ট থাকতেই পারে। তাতে অন্যায়ের কিছু নেই। অভিষেক জানান রুজিরার কাছে  থাইল্যান্ডের পাসপোর্ট ছাড়া পিআইও কার্ডও আছে।  

কয়েক দিন আগে এই  খবর প্রকাশ্যে আসার পর  কয়েকটি নিউজ পোর্টালের তরফে দাবি করা হয় অভিষেকের স্ত্রীয়ের থেকে  ২ কিলো সোনা পাওয়া  গিয়েছে। যদিও শুল্ক  দপ্তরের তরফে দায়ের করা  অভিযোগে এরকম কোনও কথা  বলা  হয়নি। অভিষেক কার্যত চ্যালেঞ্জের সুরে সমস্ত দাবি অস্বীকার করেছেন।    

লোকসভা ভোটে দলত্যাগীদের উপরেই ভরসা রাখছে তৃণমূল- বিজেপি

শুল্ক  দপ্তরকে কাঠগড়ায় তুলে অভিষেক বলেন,  আমার স্ত্রীয়ের বিরুদ্ধে এফআইআর করতে এক সপ্তাহ সময় কেন লাগল। ওরা কি রাজনৈতিক নেতৃত্বের সবুজ সংকেত পাওয়ার অপেক্ষায় ছিল?    

বিজেপির তরফে আরও বলা হয় যে পুলিশের সঙ্গে  শুল্ক দপ্তরের সংঘাত হয়। গত মাসে  পুলিশ এবং সিবিআইয়ের মধ্যে যে সংঘাত তৈরি হয়েছিল এবারের পরিস্থিতিও প্রায় সে রকমই হয়েছিল বলে দাবি করা হয়। বিজেপি নেতাদের দাবি রাজয়ের ভিআইপি এবং  ভিভিআইপিদের জন্য কী ভাবে ব্যবহার করতে হবে তা নতুন করে  ঠিক করে দিয়েছে পুলিশ। অভিষেকের স্ত্রীয়ের সঙ্গেও সেই নিয়ম মেনে আচরণ করতে বলেছে পুলিশ। পাল্টা অভিষেক বলেছেন আমরা সাধারণ মানুষের মতো যাতায়াত করি। আর এটা আমাদের কাছে  গর্বের বিষয়।