This Article is From Jan 30, 2020

গান্ধিঘাটে শহিদ দিবসের অনুষ্ঠান, ব্যারাকপুরের পুলিশ কমিশনারকে ধমক Jagdeep Dhakhar-এর

পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় (Jagdeep Dhankhar) প্রকাশ্যে ধমক দিলেন রাজ্য পুলিশের এক শীর্ষ কর্তাকে। বৃহস্পতিবার ব্যারাকপুরের (Barrackpore Gandhi Ghat) গান্ধিঘাটে মহাত্মা গান্ধির মৃত্যুবার্ষিকীর (Gandhi Death Anniversary) অনুষ্ঠানে যোগ দিতে গিয়েছিলেন রাজ্যপাল।

গান্ধিঘাটে শহিদ দিবসের অনুষ্ঠান, ব্যারাকপুরের পুলিশ কমিশনারকে ধমক Jagdeep Dhakhar-এর

গান্ধিঘাটে গান্ধিজির মৃত্যুবার্ষিকীর অনুষ্ঠান থেকে বেড়িয়ে ব্যারাকপুরের সিপি মনোজ বর্মাকে ধমক দেন রাজ্যপাল। (ফাইল)

হাইলাইটস

  • গান্ধিঘাটের অনুষ্ঠানে রাজ্য পুলিশের এক কর্তাকে ধমক দেন রাজ্যপাল
  • সেই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের দুই মন্ত্রী
  • "উনি সৌজন্য জানেন না", পাল্টা মন্তব্য মন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়ের
ব্যারাকপুর (কলকাতা):

পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় (Jagdeep Dhankhar) প্রকাশ্যে ধমক দিলেন রাজ্য পুলিশের এক শীর্ষ কর্তাকে। বৃহস্পতিবার ব্যারাকপুরের (Barrackpore Gandhi Ghat) গান্ধিঘাটে মহাত্মা গান্ধির মৃত্যুবার্ষিকীর (Gandhi Death Anniversary) অনুষ্ঠানে যোগ দিতে গিয়েছিলেন রাজ্যপাল। সেই অনুষ্ঠানের শেষেই ব্যারাকপুরের পুলিশ কমিশনার মনোজ বর্মাকে(Manoj Verma) সবার সামনে ধমক দেন রাজ্যপাল। সেই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের দুই মন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায় এবং সুব্রত মুখোপাধ্যায়। ছিলেন রাজ্যের স্বরাষ্ট্রসচিবও। জানা গেছে, রাজ্যপালের ভাষণ চলাকালীন সামনের সারিতে বসে কাগজ পড়ছিলেন মনোজ বার্মা ও কয়েকজন পুলিশ আধিকারিক। সেটা নজরে পড়ে রাজ্যপালের। তারপরেই গান্ধিঘাট থেকে বেড়িয়ে যাওয়ার পথে রাজ্যপাল জগদীপ  ধনখড় বলেন, "প্রথম সারিতে বসে খবরের কাগজ পড়ছেন? এটা কি ধরনের আচরণ? আপনারা যদি উর্দি পরে এসব করেন, অন্যরা দেখে কী শিখবে?"

Nathuram Godse এবং Narendra Modi একই মতবাদে বিশ্বাসী: বিস্ফোরক রাহুল গান্ধি

তিনি রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাম্প্রতিক সমাবর্তন প্রসঙ্গের উল্লেখও করেন। সেই ঘটনা "নৈরাজ্য" এমন অভিযোগ তুলে রাজ্যপাল বলেছেন, আজ মহাত্মা গান্ধির মৃত্যুদিন। এদিন অহিংসার। আর রাজ্য জুড়ে হিংসা চলছে। রাজ্যের কোথাও আইন বলে কিছু নেই। পুলিশ-প্রশাসন চুপ করে বসে আছে। ২৮ জানুয়ারি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তনের দিন পুলিশ কোথায় ছিল? বৃহস্পতিবার গান্ধিঘাটে এমন প্রশ্নও তুলেছেন রাজ্যপাল। 

১৮৭ জন তরুণীর আপত্তিকর ছবি দেখিয়ে ব্ল্যাকমেল, ধৃত কলকাতার নামী ব্যবসায়ী পরিবারের দুই তরুণ

এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিদ্যুৎমন্ত্রী  শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়। তাঁকে এ বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেছেন, সামান্য সৌজন্য বোধ নেই রাজ্যপালের। তিনি বলেন, "গান্ধিঘাটে আমি আর স্বরাষ্ট্রসচিব ওঁর জন্য দাঁড়িয়েছিলাম। উনি গাড়ি থেকে নামার পর, আমরা উনার উদ্দেশে হাত জোট করে নমস্কার করলাম। কিন্তু উনি প্রতি নমস্কার করলেন না। সোজা হেঁটে চলে গেলেন। তারপর বেড়িয়ে এসে সংবাদমাধ্যমের সামনে লাগাতার পুলিশের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দিলেন। যার আজকের অনুষ্ঠানের সঙ্গে কোনও সম্পর্কই নেই।" তাঁর দাবি, "উনার ব্যাবহারের তিব্র নিন্দা করছি।" অপর মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায় বলেছেন, উনি ঠিক কী বলেছেন আমি জানি না। কারণ আমি পিছনের দিকে ছিলাম। আমার ও সরকারের তরফে সৌজন্য ও নিয়ম মেনে চলেছি। উনি আমাকে অসম্মান করলে আমি চারগুণ ফিরিয়ে দেব।