"আপনাদের অধিকার কেউ কেড়ে নিতে পারবে না", নাগরিকত্ব বিল বিষয়ে অসমকে আশ্বাস প্রধানমন্ত্রীর

Citizenship Amendment Bill: ভারতীয় সেনার জনসংযোগ আধিকারিক লেফটেন্যান্ট কর্নেল পি খোঙ্গসাই জানান, গুয়াহাটিতে দুই কলাম সেনা মোতায়েন করা হয়েছে

Assam: নাগরিকত্ব বিল নিয়ে অসমবাসীকে টুইট করে আশ্বস্ত করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি

হাইলাইটস

  • নাগরিকত্ব বিলের প্রতিবাদে অগ্নিগর্ভ অসম
  • অসমবাসীকে টুইট করে আশ্বস্ত করলেন প্রধানমন্ত্রী মোদি
  • অসমবাসীর অধিকার সুরক্ষিত থাকবে, আশ্বাস প্রধানমন্ত্রীর
নয়া দিল্লি:

নাগরিকত্ব (সংশোধনী) বিল (Citizenship Amendment Bill) নিয়ে উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছুই নেই, "আপনাদের অধিকার কেউ কেড়ে নিতে পারবে না", টুইটারে অসমকে (Assam) আশ্বাস দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (PM Modi)। অসমের জনগণের অধিকার রক্ষায় কেন্দ্র সম্পূর্ণ প্রতিশ্রুতিবদ্ধ, বলেন প্রধানমন্ত্রী। বুধবারই উত্তর-পূর্বে এই বিলের প্রতিবাদে আছড়ে পড়ে বিক্ষোভ। এই বিক্ষোভের মধ্যেও রাজ্যসভাতেও পাস হয়ে যায় নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল।সংসদের উচ্চকক্ষে ওই বিলের (Citizenship Amendment Bill) পক্ষে ভোট পড়ে ১২৫ টি, এবং বিরুদ্ধে ভোট পড়ে ৯৯টি, ফলে পাস হয়ে যায় সেটি। এর আগে সোমবার লোকসভাতেও ভোটাভুটিতে পাস হয় নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলটি।

নাগরিকত্ব বিলের বিরুদ্ধে বিক্ষোভে অগ্নিগর্ভ অসম, গুয়াহাটিতে সেনা টহলদারি

প্রধানমন্ত্রী মোদি টুইট করেন, "কেন্দ্রীয় সরকার এবং আমি সংবিধান অনুসারে অসমবাসীর রাজনৈতিক, ভাষাগত, সাংস্কৃতিক এবং ভূমি সংক্রান্ত অধিকারগুলিকে ৬ নম্বর ক্লজ অনুযায়ী রক্ষা করার জন্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।"

বর্তমানে যেন বারুদের গোলার উপর অবস্থান করছে অসম। ইতিমধ্যেই ওই রাজ্যের চারটি অঞ্চলে মোতায়েন করা হয়েছে সেনাবাহিনী, এলাকা জুড়ে টহল দিচ্ছে তাঁরা। ভারতীয় সেনাবাহিনীর জনসংযোগ আধিকারিক লেফটেন্যান্ট কর্নেল পি খোঙ্গসাই সংবাদসংস্থা পিটিআইকে জানিয়েছেন যে গুয়াহাটি শহরে দুই কলাম সেনা মোতায়েন করা হয়েছে এবং তাঁরা এলাকায় টহল দিচ্ছে। পিটিআই আরও জানিয়েছে, তিনসুকিয়া, ডিব্রুগড় ও জোড়হাট জেলাতেও মোতায়েন করা হয়েছে সেনা।

অসমের বৃহত্তম শহর ও বিক্ষোভের কেন্দ্রস্থল গুয়াহাটিতে অনির্দিষ্টকালের জন্য কারফিউ জারি করা হয়েছে এবং রাজ্যের দশটি জেলায় মোবাইল ইন্টারনেট পরিষেবা স্থগিত করা হয়েছে। অসমের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোওয়াল এবং কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রামেশ্বর তেলির বাসভবনকে লক্ষ্য করে বিক্ষোভকারীরা পাথর ছোঁড়ে, এরপরেই আঁটোসাঁটো করা হয় ডিব্রুগড়ের নিরাপত্তা ব্যবস্থা। লক্ষ্মীনগর এলাকায় মুখ্যমন্ত্রীর বাড়িতে পাথর ছোঁড়ার পাশাপাশি বিক্ষোভকারীরা দুলিয়াজনে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর বাড়িতেও ভাঙচুর চালায়।

এবার সুপ্রিম কোর্টে নাগরিকত্ব বিল, চ্যালেঞ্জ করে শীর্ষ আদালতে মুসলিম সংস্থা

বৃহস্পতিবার সকালেও অসমের মানুষজন গুয়াহাটিতে কারফিউকে অমান্য করে পথে প্রতিবাদ করতে বেরিয়ে পড়েন।

তীব্র প্রতিবাদ বিক্ষোভের কারণে অসম থেকে যাত্রা শুরু করা অনেক ট্রেনকেই বাতিল করে দিতে হয়েছে বা সময়সূচি বদলাতে হয়েছে অথবা যাত্রাপথ পরিবর্তিত করা হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোয়ালের নিজের শহর চিবুয়ার একটি রেলস্টেশনে গভীর রাতে আগুন ধরিয়ে দেয় কিছু বিক্ষোভকারী। তিনসুকিয়া জেলার পানিটোলা রেলওয়ে স্টেশনও আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়েছে, জানিয়েছেন উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলওয়ের মুখপাত্র।

More News