সেফ হ্যান্ড চ্যালেঞ্জে মিমি, নিজের এলাকায় মাস্ক, স্যানিটাইজার পাঠালেন ঘরে বসেই

এরই মধ্যে দু’টি গুরুত্বপূর্ণ কাজ করলেন মিমি। সেফ হ্যান্ড চ্যালেঞ্জ নিয়ে দেখালেন, কীভাবে নিজেকে সুরক্ষিত রাখছেন।

সেফ হ্যান্ড চ্যালেঞ্জে মিমি, নিজের এলাকায় মাস্ক, স্যানিটাইজার পাঠালেন ঘরে বসেই

সেফ হ্যান্ডস চ্যালেঞ্জের পাশাপাশি মাস্ক, স্যানিটাইজার বিতণ সাংসদের

হাইলাইটস

  • সেফ হ্যান্ড চ্যালেঞ্জ নিলেন মিমি চক্রবর্তী
  • ঘরে বসে মাস্ক, স্যানিটাইজার বিতরণ করলেন যাদবপুর কেন্দ্রে
  • সাংসদের এই ভূমিকায় খুশি এলাকাবাসী
কলকাতা:

বলিউড থেকে টলিউড--- তারকারা এক এক করে দেশবাসীকে সুস্থ থাকায় উজ্জীবিত করতে WHO প্রচারিত #Safe Hands Challenge নিচ্ছেন। টলিউডে সবার প্রথমে এই চ্যালেঞ্জ নেন সাংসদ নুসরত জাহান। সেই পথে এবার হাঁটতে দেখা গেল শাসকদলের আরেক সাংসদ মিমি চক্রবর্তীকেও (Mimi Chakraborty)। দিন দুই আগে 'বাজি'র শুট বাতিল করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশ মেনে দেশে ফিরে আসেন অভিনেত্রী-সাংসদ। নিজের বাড়িতে আইসোলেশনে থাকার পাশাপাশি বন্ধ তাঁর নির্বাচনী কেন্দ্রের অফিসও। এরই মধ্যে দু'টি গুরুত্বপূর্ণ কাজ করলেন মিমি। সেফ হ্যান্ড চ্যালেঞ্জ নিয়ে দেখালেন, কীভাবে নিজেকে সুরক্ষিত রাখছেন।

মাস্কহীন অবস্থায় বিমানবন্দরে পা রাখায় সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে সাংসদকে। এক ভিডিও বার্তায় সেই ক্ষোভ উগরে মিমি জানান, 'আমায় জানানো হয়েছে, আমি নাকি ভিভিআইপি বলে স্ক্রিনিং করিনি! আমি ভিআইপি না হলেও অবশ্যই দায়িত্ববান নাগরিক। তার জন্যও আমি স্ক্রিনিং করাতাম। তাছাড়া, আমায় নিজের হাতে দরখাস্ত পূরণ করে জমা দিতে হয়েছে। সবার এবং নিজের স্বার্থে ১৪ দিন আইসোলেশনে আছি। মা-বাবাকে পর্যন্ত বাড়িতে আসতে বারণ করে দিয়েছি। ওঁদের বয়সের কথা চিন্তা করে। এমনতেই দেশ এবং শহর আতঙ্কে ভুগছে। তার মধ্যে এই ধরনের গুজব ছড়িয়ে আর আতঙ্ক বাড়াবেন না।'

নিজেকে সুরক্ষিত রাখার পাশাপাশি নিজের নির্বাচনী এলাকা যাদবপুরকে সুরক্ষিত রাখারও আপ্রাণ চেষ্টা সাংসদের। ঘরে বসেই ভিডিওর মাধ্যমে কর্মীদের নির্দেশ দিয়ে বিভিন্ন এলাকায় মাস্ক, স্যানিটাইজার, হ্যান্ডওয়াশ বিতরণের ব্যবস্থা করছেন মিমি। চলছে নানা সতর্কতামূলক কর্মসূচী। ভিডিও বার্তায়  মিমি বলেছেন, ‘‘আমি আপনাদের পাশে সবসময় আছি। আমরা সবাই একটা কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে যাচ্ছি। যে সময় আমাদের সবার একে অন্যের পাশে থাকা উচিত। রাজ্য সরকার আপনাদের যা যা সতর্কতা অবলম্বন করে চলতে বলছেন সেই সব মেনে চলুন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও সবসময়েই সবার পাশে আছেন।''