মহারাষ্ট্র নিয়ে আরও আলোচনা প্রয়োজন, সনিয়া গান্ধির সঙ্গে বৈঠকের পর বললেন শরদ পাওয়ার

সূত্র মারফৎ ইঙ্গিত পাওয়া গিয়েছে যে, শিবসেনা-এনসিপি-কংগ্রেস জোট নিয়ে সতর্কভাবে এগোতে চাইছে দুই দল

মহারাষ্ট্র নিয়ে আরও আলোচনা প্রয়োজন, সনিয়া গান্ধির সঙ্গে বৈঠকের পর বললেন শরদ পাওয়ার

Maharashtra talks: সোমবার সনিয়া গান্ধির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন এনসিপি সুপ্রিমো শরদ পাওয়ার

নয়াদিল্লি:

কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধির (Sonia Gandhi) সঙ্গে ৪৫ মিনিটের বৈঠক করলেন এনসিপি সুপ্রিমো শরদ পাওয়ার (Sharad Pawar), তারপরেই জানালেন মহারাষ্ট্রে শিবসেনার সঙ্গে সরকার গড়া নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে আসার আগে আরও আলোচনা হবে। সাংবাদিকদের তিনি বলেন, “কিছু ইস্যু আমাদের চিহ্নিত করতে হবে”। কোনও সিদ্ধান্তই খারিজ করে দিয়েছে দুই দল, বৃহন্মমুম্বই পুরনিগম নির্বাচনে কোনও প্রার্থী দিচ্ছে না কংগ্রেস এবং এনসিপি, এবং তাতেই দেখা গিয়েছে  জোটের সম্ভাবনা। মুম্বইয়ের পুরনিগমটি রয়েছে শিবসেনার (Shiv Sena) দখলে। সূত্র মারফৎ ইঙ্গিত পাওয়া গিয়েছে যে, শিবসেনা-এনসিপি-কংগ্রেস জোট নিয়ে সতর্কভাবে এগোতে চাইছে দুই দল, তবে আনুষ্ঠানিকভাবে, জানানো হয়েছে, সামনের রাস্তা যেতে আরও আলোচনা হবে।

সোমবার সনিয়া গান্ধির সঙ্গে দেখা করেন এনসিপি সুপ্রিমো শরদ পাওয়ার। কংগ্রেস মুখপাত্র রণদীপ সিং সুরজেওয়ালা বলেন,  “ঠিক হয়েছিল যে, দু  একদিনের মধ্যে, রাস্তা খুঁজতে বৈঠক করবেন এনসিপি ও কংগ্রেস নেতারা”। পরিষ্কার যে, শিবসেনার সঙ্গে জোটে যাচ্ছে কংগ্রেস। ফর্মূলা যেটা ঘুরে বেড়াচ্ছে তা হল, শিবসেনার মুখ্যমন্ত্রী, এবং এনসিপি ও কংগ্রেসের একজন করে উপমুখ্যমন্ত্রী থাকবেন। 

8me1euto

মহারাষ্ট্রে সরকার গড়া নিয়ে আরও আলোচনা প্রয়োজন বলে জানান শরদ পাওয়ার

তবে আরও বেশী ক্ষমতা পেতে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে সবদলই।

বিষয়টি নিয়ে মন্তব্যে নারাজ শরদ পাওয়ার।  তিনি জানান, এটা ছিল “সৌজন্য সাক্ষাৎ”।

এর আগে, শরদ পাওয়ারকে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল যে, শিবসেনার তরফে বলা হচ্ছে, মহারাষ্ট্রে সরকার গঠন নিয়ে তারা এনসিপির সঙ্গে আলোচনা চালাচ্ছে, এসিপি সুপ্রিমো বলেন, “সত্যি”?

আদর্শগতভাবে ভিন্নদল শিবসেনার সঙ্গে জোট গড়া নিয়ে উদ্বিগ্ন সনিয়া গান্ধি, বিজেপির সঙ্গে জোট ছিন্ন হয়েছে তাদের। তবে মহারাষ্ট্রের নেতারা জোট নিয়ে উৎসাহিত থাকায় বিষয়টি নিয়ে এগিয়েছেন তিনি, মহারাষ্ট্রের নেতাদের যুক্তি, মহারাষ্ট্রের মতো বাণিজ্য রাজ্যে বিজেপিকে ক্ষমতা লাভ করতে না দেওয়া এটাই পথ।

শিবসেনা ও কংগ্রেসের মধ্যে সেতুবন্ধনের ভূমিকায় আবির্ভুত হন অন্যতম রাজনৈতিক নেতা শরদ পাওয়ার, শিবসেনার জন্য দরজা খোলার জন্য একাধিকবার সনিয়া গান্ধির সঙ্গে আলোচনা করেছেন বলে খবর। দিল্লিতে শরদ পাওয়ারকে সাংবাদিকরা জিজ্ঞাসা করেন, “আপনি কি মনে করেন, মহারাষ্ট্রে শিবসেনা, এনসিপি, কংগ্রেসের সরকার হবে”?

তিনি বলেন, “আলাদাভাবে লড়েছে  বিজেপি-শিবসেনা, আলাদা লড়েছে এনসিপি-কংগ্রেস, আপনি কীভাবে সেটা বলতে পারেন? তাদের নিজেদের রাস্তা নিজেদেরই খুঁজে বের করতে হবে। আমরা আমাদের নিজেদের রাস্তায় রাজনীতি করব”।

সাংবাদিকরা পাল্টা প্রশ্ন করেন, “কিন্তু শিবসেনা বলছে, আমরা পাওয়ার সাহেবের সঙ্গে সরকার গড়ব...”। শরদ পাওয়ার বলেন, “ আচ্ছা, সত্যি”?

এই উত্তরকে, জোট স্থগিত রাখার জন্য কেন্দ্রের তরফে তাঁর উপর চাপ হিসেবে দেখছে অনেকে। শুক্রবার, তিনি জানান যে, তিনদিন একসঙ্গে আসতে পারে, এবং সরকার গড়তে পারে, যেটি পুর্ণসময়ের হবে।

অজিত পাওয়ার, এবং প্রফুল্ল প্যাটেলের মতো এনসিপির শীর্ষ নেতাদের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করেছে ইডি, এবং আয়রকর দফতর, এবং বৃহন্মমুম্বই পুরনিগমের ঠিকাদারের বাড়িতে তল্লাশি হয়েছে. যেটিকে শিবসেনার ওপর টার্গেট বলে মনে করা হচ্ছে।

More News