এবার ক্ষমতায় এলে গোর্খাল্যান্ড গঠন নিয়ে চিন্তা করবে বিজেপি: গুরুং

Lok Sabha Elections 2019: বিজেপির প্রশংসার পাশাপাশি মমতা  বন্দ্যোপাধ্যায়ের সমালোচনা করেছেন বিমল। তিনি বলেছেন,  মমতা ভোট ব্যাঙ্ক রাজনীতি করছেন।

 Share
EMAIL
PRINT
COMMENTS
এবার ক্ষমতায় এলে গোর্খাল্যান্ড গঠন নিয়ে চিন্তা করবে  বিজেপি:  গুরুং
কলকাতা: 

হাইলাইটস

  1. এবার ক্ষমতায় এলে গোর্খাল্যান্ড গঠন নিয়ে চিন্তা করবে বিজেপিঃ বিমল
  2. গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার প্রাক্তন সুপ্রিমো এখন পাহাড়ের রাজনীতিতে অনুপস্থিত
  3. লোকসভা নির্বাচনের আগে সক্রিয় হতে চাইছেন তিনি

 বিজেপি ক্ষমতায় এলে গোর্খাল্যান্ড (Gorkhaland) গঠনের দাবি  খতিয়ে দেখবে। এমনই দাবি বিমল গুরুঙের (Bimal Gurung)। গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার (GJMM) প্রাক্তন সুপ্রিমো এখন পাহাড়ের রাজনীতিতে অনুপস্থিত। কিন্তু লোকসভা নির্বাচনের (Lok Sabha Elections 2019) আগে সক্রিয় হতে চাইছেন তিনি। সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে টেলিফোনে  তিনি জানিয়েছেন, লোকসভা নির্বাচনের ইস্তেহারে গোর্খাল্যান্ড গঠন নিয়ে কোনও কথা না বললেও স্থায়ী রাজনৈতিক সমাধানের (permanent political Solutions )  প্রতিশ্রুতি দিয়েছে বিজেপি। দলের শীর্ষ নেতৃত্বকে আমাদের দাবি জানিয়েছি। আমার দেখে ভাল লাগছে যে বিজেপি নিজেদের ইস্তেহারে (Manifesto)  দার্জিলিঙের রাজনৈতিক সমাধানের কথা বলেছে। তিনি মনে করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ  দার্জিলিঙের রাজনৈতিক সমাধান করতে আগ্রহী।     

রামনবমী পালনে বিজেপিকে কড়া টক্কর দিল তৃণমূল

বিজেপির প্রশংসার পাশাপাশি মমতা  বন্দ্যোপাধ্যায়ের(Mamata Banerjee) সমালোচনা করেছেন বিমল। তিনি (Mamata Banerjee) বলেছেন,  মমতা(Mamata Banerjee) ভোট ব্যাঙ্ক রাজনীতি করছেন। তিনি আসল সমস্যার সমাধান করছেন না। পাহাড়ের উন্নয়নও করেছেন না। তাঁর কাছে জানতে চাওয়া হয় গত পাঁচ বছর বিজেপির সরকার ছিল। দার্জিলিঙে বিজেপির প্রতিনিধিও ছিলেন। তারপরও গোর্খাল্যান্ড তৈরি হল না কেন? জবাবে তিনি(Mamata Banerjee) বলেন, "মোদী সরকার গোর্খাদের জীবনের মান উন্নত  করতে চেয়েছিল। সেই কাজটাই প্রথম থেকে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। আমার মনে  হয় এবার জিতে এলে গোর্খাল্যান্ড নিয়ে ভাবনা চিন্তা  করবে বিজেপি।  গোর্খাল্যান্ড  গঠন আমার প্রধান রাজনৈতিক লক্ষ্য। আর আমি সেখান থেকে সরছি না। একাধিক নির্বাচনী জনসভা থেকে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, দার্জিলিঙের বিজেপি সাংসদ এস এস অহলুআলিয়া ভোটে জেতার পর উন্নয়নের  কোনও কাজ করেননি। এলাকাতেও আসেননি। কিন্তু বিমলের দাবি সাংসদ কাজ করতে চেয়েছিলেন। বেশ কিছু প্রকল্প যাতে বাস্তবায়িত হতে পারে সেই চেষ্টা তিনি করেছেন। তাঁর সততা বা নিষ্ঠার অভাব ছিল না। কিন্তু স্থানীয় প্রশাসন তাঁকে সাহায্য করেনি"। নির্বাচনের মরসুমে এর আগেও পিটিআইকে প্রতিক্রিয়া দিয়েছিলেন বিমল। সে সময় তিনি বলেছিলেন, পৃথক গোর্খাল্যান্ড গঠনের দাবি পাহাড়ের বুক থেকে মুছে যায়নি। আগামী নির্বাচনে ভোটাররা সেটা প্রমাণ  করে দেবেন।            

        



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)


পশ্চিমবঙ্গের খবর, কলকাতার খবর , আর রাজনীতি, ব্যবসা, প্রযুক্তি, বলিউড আর ক্রিকেটের সকল বাংলা শিরোনাম পড়তে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

NDTV Beeps - your daily newsletter

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................