লকডাউনের ফলে পকেটে টান, ছেলেমেয়েদের বেসরকারি থেকে সরকারি স্কুলে ভর্তি করছেন অভিভাবকরা

Coronavirus Lockdown: করোনাকে রুখতে জারি লকডাউনের কারণে বহু মানুষ কাজ হারিয়েছেন, পকেটে টান পড়েছে, ফলে প্রাইভেট স্কুলের ফি দিতে জীবন জেরবার হচ্ছে

লকডাউনের ফলে পকেটে টান, ছেলেমেয়েদের বেসরকারি থেকে সরকারি স্কুলে ভর্তি করছেন অভিভাবকরা

প্রাইভেট স্কুল থেকে এখন সরকারি স্কুলে ভর্তি করার হিড়িক (প্রতীকী চিত্র)

হাইলাইটস

  • বেসরকারি স্কুল থেকে ছাত্রছাত্রীরা ভর্তি হচ্ছে সরকারি স্কুলে
  • পঞ্জাব আর হরিয়ানায় স্কুল বদলানোর এই হিড়িক চোখে পড়েছে
  • লকডাউনের ফলে দেশের সামগ্রিক অর্থনীতি ধুঁকছে, সমস্যায় বহু মানুষ

করোনা ভাইরাসকে রুখতে দেশে যে লকডাউন (Coronavirus Lockdown) জারি করা হয় তার জেরে বহু মানুষ কাজ হারিয়ে রীতিমতো পথে বসতে চলেছেন। পরিস্থিতি যা দাঁড়িয়েছে তাতে মধ্যবিত্তের পকেটে প্রায় তেমন কিছুই নেই। এদিকে যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে এখন বেশিরভাগ অভিভাবকই চান তাঁদের ছেলেমেয়ে বেসরকারি স্কুলে পড়াশুনো করুক। কিন্তু বেসরকারি স্কুলগুলোতে এখন পড়াশুনো সহ সামগ্রিক খরচ এতটাই যে এখন বিকল্প ভাবতে বাধ্য হচ্ছেন বাবা-মায়েরা। আজকাল হরিয়ানা ও পঞ্জাবে (Haryana Punjab) একটা নতুন বিষয় দেখা হচ্ছে। সেখানকার অনেক পরিবারই বাচ্চাদের বেসরকারি স্কুল (Private Schools) থেকে সরিয়ে নিয়ে এসে সরকারি স্কুলে (Government Schools) ভর্তি করছে। 

"আর অন্যের কাজ নয়, এবার নিজের পায়ে দাঁড়াবো", চাকরি হারিয়ে বললেন শিক্ষক

এই যেমন, পঞ্জাবের মোগা জেলার লক্ষপ্রীত সিং, মার্চ মাসে একটি বেসরকারি স্কুল থেকে দশম শ্রেণির পরীক্ষা দিয়েছিলো। কিন্তু এবার তাঁকেও সরকারি স্কুলে পড়াশোনা করতে হবে কারণ ওঁর বাবা, যিনি একটি বেসরকারি সংস্থায় কর্মরত ছিলেন, লকডাউনের সময় চাকরি হারিয়েছেন। ফলে বেসরকারি স্কুলের পাহাড়প্রমাণ খরচ সামলানো এখন আর তাঁর পক্ষে সম্ভব নয়। লক্ষপ্রীত বলেছে, "আমি একটি বেসরকারি স্কুল থেকে দশম শ্রেণির পর্যন্ত পড়েছি কিন্তু  লকডাউনের কারণে আমার বাবার আয় প্রায় নেই বললেই চলে, তাই আমি সরকারি স্কুলে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। অন্যান্য সুযোগ-সুবিধার সঙ্গে সঙ্গে এখানে খাবারটাও পাওয়া যাবে।"

২৪ ঘণ্টায় আরও ১৫,৯৬৮ জন আক্রান্ত করোনা ভাইরাসে, ৪৬৫ জনের মৃত্যু

এর আগে দেখা গেছে যে, দিন এগোনোর সঙ্গে সঙ্গে বেসরকারি স্কুলগুলোর ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যাও পাল্লা দিয়ে বেড়েছে। কিন্তু এখন তার উল্টো ছবি দেখা যাচ্ছে। ২০১৯-২০২০ সালে  সরকারি বিদ্যালয়ে মোট শিক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল ২৩.৫২ লক্ষ, কিন্তু ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে তা বেড়ে হয়েছে ২৫.৬২ লক্ষ। প্রাক-প্রাথমিক শ্রেণিগুলোতেও ভর্তির সংখ্যা ২.২৫ লক্ষ থেকে বেড়ে ২.৯৫ লক্ষে পৌঁছেছে।

এদিকে দেশে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে আরও ১৫,৯৬৮ জন আক্রান্ত হয়েছে করোনা ভাইরাসে, ৪৬৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। অর্থাৎ, ক্রমেই তার অসুখের রাজত্ব বিস্তার করছে কোভিড- ১৯। প্রতিদিনই সংক্রমণের এক নতুন রেকর্ড গড়ছে এই মারণ ভাইরাস। এখনও পর্যন্ত দেশে মোট ৪,৫৬,১৮৩ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে এবং ১৪,৪৭৬ জনের প্রাণ গেছে এই অসুখে।