নেহরুকে শ্রদ্ধা মোদীর: বললেন "তাঁর অবদান ভোলার নয়"

দেশকে ব্রিটিশ শাসন মুক্ত করতে স্বাধীনতা সংগ্রামে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল জওহরলালের। ১৯৪৭ সালে স্বাধীন ভারতবর্ষের প্রথম প্রধানমন্ত্রী ছিলেন তিনি।

নেহরুকে শ্রদ্ধা মোদীর: বললেন

জওহরলাল নেহরুর প্রয়াণদিবস: আজ জওহরলাল নেহরুর ৫৫ তম মৃত্যুবার্ষিকী

নিউ দিল্লি:

আজ ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহরুর ৫৫ তম মৃত্যুবার্ষিকী। এই উপলক্ষে সকালে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী শ্রদ্ধা জানান তাঁকে। বলেন, "শক্তিশালী, স্বাধীন, আধুনিক দেশ এবং গণতন্ত্র রক্ষার ক্ষেত্রে নেহরুর অবদান অবিস্মরণীয়।"   

ট্যুইটারে কেন্দ্রে মোদী আরও লিখেছেন, "দেশ ও জাতির প্রতি তাঁর অবদান ভোলার নয়।" প্রসঙ্গত, গত সপ্তাহে সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনে বিপুল ভোটে জিতে দ্বিতীয়বারের জন্য প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন তিনি। 

Uccha Madhyamik 2019; প্রকাশিত হল উচ্চমাধ্যমিকের ফলাফল, রাজ্যে পাসের হার ৮৬.২৯%

বিজেপির অন্যান্য নেতা-মন্ত্রীরাও আজ শ্রদ্ধা জানান প্রয়াত প্রথম প্রধানমন্ত্রীকে। এঁদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রাজনাথ সিং। তাঁর কথায়, "দেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী, পণ্ডিত জওহরলাল নেহরুকে অন্তরের শ্রদ্ধা জানাই। আজ তাঁকে, দেশ ও দেশবাসীর প্রতি তাঁর অবদানকে স্মরণ করার দিন।"

ট্যুইটারে উপরাষ্ট্রপতি বেঙ্কাইয়া নাইডু লিখেছেন, আধুনিক দেশ গড়ার কারিগর ছিলেন জওহরলাল নেহরু। দেশবাসী আজীবন তাঁকে এভাবেই স্মরণ করবে। 

প্রথম ১০'এ ১৩৭ কৃতী! উচ্চমাধ্যমিকে জোড়া প্রথম জেলার শোভন মন্ডল ও রাজর্ষি বর্মন

নেহরুর প্রয়াণদিবসে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও তাঁকে শ্রদ্ধা জানান ট্যুইটে।

স্বাধীন ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী পণ্ডিত জওহরলাল নেহরু দেশের দীর্ঘতম প্রধানমন্ত্রী। টানা ১৭ বছর দেশের প্রধানমন্ত্রী ছিলেন তিনি। জওহরলাল নেহেরু ব্রিটিশ শাসনের বিরুদ্ধে ভারতের স্বাধীনতার জন্য তাঁর লড়াই অবিস্মরণীয়। মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন তিনি বেশ কয়েকবার কারাগারে বন্দি হন। ১৯৪৭ সালে দেশ স্বাধীন হওয়ার পর নেহরু প্রথম প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন।

১৯৪৭ থেকে ১৯৬৪-র আজকের দিন পর্যন্ত টানা ১৭ বছর আমৃত্যু তিনি দেশের প্রধানমন্ত্রী ছিলেন।