This Article is From Mar 13, 2020

নিগৃহীতার বাবাকে খুনের দায়ে কুলদীপ সেঙ্গারের ১০ বছরের কারাদণ্ডের নির্দেশ

Unnao Rape Case: এর আগে ওই নাবালিকাকে ধর্ষণের দায়ে তাঁকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের সাজা শোনায় আদালত

নিগৃহীতার বাবাকে খুনের দায়ে কুলদীপ সেঙ্গারের ১০ বছরের কারাদণ্ডের নির্দেশ

Kuldeep Sengar-কে ২০১৯ সালে বিজেপি থেকে বহিষ্কার করা হয়

হাইলাইটস

  • বিজেপির বহিষ্কৃত বিধায়ক কুলদীপ সিং সেঙ্গারের ১০ বছরের কারাদণ্ডের নির্দেশ
  • উন্নাওয়ের নিগৃহীতার বাবাকে হত্যার দায়েই ওই সাজা
  • ইতিমধ্যেই ধর্ষণের দায়ে যাবজ্জীবন সাজা দেওয়া হয় কুলদীপ সেঙ্গারকে
নয়া দিল্লি:

বিজেপির বহিষ্কৃত বিধায়ক কুলদীপ সিং সেঙ্গারকে (Kuldeep Singh Sengar) ২০১৭ সালে উত্তরপ্রদেশের উন্নাওতে ধর্ষণ করা কিশোরীর বাবাকে হত্যার দায়ে ১০ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত করা হল। এর আগে ধর্ষণের দায়ে তাঁকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের সাজা শোনায় আদালত। গত বছরের ডিসেম্বর মাসে তাঁকে ওই সাজা দেওয়া হয়। ২০১৭ সালে ওই নাবালিকাকে ধর্ষণ (Unnao Rape Case) করা হয়। এরপর ওই নাবালিকা ও তার পরিবারকে প্রশাসনিক অবহেলা, পুলিশি নিষ্ক্রিয়তার সম্মুখীন হতে হয়। পরে কুলদীপ সিং সেঙ্গার গ্রেফতার হলে এক বছর পরে তাঁকে দল থেকে বহিষ্কার করে বিজেপি। দু'বছর আগে হওয়া ওই ধর্ষণের ঘটনা প্রকাশ্যে আসার পরে শিউরে উঠেছিল গোটা দেশ।

তাঁর উপরে হওয়া নিগ্রহের বিচার চেয়ে ২০১৮ সালের শেষের দিকে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের লখনউয়ের বাড়ির সামনে উপস্থিত হন ওই নিগৃহীতা। তিনি জানিয়ে দেন, বিচার না পেলে তিনি আগুনে পুড়ে আত্মহত্যা করবেন। এর আগে ওই নিগৃহীতার বাবাকে প্রবল মারধর করে কুলদীপ সিং সেঙ্গারের ভাই। অভিযোগ বিজেপির বহিষ্কৃত বিধায়কই নাবালিকার বাবাকে মেরে ফেলার নির্দেশ দেন। পরে মারাত্মক জখম অবস্থায় তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়, সেখানেই মৃত্যু হয় তাঁর।

Unnao Rape Case: দোষী সাব্যস্ত প্রাক্তন বিজেপি বিধায়ক কুলদীপ সিংহ সেঙ্গার

শুধু নিগৃহীতার বাবাকেই যে মেরে ফেলার চক্রান্ত করেন কুলদীপ সিং সেঙ্গার তাই নয়, নাবালিকাকেও মেরে ফেলার চেষ্টা করা হয় বলে অভিযোগ। ২০১৯ সালের জুলাই মাসে নিগৃহীতা তরুণী তাঁৱ আইনজীবী ও দুই কাকিমার সঙ্গে আদালতে যাওয়ার সময় একটি ট্রাক তাঁদের গাড়িকে ধাক্কা মারে। সেই গাড়ির নম্বরপ্লেটে কালো রং করা ছিল। উত্তরপ্রদেশের রায়বেরিলি জেলায় ওই দুর্ঘটনা ঘটে। দুর্ঘটনায় নিগৃহীতার দুই কাকিমা, যাঁদের একজন ওই ঘটনার সাক্ষী ছিলেন, মারা যান। গুরুতর জখম হন নিগৃহীতা। পরে তাঁকে দিল্লির এইমসে নিয়ে আসা হয়। সেখানে দীর্ঘ দিন চিকিৎসা চলার পর সেপ্টেম্বরে তাঁকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

"পিতৃতান্ত্রিক দৃষ্টিভঙ্গী তদন্তে প্রভাব ফেলছে": উন্নাও মামলা প্রসঙ্গে বললেন বিচারক

উন্নাও জেলার বাঙ্গারমৌ থেকে চারবার নির্বাচিত হওয়া বিজেপি বিধায়ক কুলদীপ সেঙ্গারকে ২০১৯ সালের অগাস্ট মাসে গেরুয়া দল থেকে বহিষ্কার করা হয়। ধর্ষণের মামলা ছাড়াও তাঁর বিরুদ্ধে আরও চারটি মামলার বিচার এখনও চলছে। ধর্ষণের পর প্রাণে বেঁচে যাওয়া নাবালিকার বাবার দায়ের করা অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্রে মামলা, বিচারবিভাগীয় হেফাজতে থাকাকালীন নাবালিকার বাবার মৃত্যু হওয়ায় তা নিয়ে একটি মামলা, নিগৃহীতা ও তাঁর পরিবারকে মেরে ফেলার চক্রান্তের মামলা এবং আরও একটি গণধর্ষণের মামলা।