This Article is From Feb 26, 2020

মধ্যরাত্রে বিশেষ শুনানি আদালতের! দিল্লির হিংসায় আহতদের পর্যাপ্ত চিকিৎসা ও নিরাপত্তার নির্দেশ

আহতদের পর্যাপ্ত সুযোগ-সুবিধাসহ চিকিত্সা প্রতিষ্ঠানে তাঁদের নিরাপদে নিয়ে যাওয়ার জন্য একটি জরুরি আবেদনের শুনানি করে আদালত।

হাইলাইটস

  • শুনানি মধ্যরাতে সাড়ে বারোটা নাগাদ বিচারপতি এস মুরলিধরের বাড়িতেই হয়
  • বুধবার বেলা ২.১৫ নাগাদ আদালত আবার মামলাটি গ্রহণ করবে।
  • ইতিমধ্যেই মৃতের সংখ্যা ১৮, আহত প্রায় দুই শতাধিক মানুষ।
নয়াদিল্লি:

দিল্লি রক্তাক্ত, দিল্লি সন্ত্রস্ত্র! গত তিন দিন ধরে রাজধানী দিল্লিতে ভয়াবহ হিংসায় মৃত্যু বাড়ছে ক্রমশ! এরই মধ্যে মঙ্গলবার গভীর রাতে শুনানিতে দিল্লি হাইকোর্ট (Delhi High Court) পুলিশকে হিংসায় আহত ব্যক্তিদের নিরাপদে রাখা এবং জরুরি চিকিৎসা নিশ্চিত করার জন্য নির্দেশ দিয়েছে। মঙ্গলবার উত্তর-পূর্ব দিল্লির কয়েকটি অংশে সশস্ত্র জনতা রাস্তায় নেমে বাড়িঘর ও যানবাহন লুটপাট ও ভাঙচুর করে জ্বালিয়ে দেয়। দোকানপাট ভেঙে আগুন জ্বালিয়ে দেয় ক্ষিপ্ত জনতা। এই ঘটনায় ইতিমধ্যেই মৃতের সংখ্যা ১৭, আহত দেড় শতাধিক মানুষ।

দিল্লির সংঘর্ষের পরিপ্রেক্ষিতে গত ২৪ ঘণ্টায় তৃতীয় বৈঠক অমিত শাহের

দিল্লি হাইকোর্টের দুই-বিচারকের বেঞ্চের শুনানি মধ্যরাতে সাড়ে বারোটা নাগাদ বিচারপতি এস মুরলিধরের বাড়িতেই হয়। আহতদের পর্যাপ্ত সুযোগ-সুবিধাসহ চিকিত্সা প্রতিষ্ঠানে তাঁদের নিরাপদে নিয়ে যাওয়ার জন্য একটি জরুরি আবেদনের শুনানি করে আদালত। 

সমস্ত কর্মী ও আধিকারিকদের এই বিষয়টি মাথায় রাখতে এবং আহতদের ও তাঁদের চিকিত্সা সম্পর্কিত তথ্য সহ জড়ো করে প্রতিবেদন দিতেও আদালত দিল্লি পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছে। আদালত জানিয়েছে, এই আদেশ দিল্লির গুরু তেগ বাহাদুর (জিটিবি) এবং লোক নায়ক জয় প্রকাশ নারায়ণ (এলএনজেপি) হাসপাতালের মেডিকেল সুপারিন্টেন্ডেন্টকেও জানানো হয়েছে। এই দুই হাসপাতালেই বেশিরভাগজন আহত চিকিৎসাধীন। আজ, বুধবার বেলা ২.১৫ নাগাদ আদালত আবার মামলাটি গ্রহণ করবে।

আমাদের পরীক্ষার কী হবে? দিল্লিতে হিংসা নিয়ে অমিত শাহকে প্রশ্ন পড়ুয়ার

হিংসা ছড়িয়ে পড়ায়, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সভাপতিত্বে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় পুলিশ ও আধিকারিকদের একটি বৈঠক আয়োজিত হয়। এই নিয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় এটি তাঁর তৃতীয় বৈঠক। মঙ্গলবার বিশেষ পুলিশ কমিশনার পদে নিযুক্ত ভারতীয় পুলিশ সার্ভিস (আইপিএস) অফিসার এসএন শ্রীবাস্তবও বৈঠকে অংশ নিয়েছিলেন। গভীর রাতে জাতীয় সুরক্ষা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি পর্যালোচনা করতে উত্তর-পূর্ব দিল্লির পুলিশ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে যান।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক এর আগে জানিয়েছিল যে, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে! যদিও এইদিন হিংসায় নিহতের সংখ্যা বাড়তেই থেকেছে। হিংসার মোকাবিলার জন্য সেনা মোতায়েনের রায় দিয়ে মন্ত্রক জানায় যে পর্যাপ্ত পরিমাণে পুলিশ এবং আধাসামরিক বাহিনী ওই অঞ্চলে মোতায়েন রয়েছে।

হিংসা সম্পর্কিত সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচারিত গুজব এবং সত্যতা যাচাই না করা মেসেজ বা ভিডিওতে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য পুলিশ দিল্লির জনগণের কাছে আবেদন করেছে।

পুলিশের অফিসিয়াল হ্যান্ডেল থেকে টুইট করা একটি বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “দিল্লি পুলিশ পরিস্থিতি পুনরুদ্ধার করার জন্য এবং এই অঞ্চলের সম্মানীয় নাগরিকদের নিশ্চিন্তে রাখতে সমস্ত আন্তরিক প্রচেষ্টা করছে।"