দিল্লিতেও এবার বেরোলেই আবশ্যিক মাস্ক। সিল হয়েছে ২০টি আঁতুড়ঘর: উপ-মুখ্যমন্ত্রী

২০টি আঁতুড়ঘর সিল করার সঙ্গে দিল্লিতে মাস্ক ব্যবহার আবশ্যিক করল রাজ্য সরকার। বুধবার এই তথ্য দিয়েছে দিল্লির উপ-মুখ্যমন্ত্রী মনীশ সিসোদিয়া।

দিল্লিতেও এবার বেরোলেই আবশ্যিক মাস্ক। সিল হয়েছে ২০টি আঁতুড়ঘর: উপ-মুখ্যমন্ত্রী

স্বাস্থ্যমন্ত্রী সত্যেন্দ্র জৈন, উপ-মুখ্যমন্ত্রী মনীশ সিসোদিয়ার উপস্থিতিতে এই বৈঠক করেন মুখ্যমন্ত্রী

নয়া দিল্লি:

২০টি আঁতুড়ঘর সিল করার সঙ্গে দিল্লিতে মাস্ক (Face Mask) ব্যবহার আবশ্যিক করল রাজ্য সরকার। বুধবার এই তথ্য দিয়েছে দিল্লির (Delhi's Deputy CM) উপ-মুখ্যমন্ত্রী মনীশ সিসোদিয়া। এদিন উপ-মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, রাজ্যের জনপ্রিয় সদর বাজার, মার্কাজ মসজিদ, নিজামুদ্দিন বস্তি, পাতপরগঞ্জ , দিলশাদ গার্ডেন, মালব্য নগর -সহ ২০টি আঁতুড়ঘর চিহ্নিত করা হয়েছে। খুব দ্রুত সেগুলো সিল করা হবে। পাশাপাশি, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে নতুন সংক্রমণের খবর নেই। এদিন দাবি করেন মনীশ সিসোদিয়া। জানা গিয়েছে, দিল্লিতে ৫৭৬ জন সংক্রমিত। মৃত ৯। সুস্থ হয়েছেন ২১ জন।এর আগে কনট প্লেসের জনপ্রিয় বাঙালি বাজার সিল করেছিল প্রশাসন। সেই এলাকার ৩ জনের দেহে সংক্রমণ মেলায় এই সিদ্ধান্ত। যদিও আগামীকাল কয়েকঘণ্টার জন্য খুলবে সেই বাজার। এমনটাই সূত্রের খবর। বুধবার মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের বাসভবনে একটি পর্যালোচনা বৈঠক হয়েছে। সেই বৈঠকে সপার্ষদ স্বাস্থ্যমন্ত্রী সত্যেন্দ্র জৈন এবং মনীশ সিসোদিয়া উপস্থিত ছিলেন। 

সরকারি, বেসরকারি সব ল্যাবেই বিনামূল্যে হোক করোনা পরীক্ষা: শীর্ষ আদালত

সেই বৈঠকে আঁতুড়ঘর সিল-সহ একাধিক সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এদিন মুখ্যমন্ত্রী বলেন, "ফেস  মাস্ক পরে বাইরে বেরোলে সংক্রমণ অনেক কমান যাচ্ছে। তাই ফেস মাস্কের ব্যবহার আবশ্যিক করা হয়েছে। কাপড়ের মাস্কও ব্যবহার করা যাবে।" দিল্লির আগে মুম্বই, ওড়িশা, চণ্ডীগড়, নাগাল্যান্ড একই পথে হেঁটেছে। 

করোনা প্রতিরোধে রাজ্যের ভূমিকা জানতে চেয়ে হাইকোর্টের রিপোর্ট তলব

এদিকে, সরকারি, বেসরকারি সব ল্যাবেই বিনামূল্যে হোক করোনা পরীক্ষা। এমনটাই জানাল সুপ্রিম কোর্ট। বুধবার শীর্ষ আদালত সরকারকে এবিষয়টি নিশ্চিত করতে বলেছে। এই পরীক্ষা হতে হবে ‘হু' বা ‘আইসিএমআর' অনুমোদিত কিংবা এনএবিএল-এর মান্যতাপ্রাপ্ত ল্যাবরেটরিতে পরীক্ষা হবে। বেসরকারি ল্যাবে এই ধরনের পরীক্ষার জন্য কোনও অর্থ নেওয়া উচিত নয় বলে জানিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। করোনা ভাইরাসে্র সংক্রমণের পরীক্ষা বিনামূল্যে করার আর্জি জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে একটি মামলা দায়ের হয়। এদিন ছিল তারই শুনানি। দু'সপ্তাহ পরে আবারও এই মামলার শুনানি হবে। সুপ্রিম কোর্টের কেন্দ্রীয় সরকারকে জানিয়েছে, বেসরকারি ল্যাবগুলিতে পরীক্ষার জন্য এত খরচ হওয়া উচিত নয়। পাশাপাশি ওই খরচ ফিরিয়ে দেওয়ার বিষয়টিও সরকারকে পুনর্বিবেচনা করতে বলে সরকার।

সুপ্রিম কোর্টে দায়ের হওয়া মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে বেসরকারি ল্যাবে পরীক্ষার জন্য সর্বাধিক ৪,৫০০ টাকাও নেওয়া হচ্ছে।

গতবারের শুনানিতে সুপ্রিম কোর্ট কেন্দ্রীয় সরকারের উদ্দেশে বিজ্ঞপ্তি জারি করেছিল।আদালতে দাবি জানানো হয়েছে, এই পরীক্ষা নিখরচায় হোক। এর জন্য কোনও শুল্কও যেন না নেওয়া হয়। পাশাপাশি দেশের প্রতিটি জেলায় ৫০ থেকে ১০০টি ভেন্টিলেটরের দাবিও জানানো হয়েছে। করোনা সংক্রমণে আক্রান্তের সংখ্যা কত সেটাও নিয়মিত জানানোর আর্জি জানানো হয়েছে।