"২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৫ জন করোনা সংক্রমিত দিল্লিতে", জানালেন মুখ্যমন্ত্রী

গত ২৪ ঘণ্টায় দিল্লিতে ৫ জনের দেহে করোনা সংক্রমণের নমুনা মিলেছে। বুধবার জানালেন সে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল।

অরবিন্দ কেজরিওয়াল বলেছেন, দিল্লির বিভিন্ন হাসপাতালে ২৩ জন করোনা সংক্রমিতর চিকিৎসা চলছে।

নয়া দিল্লি:

গত ২৪ ঘণ্টায় দিল্লিতে ৫ জনের দেহে করোনা সংক্রমণের নমুনা মিলেছে । বুধবার জানালেন সে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল (Delhi CM)। সে রাজ্যে সোমবার থেকে লাগু হয়েছে লকডাউন ((coronavirus lockdown)। জানা গিয়েছে, দু'দিন পর ফের নতুন করোনা সংক্রমিতের হদিশ মিলেছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করেছিলেন, সোমবার ও মঙ্গলবার মিলিয়ে দিল্লিতে নতুন করে সংক্রমণের খবর নেই। সেদিন তিনি গত ৪০ ঘণ্টার হিসেব তুলে ধরেছিলেন সংবাদমাধ্যমকে। কিন্তু সেই আশায় জল ঢেলে দিল বুধবারের পরিসংখ্যান। তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, লকডাউনে যে কাজ দিচ্ছে, তা দিল্লির সোমবার ও মঙ্গলবারের পরিসংখ্যান থেকেই স্পষ্ট। এদিকে বুধবার মধ্যপ্রদেশে করোনা সংক্রমণের জেরে মৃত্যুর খবর মিলেছে। এই মৃত্যুর ফলে দেশে এই ভাইরাস সংক্রমণে মৃত বেড়ে ১১। মধ্যপ্রদেশের নিরিখে এটাই প্রথম মৃত্যু। 

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত এবার ব্রিটেনের যুবরাজ চার্লস

ইতিমধ্যে সংক্রমিতের পাশাপাশি দিল্লিতে করোনায় একজনের মৃত্যুর খবরও মিলেছিল। তারপরেই মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল ও উপরাজ্যপাল অনিল বৈজাল গোটা রাজ্যেকে লকডাউন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। সোমবার থেকেই বেশিরভাগ বাস, ক্যাব আর রিকশা বন্ধ। যেগুলো চলছে, তাও অত্যাবশকীয় পরিষেবার সঙ্গে যুক্তদের পরিষেবা দিচ্ছে। আইকার্ড দেখে নিশ্চিত হওয়ার পরেই তোলা হচ্ছে পরিবহণে। 

এদিকে, “মহাভারতে যুদ্ধে জয়ে সময় লেগেছিল ১৮ দিন, করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে প্রয়োজন ২১ দিন”, বুধবার এমনটাই বললেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। করোনা ভাইরাস লকডাউন নিয়ে এদিন নিজের কেন্দ্র বারাণসীর মানুষদের সঙ্গে ভিডিও লিঙ্কের মাধ্যমে কথা বলেন তিনি। দেশজুড়ে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৫৬০, মঙ্গলবার করোনার সংক্রমণ রুখতে দেশে ২১ দিনের লকডাউন ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী  মোদি, এদিন নিজের লোকসভা কেন্দ্রের লোকজনদের সঙ্গে প্রশ্নোত্তর পর্বে অংশ নেন তিনি। করোনা ভাইরাসের রোগিদের দেখভাল করা চিকিৎসক, নার্সদের টার্গেট করার অভিযোগ উঠেছে, তা নিয়ে এদিন “দুঃখপ্রকাশ” করে প্রধানমন্ত্রী মোদি। 

নেই মাথা গোঁজার ঠাই! লকডাউনে গ্রামে ফিরতে ৮০ কিমি হাঁটা লাগালেন এক শ্রমিক

প্রধানমন্ত্রী বলেন, “এই সঙ্কটের সময়ে, সাদা পোশাকে যাঁরা রয়েছেন, তাঁরা ঈশ্বরেরই নামান্তর।  আজ তাঁরা জীবন রক্ষা করছেন, নিজেদের জীবন বিপন্ন করছেন”। তাঁর কথায়, “চিকিৎসক, উহানের উদ্ধারকারী, এয়ার ইন্ডিয়া এবং বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে যাঁরা ভারতীয়দের ফিরিয়ে এনেছেন...তাঁরা আমাদের প্রকৃত নায়ক। আমাদের অবশ্যই তাঁদের সাহায্য করা উচিত। যখন আমি তাঁদের হেনস্থা করার খবর পাই, সেটা আমি গুরুত্ব দিয়ে দেখি। এটা আমার কাছে  খুবই দুঃখের বিষয়। তাঁদের হেনস্থা কারীদের বিরুদ্ধে সবচেয়ে কঠোর সাজা দেওয়ার জন্য আমি রাজ্যের পুলিশ প্রধানদের বলেছি”।