"সিএএ নিয়ে মুলসিমদের ভয়ের কোনও কারণ নেই," কেন্দ্রের সমর্থনে বললেন Rajinikanth

"সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন বা সিএএ (CAA ) নিয়ে মুলিমদের ভয়ের কোনও কারণ নেই। যদি ওরা সমস্যায় পড়েন, তাহলে প্রথমে আমি এই আইনের বিরোধিতা করবো," মঙ্গলবার সিএএ এভাবে নিজের অবস্থান স্পষ্ট করলেন তামিল সুপারস্টার রজনীকান্ত।

"যদি মুসলিমরা সিএএ-তে সমস্যায় পড়েন, তাহলে সবার আগে আমি বিরোধিতা করবো," বলেন রজনীকান্ত।

হাইলাইটস

  • সিএএ-তে মুলসিমদের ভীতির কোনও কারণ নেই
  • বুধবার দাবি করেছেন রজনীকান্ত
  • দেশে নাগরিকপঞ্জির দরকার আছে, এমন দাবিও করেছেন তিনি
চেন্নাই:

"সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন বা সিএএ (CAA ) নিয়ে মুলিমদের ভয়ের কোনও কারণ নেই। যদি ওরা সমস্যায় পড়েন, তাহলে প্রথমে আমি এই আইনের বিরোধিতা করবো," বুধবার এভাবেই সিএএ নিয়ে নিজের অবস্থান স্পষ্ট করলেন তামিল সুপারস্টার রজনীকান্ত (Rajinikanth)। পাশাপাশি জাতীয় নাগরিকপঞ্জি ও এনপিআর (National Population Register) নিয়ে তিনি বলেছেন, দেশে এই পঞ্জি তৈরি করার দরকার আছে। তিনি সংশোধিত নাগরিক আইনের সমর্থনে প্রশ্ন তুলে বলেন, "দেশ ভাগের সময় যে মুসলিমরা (Muslims) ভারতকে বেছে নিয়েছিলেন তাঁদের কেন বাইরে ঠেলা হবে?" 

"জাতীয় পর্যায়ে NRC প্রয়োগের কথা ভাবা হচ্ছে না": সংসদে জানাল সরকার

গত কয়েক বছর ধরেই তামিল ছবির এই থালাইভার রাজনৈতিক অভিষেক নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে। বিশেষজ্ঞদের দাবি, "আগামী বছর তামিলনাড়ুতে বিধানসভা ভোট। তাঁর আগেই সম্ভবত নিজের রাজনৈতিক অভিষেক ঘটাতে পারেন রজনীকান্ত।" এদিকে এদিন ওই সুপারস্টার বলেছেন, "ছাত্ররা বিরোধিতা করুন, কিন্তু তার আগে বিষয়টা বুঝে, অধ্যাপকদের সঙ্গে আলোচনা করে তবেই পথে নামুন।" কেন্দ্রের সরকারের সমর্থনে এদিন তিনি বলেন, "সরকার বারবার বলেছে সিএএ'র সঙ্গে ভারতীয় নাগরিকদের কোনও সম্পর্ক নেই। তাও কিছু রাজনৈতিক দল, নিজেদের স্বার্থ চরিতার্থ করতে বিরোধিতায় উস্কানি দিচ্ছে।" ডিসেম্বর মাসে দেশব্যাপী চলা সিএএ-বিরোধী আন্দোলনের বিরোধিতা করে সরব হয়েছিলেন রজনীকান্ত। দাঙ্গা এবং হিংসা কোনও সমস্যার সমাধান নয় বলেই সমালোচনা করেছিলেন তিনি। জানা গেছে, ২০১৯-এর সাধারণ নির্বাচনে বিজেপির তরফে প্রস্তাব থাকলেও ভোটে লড়েননি রজনীকান্ত। বরং ২০২১-এর বিধানসভা নির্বাচনের প্রস্তুতিতে নিজে ব্যস্ত রেখেছিলেন তিনি। তার মধ্যেই সক্রিয় হয়ে কেন্দ্রের সরকারের পাশে দাঁড়ালেন থালাইভা। 

"ভোটারদের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে সরকার": CAA ইস্যুতে সরব মহুয়া মৈত্র

রজনীকান্ত সিএএ'র সমর্থনে এগিয়ে এলেও অপর তামিল সুপারস্টার কমল হাসান বিরোধিতা করেছেন এই আইনের। তিনি বলেছেন, সংসদে সংখ্যাগরিষ্ঠতা আছে মানেই, সংবিধানের মৌলিক কাঠামো ধ্বংসের অধিকার কারও নেই। দক্ষিণি রাজনীতি সূত্রে খবর, একাধিকবার একসঙ্গে কাজ করার প্রস্তাব নিয়ে মুখোমুখি বসেছেন রজনিকান্ত আর কমল হাসান। কিন্তু সমাধান সূত্র বেরোয়নি। সম্প্রতি বিজেপির সমর্থনে মুখ খুলতে দেখা গিয়েছে রজনীকান্তকে। যা নিয়ে সমালোচনাও করেছেন বিরোধীরা। কিন্তু গেরুয়া রঙের সঙ্গে তাকে জড়িয়ে লাভ নেই, এমন কথাই শোনা গিয়েছে থালাইভার কণ্ঠে।