রাহুল গান্ধি থাকেন না প্রতিরক্ষা স্ট্যান্ডিং কমিটির বৈঠকে: জেপি নাড্ডা

সংসদের রিপোর্টে উল্লেখ গত সেপ্টেম্বরে তৈরি হওয়া এই স্ট্যান্ডিং কমিটি মোট ১১ বার বৈঠক করেছেন

রাহুল গান্ধি থাকেন না প্রতিরক্ষা স্ট্যান্ডিং কমিটির বৈঠকে: জেপি নাড্ডা

সাম্প্রতিক ইন্দো-চিন উত্তেজনা নিয়ে আক্রমণের ধার বাড়িয়েছেন রাহুল গান্ধি।

নয়াদিল্লি:

প্রতিরক্ষা সংক্রান্ত স্ট্যান্ডিং (Parliamentary Defence Standing Committee) কমিটির বৈঠকে উপস্থিত থাকেন না রাহুল গান্ধি। কিন্তু সশস্ত্র বাহিনীর দক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন করে যান। এ ভাষাতেই সোমবার কংগ্রেস সাংসদকে (Congress MP Rahul Gandhi) আক্রমণ করে বিজেপি। দলের সভাপতি জেপি নাড্ডা  টুইটে লেখেন, "প্রতিরক্ষা স্ট্যান্ডিং কমিটির একটা বৈঠকে উপস্থিত হয়নি রাহুল গান্ধি। কিন্তু দুঃখজনক ভাবে দেশকে হতাশ করেন। আমাদের সশস্ত্র বাহিনীর শৌর্য নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। সে সব কিছু করেন, যা একজন দায়িত্ববান বিরোধী নেতার করা উচিত নয়।" ঘুরিয়ে পরিবারতন্ত্রকে বিঁধে নাড্ডার (BJP President JP Nadda) টুইট, "কংগ্রেসে এমন অনেক নেতা আছেন, যাঁরা প্রতিরক্ষার গুরুত্ব বোঝেন। কিন্তু বিশেষ পরিবার সেই নেতাদের উঠতে দেয় না। দেখুন সেই টুইট:

সংসদের রিপোর্টে উল্লেখ গত সেপ্টেম্বরে তৈরি হওয়া এই স্ট্যান্ডিং কমিটি মোট ১১ বার বৈঠক করেছে। কিন্তু একটা বৈঠকেও উপস্থিত ছিলেন না রাহুল গান্ধি।

এদিন আবার, কোভিড- ১৯ পরিস্থিতি, নোট বাতিলের সিদ্ধান্ত ও জিএসটির প্রয়োগ, এই ৩টি বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ব্যর্থতার অধ্যায় এবার হার্ভার্ড বিজনেস স্কুলের পড়াশুনোর অন্তর্ভুক্ত হবে, তীব্র কটাক্ষ করে সোমবার টুইট করলেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধি। তিনি নিজের টুইটের সঙ্গে জুড়ে দেন প্রধানমন্ত্রী মোদির জাতির উদ্দেশে ভাষণের একটি ভিডিও এবং ভারতের করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যার ক্রমবর্ধমান গ্রাফের একটি ভিডিও। তিনি লেখেন, "ভবিষ্যতে এইচবিএস (হার্ভার্ড বিজনেস স্কুল) -এ ব্যর্থতা কেমন হয় তা শেখাতে অবশ্যই এই ৩টি বিষয়ের উপর পড়ানো হবে: ১. কোভিড -১৯। ২. নোট বাতিলের সিদ্ধান্ত। ৩. জিএসটির প্রয়োগ।

প্রধানমন্ত্রীর যে ভিডিওটি রাহুল গান্ধি তাঁর টুইটের সঙ্গে জুড়ে দেন তাতে নরেন্দ্র মোদিকে বলতে শোনা গেছে, "মহাভারতের যুদ্ধ জিততে ১৮ দিন সময় লেগেছিল আর এই করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধে জিততে ২১ দিন সময় লাগবে"।