This Article is From Apr 30, 2019

অনুব্রত-অনুপম সাক্ষাৎ ঘিরে তুঙ্গে তরজা, যাদবপুরের প্রার্থীর সঙ্গে কথা বলবে বিজেপি

প্রচারে মার্কিন নাগরিক দ্য গ্রেট খালিকে নিয়ে এসে বিতর্কে জড়িয়ে ছিলেন যাদবপুর লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী অনুপম হাজরা (Anupam Hazra)

অনুব্রত-অনুপম সাক্ষাৎ ঘিরে তুঙ্গে তরজা, যাদবপুরের প্রার্থীর সঙ্গে  কথা বলবে বিজেপি

অনুপম যাই বলুন না কেন এই বিতর্ক যে সহজে থামবে না তা স্পষ্ট

হাইলাইটস

  • বোলপুরের ভোটার হিসেবে সোমবার ভোট দিতে গিয়েছিলেন
  • আর তারপর দেখা করেন বীরভূমের তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলের সঙ্গে
  • এ নিয়ে রাজনৈতিক মহলে চর্চা শুরু হয়েছে
কলকাতা:

প্রচারে মার্কিন নাগরিক দ্য গ্রেট খালিকে (The Great Khali)  নিয়ে এসে বিতর্কে জড়িয়ে ছিলেন যাদবপুর লোকসভা কেন্দ্রের (Jadavpur Loksabha Seat) বিজেপি প্রার্থী অনুপম হাজরা (Anupam Hazra)। সে সম্পর্কে নির্বাচন কমিশনের কোনও সিদ্ধান্তে এসে পৌঁছানোর আগেই আরও বড় বিতর্কে জড়ালেন অনুপম (Anupam Hazra)। বোলপুরের ভোটার হিসেবে সোমবার ভোট দিতে গিয়েছিলেন। আর তারপর দেখা করেন  বীরভূমের তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলের সঙ্গে। শুধু দেখা করা নয় পায়ে হাত দিয়ে প্রণাম করা থেকে উষ্ণ আলিঙ্গন সবই করলেন বিজেপি প্রার্থী। আর তা ঘিরেই রাজনৈতিক মহলে চর্চা শুরু হয়েছে। বিজেপি প্রার্থী হয়ে তৃণমূল সভাপতি সঙ্গে  ভোটের সময়  এ সব অনুপম কেন করলেন  তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে পদ্ম শিবিরেই।   

বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য ছাড়া সিপিএমের সব নেতা বিজেপির সঙ্গে রয়েছে: মমতা

দলের অন্দরেই তাঁকে নিয়ে বিস্তর সমালোচনা হয়েছে।  রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ পর্যন্ত সংবাদ সংস্থা পিটিআই কে বলেছেন, ‘অনুপম জানিয়েছেন অনুব্রত মায়ের মৃত্যুর পর তাঁর সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন।  কিন্তু কোন সময় যাচ্ছেন সেটাও বিচার্য। ভোট মেটার পর বা অন্য কোনও সময় যেতে পারতেন। কিন্তু এখন কেন গেলেন তা নিয়ে অবশ্যই অনুপমের সঙ্গে কথা বলব। আমাদের দলের নির্দিষ্ট কিছু শৃঙ্খলা আছে আর তা সবাইকেই মেনে চলতে হবে।' রাজ্য সভাপতির বক্তব্য থেকে স্পষ্ট অনুপমের এই আচরণ রাজ্য নেতাদের খুশি করতে পারেনি। কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের তরফে অবশ্য এখনও কোনও প্রতিক্রিয়া এসে পৌঁছয়নি। কিন্তু গোটা বিষয়ের মধ্যে সৌজন্যে ছাড়া অন্য কিছুই দেখছেন না বিজেপি প্রার্থী।

দিদি, আপনি কাদার রসগোল্লায় পাথর ভরে দিলেও আমি খেয়ে নেব: নরেন্দ্র মোদী

ফেসবুক ব্যবহার করা নিয়েই তৃণমূলে থাকার সময় সমালোচিত হয়েছিলেন তিনি। বিজেপিতে যোগ দিয়েও নতুন করে ফেসবুকে নিজের উপস্থিতি জানান দিচ্ছেন অনুপম। সেই ফেসবুকেই সোমবার সন্ধ্যা থেকে একাধিকবার অনুব্রত সঙ্গে সাক্ষাৎ নিয়ে প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন তিনি। কখনও নিজের বক্তব্য লিখিত আকারে প্রকাশ করেছেন। কখনও আবার ফেসবুকে লাইভ হয়ে  বলেছেন ‘মান কি বাত'। তাঁর একটাই কথা- তিনি অনুব্রত মণ্ডলের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন কারণ মাত্র কিছু দিন আগে তাঁর মা প্রয়াত হয়েছেন। ছোট থেকেই তাঁকে জেঠিমা বলতেন। আর সেই কারণেই সৌজন্যের খাতিরে দেখা করতে গিয়েছিলেন। এর সঙ্গে রাজনীতির কোনও যোগাযোগ নেই। তবে অনুপম যাই বলুন না কেন এই বিতর্ক যে সহজে থামবে না তা স্পষ্ট।

শুধু দেখা করা নয় গতকাল অনুপমকে পাশে বসেই অনুব্রতকে বলতে শোনা গিয়েছে, ‘ও একটা ভুল করে ফেলেছে। যদি ভুল স্বীকার করে আমাদের দলে ফিরে আসে তাহলে আমরা স্বাগত জানাব। আবার ওকে সাংসদ করতে পারি। আর এ ব্যাপারে আমি নিজে দলনেত্রী সঙ্গে কথা বলব।' এ ধরনের কথা সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচারিত হওয়ার পর চর্চা আরও বাড়ে। তবে নিজের অবস্থানে এখনও অনড় রয়েছেন বিজেপি প্রার্থী আজ দুপুরে সাংবাদিক সম্মেলন করবেন তিনি। সেখানে  তিনি কী বলেন তার উপর অনেক কিছু নির্ভর করছে।    

(সংবাদ সংস্থা পিটিআইয়ের তথ্য সংযোজিত হয়েছে)



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)