This Article is From Nov 26, 2019

দেবেন্দ্র ফড়নবিশের পদত্যাগ দিল্লির দলপতিদের মুখেও চড়, দাবি কংগ্রেসের

শপথগ্রহণের তিন দিন পরে মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে সরে দাঁড়ালেন দেবেন্দ্র ফড়নবিশ। তিনি জানান, অজিত পাওয়ার পদত্যাগ করার পর বিজেপির আর সংখ্যাগরিষ্ঠতা থাকল না মহারাষ্ট্র বিধানসভায়।

দেবেন্দ্র ফড়নবিশের পদত্যাগ দিল্লির দলপতিদের মুখেও চড়, দাবি কংগ্রেসের

কংগ্রেস নেতা কেসি বেণুগোপাল জানিয়েছেন, ‘‘এটা সংসদীয় গণতন্ত্রের জয়।

নয়াদিল্লি:

বিধানসভায় সংখ্যাগরিষ্ঠতা নেই তাঁর, একথা জানিয়ে মঙ্গলবার মহারাষ্ট্রের (Maharashtra) মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন দেবেন্দ্র ফড়নবিশ (Devendra Fadnavis)। এর আগেই উপ মুখ্যমন্ত্রীর পদ ছেড়েছেন অজিত পাওয়ার। এই পরিস্থিতিতে কংগ্রেসের মুখপাত্র রণদীপ সুরযেওয়ালা অভিযোগ এনে বলেন, ‘‘দেবেন্দ্র ফড়নবিশ ও অজিত পাওয়ারের উচিত মহারাষ্ট্রের মানুষের কাছে ক্ষমা চাওয়া। কেননা, তাঁদের সরকার তৈরি হয়েছিল মিথ্যার উপরে দাঁড়িয়ে এবং তা ভেঙে পড়ল তাসের ঘরের মতো।'' বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতা কেসি বেণুগোপাল জানিয়েছেন, ‘‘এটা সংসদীয় গণতন্ত্রের জয়। ওরা ভেবেছিল ঘোড়া কেনাবেচার মাধ্যমে সরকার গড়বে। এটা কেবল দেবেন্দ্র ফড়নবিশের ব্যর্থতা নয়। সেই সঙ্গে তাঁদের দলপতিদের মুখেও চড়!''

তিনি দাবি করেন, ‘‘আমার ধারণা উদ্ধব ঠাকরেজি নির্বাচিত হবেন।''

শপথগ্রহণের তিন দিন পরে মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে সরে দাঁড়ালেন দেবেন্দ্র ফড়নবিশ। তিনি জানান, অজিত পাওয়ার পদত্যাগ করার পর বিজেপির আর সংখ্যাগরিষ্ঠতা থাকল না মহারাষ্ট্র বিধানসভায়।

গত সপ্তাহেই গেরুয়া শিবিরের সঙ্গে হাত মেলানোর পর এবং উপ মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়ার পর অজিত পাওয়ার এদিন দুপুরে পদত্যাগ করেন।

বুধবার শীর্ষ আদালতের নির্দেশে বিদানসভায় আস্থা ভোট। তার আগের দিন পদত্যাগ করলেন মুখ্যমন্ত্রী ও উপ মুখ্যমন্ত্রী।