গান্ধিজিকে নিয়ে মন্তব্যের জন্য অনন্তকুমার হেগড়েকে ক্ষমা চাইতে বলল বিজেপি: সূত্র

সূত্রের খবর, অনন্তকুমার হেগড়ের ওপর ক্ষুব্ধ বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্ব, তীব্র ভর্ৎসনা করে তাঁকে বলা হয়েছে, তাঁর মন্তব্য গ্রহণযোগ্য নয়

গান্ধিজিকে নিয়ে মন্তব্যের জন্য অনন্তকুমার হেগড়েকে ক্ষমা চাইতে বলল বিজেপি: সূত্র

অনন্তকুমার হেগড়ে বলেন, পুরো স্বাধীনতা সংগ্রাম “মঞ্চস্থ হয়েছিল ব্রিটিশদের সম্মতি এব্ং সমর্থনে”

হাইলাইটস

  • মহাত্মা গান্ধির স্বাধীনতা সংগ্রামকে “মঞ্চস্থ নাটক” বলেন অনন্তকুমার হেগড়ে
  • অনন্তকুমার হেগড়েকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাওয়ার নির্দেশ দিল বিজেপি
  • অনন্তকুমার হেগড়ের ওপর অসন্তুষ্ট বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্ব: সূত্র
নয়াদিল্লি:

মহাত্মা গান্ধিজির (Mahatma Gandhi) স্বাধীনতা সংগ্রামকে “মঞ্চস্থ নাটক” বলে কটাক্ষ করায় দলেরই সাংসদ অনন্তকুমার হেগড়েকে (Anantkumar Hegde) নিঃশর্ত ক্ষমা চাওয়ার নির্দেশ দিল বিজেপি। সপ্তাহান্তে মহাত্মা গান্ধিজি সম্পর্কে একাধিক বিতর্কিত মন্তব্য করেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয়মন্ত্রী, তিনি বলেন, তাঁর “রক্ত গরম” হয়ে যায় এই ভেবে যে, “এই ধরণের ব্যক্তিকে মানুষ মহাত্মা বলে”। সূত্রের খবর, অনন্তকুমার হেগড়ের ওপর ক্ষুব্ধ বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্ব, তীব্র ভর্ৎসনা করে তাঁকে বলা হয়েছে, তাঁর মন্তব্য গ্রহণযোগ্য নয়। শনিবার বেঙ্গালুরুতে একটি সভায় অনন্তকুমার হেগড়ে বলেন, পুরো স্বাধীনতা সংগ্রাম “মঞ্চস্থ হয়েছিল ব্রিটিশদের সম্মতি এব্ং সমর্থনে”।

ছবারের এই সাংসদ বলেন, “এদের মধ্যে কেউই একবারও পুলিশের মার খায়নি। তাদের স্বাধীনতা সংগ্রাম ছিল বড় নাটক। ব্রিটিশদের সমর্থনেই তাদের এই স্বাধীনতা সংগ্রাম হয়েছিল। এগুলো প্রকৃত লড়াই ছিল না। এটা ছিল অপোসের স্বাধীনতা সংগ্রাম”।

জামিয়া, শাহিনবাগে CAA-এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ পরিকল্পিত, হঠাৎ করে নয়: প্রধানমন্ত্রী

তিনি বলেন, “কংগ্রেসের সমর্থকরা বলে থাকেন, যে, আমৃত্যু অনশন এবং সত্যাগ্রহের জন্য স্বাধীনতা পেয়েছে ভারত। এটা সঠিক নয়। সত্যাগ্রহের জন্য ব্রিটিশরা ভারত ত্যাগ করেনি। হতাশ হয়ে ভারতকে স্বাধীনতা দিয়েছিল ব্রিটিশরা। আমার রক্ত গরম হয়ে যায়, আমি ইতিহাস পড়ি। এই ধরণের মানুষ আমাদের দেশে মহাত্মা হয়ে যান”।

নরেন্দ্র মোদির প্রথম সরকারে মন্ত্রী ছিলেন উত্তর কন্নড়ের এই সাংসদ, গত বছরে ফের নরেন্দ্র মোদি ক্ষমতায় ফিরলে বাদ পড়েন তিনি।

তাঁর মন্তব্য থেকে দূরত্ব বজায় রেখেছে বিজেপি, পাশাপাশি অনন্তকুমার হেগড়ের এই মন্তব্যের নিন্দা করেছেন মহাত্মা গান্ধির নাতি, সরব বিরোধীরাও।

Newsbeep

বিজেপি নেতা জগদম্বিকা পাল বলেন, “সারা বিশ্ব গান্ধিজী সম্পর্কে জানে, এটা তাঁর ব্যক্তিগত মতামত হতে পারে”।

“আপনি জঙ্গি, অনেক প্রমাণ আছে”, অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে তোপ কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অশ্বিনী চৌবে বলেন, অনন্তকুমার হেগড়ের “এই মন্তব্য করা উচিত হয়নি”, যে  গান্ধিজি একজন শ্রদ্ধেয় ব্যক্তি।

মহাত্মা গান্ধিজীর নাতি তুষার গান্ধি ট্যুইট করেন, “হেগড়ে সঠিক যে, গান্ধিজির স্বাধীনতা সংগ্রাম একটি নাটক ছিল। এটা এতটাই তীব্র ছিল যে, ভারতে ঔপনিবেশিক শাসন এবং ক্রীতদাস করার ব্যপারে ব্রিটিশদের চোখ খুলে দিয়েছিল”।