সরকারের নির্দেশেই দিল্লিতে স্থগিত ভয়েস, এসএমএস, ডেটা পরিষেবা: এয়ারটেল-ভোডাফোন

CAA: উত্তর-পূর্ব দিল্লি সহ রাজধানীর বেশ কিছু অংশে বন্ধ ইন্টারনেট পরিষেবা, সিলামপুর ও ব্রিজপুরিতে গত কয়েকদিন হিংসা ছড়িয়ে পড়ার কারণেই ওই সিদ্ধান্ত

সরকারের নির্দেশেই দিল্লিতে স্থগিত ভয়েস, এসএমএস, ডেটা পরিষেবা: এয়ারটেল-ভোডাফোন

সরকারের নির্দেশ মেনেই পরিষেবা স্থগিতের সিদ্ধান্ত, জানাল Airtel ও Vodafone

হাইলাইটস

  • দিল্লির বেশ কিছু অংশে এয়ারটেলের ডেটা, এসএমএস এবং ইন্টারনেট পরিষেবা স্থগিত
  • সরকারি নির্দেশ মেনেই পরিষেবা স্থগিতের সিদ্ধান্ত, জানিয়েছে এয়ারটেল-ভোডাফোন
  • নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে বিক্ষোভে উত্তাল দিল্লি
নয়া দিল্লি:

দেশের বিভিন্ন অংশে চলছে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের (Citizenship Amendment Act) প্রতিবাদে বিক্ষোভ, প্রতিবাদ আছড়ে পড়েছে রাজধানী দিল্লিতেও। তবে এই বিক্ষোভ-আন্দোলন ঘিরে যাতে কোনও গুজব বা উস্কানিমূলক বক্তব্য ছড়িয়ে না পড়ে সেই জন্যে আগাম সতর্কতা স্বরূপ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে এয়ারটেল (Airtel) এবং ভোডাফোন (Vodafone) পরিষেবা। এয়ারটেলের গ্রাহক সেবা বিভাগ নিশ্চিত করে জানিয়েছে যে, সরকারি নির্দেশ মেনেই দিল্লির (Delhi) "অনেক অংশে" ইন্টারনেট, ভয়েস এবং এসএমএস পরিষেবা স্থগিত করা হয়েছে। এর আগে হঠাৎ করে এয়ারটেল পরিষেবা ব্যাহত হওয়ায় একের পর এক অভিযোগ জমা হয় ওই মোবাইল সংস্থার গ্রাহক সেবা বিভাগে।

উত্তর-পূর্ব দিল্লি সহ রাজধানীর বেশ কিছু অংশে বন্ধ ইন্টারনেট পরিষেবা, সিলামপুর ও ব্রিজপুরিতে গত কয়েকদিন হিংসা ছড়িয়ে পড়ার কারণেই ওই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে। রাজধানীর অন্যতম ব্যস্ত মিডিয়া অফিসেও এই পরিষেবা স্থগিতের রেশ গিয়ে পড়ে বলে জানা গেছে।

"... সরকারি নির্দেশ অনুসারে, ভয়েস, ইন্টারনেট এবং এসএমএস পরিষেবাগুলি বর্তমানে কয়েকটি স্থানে স্থগিত করা হয়েছে। স্থগিতাদেশের আদেশ প্রত্যাহার করা হলে, আমাদের পরিষেবা ফের পাওয়া যাবে। অসুবিধার জন্য আমরা দুঃখিত। আপনাদের সহযোগিতার জন্যে ধন্যবাদ!", উত্তর-পূর্ব দিল্লি থেকে এয়ারটেলকে টুইট করে অভিযোগ জানানো দানিশ খান নামে এক গ্রাহক এই জবাব পান ওই সংস্থা থেকে।

নাগরিকত্ব আইন নিয়ে ১০ টি শহরে বিক্ষোভের সুনামি, দিল্লি-বেঙ্গালুরুতে আটক কমপক্ষে ৩০

কল ড্রপ এবং ইন্টারনেট বন্ধ হওয়ার অভিযোগে অশোক রোড তথা মধ্য দিল্লি অঞ্চলের গ্রাহকরাও একই উত্তর পেয়েছিলেন।এয়ারটেলের তরফ থেকে এনডিটিভিকে জানানো হয়: "আমরা দিল্লির নির্দিষ্ট কিছু জায়গায় ভয়েস, এসএমএস এবং ডেটা স্থগিত করার বিষয়ে সরকারি কর্তৃপক্ষের নির্দেশ মেনে চলছি।"

এর আগে ১৯৭৫ সালে এরকম পরিস্থিতি হয়েছিল। সেই সময় কেন্দ্রে ক্ষমতাসীন ইন্দিরা গান্ধি সরকার কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করে ছিল এবং তখন সরকারের সমালোচকদের ধরে ধরে কারাগারে বন্দি করে রাখা হয়ে ছিল।

দিল্লি-গুরগাঁও সীমান্তে বিশাল জ্যাম, লাল কেল্লার কাছে নিষিদ্ধ যে কোনও বড় জমায়েত

বৃহস্পতিবার দিল্লির লাল কেল্লার কাছ থেকে বেশ কয়েকজন বিক্ষোভকারীকে আটক করা হয়। সমাজকর্মী ও স্বরাজ অভিযানের নেতা যোগেন্দ্র যাদব বলেন যে হাজারখানেক বিক্ষোভকারীর সঙ্গে তাঁকে আটক করা হয় । তিনি জানান আরও "হাজার হাজার মানুষ পথে" রয়েছেন।

দেখুন এই ভিডিও:

More News