নির্ভয়া কাণ্ডের অপরাধীদের ফাঁসির জন্য জহ্লাদ পবনকে চাইল তিহার জেল: পুলিশ

পবন আগেই জানিয়েছিলেন, তিনি নির্ভয়া কাণ্ডের অপরাধীদের ফাঁসিতে ঝোলাতে প্রস্তুত। তিনি বলেছিলেন, ‘‘এই ধরনের মানুষদের ফাঁসিতেই ঝোলানো উচিত।''

নির্ভয়া কাণ্ডের অপরাধীদের ফাঁসির জন্য জহ্লাদ পবনকে চাইল তিহার জেল: পুলিশ

দিল্লির এক আদালত জানিয়েছে, ১ ফেব্রুয়ারি সকাল ৬টায় ওই অপরাধীদের ফাঁসি হওয়ার কথা।

লখনউ:

আগামী ১ ফেব্রুয়ারি নির্ভয়া মামলার (Nirbhaya Case) চার অপরাধীর ফাঁসি। ফাঁসির জন্য উত্তরপ্রদেশের জহ্লাদ পবনকে (UP Hangman Pawan) চেয়েছে দিল্লির তিহার জেল কর্তৃপক্ষ। উত্তরপ্রদেশের জেল অধিকর্তা আনন্দ কুমার একথা জানিয়েছেন। তিনি জানান, ৩১ জানুয়ারি ও ১ ফেব্রুয়ারি এই দু'দিনের জন্য পবনকে চাওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি। মীরাটের বাসিন্দা পবন আগেই জানিয়েছিলেন, তিনি নির্ভয়া কাণ্ডের অপরাধীদের ফাঁসিতে ঝোলাতে প্রস্তুত। তিনি বলেছিলেন, ‘‘ওই অপরাধীদের ফাঁসিতে ঝোলানো হলে আমি, নির্ভয়ার বাবা-মা ও দেশের সকলে সত্যিই স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলব। এই ধরনের মানুষদের ফাঁসিতেই ঝোলানো উচিত।'' গত সপ্তাহে দিল্লির এক আদালত নতুন করে চার অপরাধীর মৃত্যু পরোয়ানা জারি করে। ১ ফেব্রুয়ারি সকাল ৬টায় তাদের ফাঁসি হওয়ার কথা।

Nirbhaya case: ১ ফেব্রুয়ারি ভোর ৬ টায় ফাঁসি নির্ভয়া গণধর্ষণ মামলার ৪ আসামির

চার অপরাধী— বিনয়, অক্ষয়, পবন ও মুকেশ ২০১২ সালের ১৬ ডিসেম্বর রাতে এক ২৩ বছরের তরুণীকে বাসের মধ্যে ধর্ষণ ও নৃশংস অত্যাচার করে। কয়েকদিন পরে মেয়েটি মারা যায়। গোটা দেশ গর্জে উঠেছিল এই ঘটনার নির্মমতার বিরুদ্ধে।

নির্ভয়া কাণ্ড নিয়ে রাজনীতি নয়, স্মৃতি ইরানির আক্রমণের জবাবে অরবিন্দ কেজরিওয়াল

২২ জানুয়ারি সকাল ৭টায় দিল্লির তিহার জেলে ফাঁসিতে ঝোলানোর কথা ছিল অপরাধীদের। কিন্তু আসামি মুকেশ নতুন করে ফাঁসি মকুবের আর্জি জানিয়ে আবেদন করায় ওই নির্ঘণ্ট পিছিয়ে যায়। নিয়ম অনুযায়ী, রাষ্ট্রপতি অপরাধীর প্রাণভিক্ষার আবেদন খারিজ করে দেওয়ার পরে ২ সপ্তাহ সময় দিতে হয়। গত শুক্রবার রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ গণধর্ষণের অন্যতম অপরাধী মুকেশ সিংহের দায়ের করা প্রাণভিক্ষার আবেদন প্রত্যাখ্যান করে দেওয়ার কয়েক ঘণ্টা পরেই নতুন করে এই ফাঁসির পরোয়ানা জারি করা হয়।