This Article is From Dec 05, 2019

তিহার জেল থেকে বেরিয়ে প্রথম ফোন কাদের করলেন P Chidambaram?

তিনি তাঁর দলীয় সতীর্থদের জানিয়েছেন, জেলে তাঁর সেলটি ছিল খোলা ও অত্যন্ত ঠান্ডা। ৭৪ বছরের রাজনীতিবিদ জানান, তিনি ওভারকোট পরে শরীর গরম রাখতে চাইতেন।

তিহার জেল থেকে বেরিয়ে প্রথম ফোন কাদের করলেন P Chidambaram?

১০৬ দিন বন্দি থাকার পর অবশেষে P Chidambaram জামি‌ন পান বুধবার সকালে।

নয়াদিল্লি:

জামিন পেয়ে পি চিদাম্বরম (P Chidambaram) বুধবার সন্ধ্যার পর বাড়ি ফিরেছেন। প্রথমেই তিনি ফোন করেন তাঁর আইনজীবী ও কংগ্রেস সতীর্থ কপিল সিবাল (Kapil Sibal) ও অভিষেক মনু সিঙভিকে (Abhishek Manu)। তাঁদের ধন্যবাদ জানান বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতা। ১০৬ দিন বন্দি থাকার পর অবশেষে তিনি জামি‌ন পান বুধবার সকালে। বন্দি দশার অধিকাংশ সময়ই তিনি কাটিয়েছেন দিল্লির তিহার জেলে। সূত্রানুসারে, প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী কপিল সিবাল ও অভিষেক মনু সিঙভির সঙ্গে দেখা করতে চান এবং তাঁদের সামনাসামনি ধন্যবাদ জানাতে চান আদালতে তাঁর হয়ে আইনি লড়াইয়ে অংশ নেওয়ার জন্য। বৃহস্পতিবার সংসদে যান পি চিদাম্বরম।

তিনি তাঁর দলীয় সতীর্থদের জানিয়েছেন, তিহার জেলে তাঁর সেলটি ছিল খোলা ও অত্যন্ত ঠান্ডা। ৭৪ বছরের রাজনীতিবিদ জানান, তিনি ওভারকোট পরে শরীর গরম রাখতে চাইতেন। সূত্রানুসারে তিনি ওই জেলের আরও কয়েকজন বিচারাধীন বন্দির সঙ্গে দেখা করেন।

সূত্রানুসারে আরও জানা যাচ্ছে, তিহার জেলে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়লে বাড়ির খাবার খেয়ে পাঁচ কিলো ওজন বাড়াতে সক্ষম হন। তাঁর আইনজীবীরা আদালতে জানিয়েছিলেন, কীভাবে জেলের খাবার খেয়ে ওজন কমে যাচ্ছে চিদাম্বরমের। তাঁর চিকিৎসা প্রয়োজন বলেও জানিয়েছিলেন তাঁরা।

জামিন পাওয়ার পর প্রথম সাংবাদিক সম্মেলন তিনি করেন বৃহস্পতিবার। // তিনি বলেন, ‘‘আমার ঘাড় শক্ত। আমার মেরুদণ্ডও শক্ত। আমারও মাথাও শক্ত হয়ে গিয়েছে কাঠের বোর্ডে ঘুমিয়ে (তিহার জেলে)।''