‘‘আইন তার কর্তব্য করেছে’’: তেলেঙ্গানা এনকাউন্টার প্রসঙ্গে তেলেঙ্গানা পুলিশ

তেলেঙ্গানা এনকাউন্টার প্রসঙ্গে তেলেঙ্গানা পুলিশ জানাল, ‘‘আইন তার কর্তব্য করেছে।’’ সেই স্থানেই অভিযুক্তদের মৃত্যু হয়, যেখানে তরুণীকে তারা পুড়িয়ে দিয়েছিল।

‘‘আইন তার কর্তব্য করেছে’’: তেলেঙ্গানা এনকাউন্টার প্রসঙ্গে তেলেঙ্গানা পুলিশ

তেলেঙ্গানা এনকাউন্টার প্রসঙ্গে তেলেঙ্গানা পুলিশ জানাল, ‘‘আইন তার কর্তব্য করেছে।’’

সাইবেরাবাদ:

আইন তার কর্তব্য করেছে। সাইবারাবাদ পুলিশ প্রধান ভিসি সজ্জনর শুক্রবার একথা জানালেন তেলেঙ্গানা ধর্ষণ কাণ্ডের চার অভিযুক্তের এনকাউন্টার প্রসঙ্গে। তিনি জানান, অভিযুক্তরা পুলিশের থেকে আগ্নেয়াস্ত্র কেড়ে নিতে চেষ্টা করছিল তাই তাদের পাল্টা গুলি করে মেরেছে পুলিশ। এনকাউন্টারের ঘটনাস্থলে সংবাদমাধ্যমের সামনে একথা জানান তিনি। পুলিশ প্রধান বলেন, ‘‘অভিযুক্তরা আমাদের পাথর ও ধারালো বস্তু ছুঁড়ে মারছিল এবং আমাদের আগ্নেয়াস্তর কেড়ে নিতে চাইছিল। তাই পাল্টা গুলি চালাতে হয় আমাদের।''

চার অভিযুক্তের নাম মহম্মদ, জলু শিবা, জলু নবীন ও চিন্তাকুন্তা চেন্নাকেশবালু। এদের মধ্যে মহম্মদের বয়স ২৬। বাকিদের বয়স ২০। শুক্রবার ভোর তিনটের সময় তাদের ঘটনাস্থলে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল তদন্তের জন্য। সেই সময়ই তারা পালানোর চেষ্টা করে তাদের গুলি করে মারে পুলিশ। সেই স্থানেই তাদের মৃত্যু হয়, যেখানে ২৬ বছরের পশু চিকিৎসক তরুণীকে তারা পুড়িয়ে দিয়েছিল। হায়দরাবাদ থেকে ৫০ কিমি দূরে অবস্থিত ওই স্থান।

পুলিশের দাবি, তারা পুলিশের থেকে আগ্নেয়াস্ত্র কেড়ে নিয়ে গুলির চেষ্টা করছিল।

জাতীয় মানবাধিকার কমিশন জানিয়েছে, তারা একটি দলকে ঘটনাস্থলে পাঠাবে। সেই দলের নেতৃত্বে থাকবেন তেলেঙ্গানার এক বর্ষীয়ান পুলিশ আধিকারিক। ওই দল ঘটনাস্থল থেকে ঘুরে এসে রিপোর্ট দেবে বলে জানিয়েছে কমিশন। 
 

More News