শ্রীলঙ্কায় বিস্ফোরণের পর ভারতের উপকূলরক্ষী বাহিনীকে সতর্ক করা হল

এই ঘটনার পর শ্রীলঙ্কায় জরুরি অবস্থা জারি করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন  রাষ্ট্রপতি। তিনি জানান সোমবার রাত থেকেই জরুরি অবস্থা  জারি হবে

 Share
EMAIL
PRINT
COMMENTS
শ্রীলঙ্কায় বিস্ফোরণের পর ভারতের উপকূলরক্ষী বাহিনীকে সতর্ক করা হল
নিউ দিল্লি: 

হাইলাইটস

  1. ঠিক একদিন আগে শ্রীলঙ্কায় ধারাবাহিক বিস্ফোরণ হয়েছে
  2. সমুদ্র সীমানা বরাবর নিরাপত্তা বাড়িয়ে দেওয়া হল
  3. শ্রীলঙ্কায় জরুরি অবস্থা জারি করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি

শ্রীলঙ্কায় (Sri Lanka ) যারা আঘাত এনেছে তারা যাতে ভারতের ক্ষতি করতে না পারে তার জন্য উপকূলরক্ষী (coastal guard) বাহিনীকে সতর্ক করা হল। ঠিক একদিন আগে শ্রীলঙ্কায় ধারাবাহিক বিস্ফোরণ (serial Balst)  হয়েছে।  প্রাণ গিয়েছে  কয়েক শো মানুষের। এরপর সমুদ্র  সীমানা বরাবর (Maritime Border) নিরাপত্তা বাড়িয়ে দেওয়া হল। এরই মধ্যে একটি ইসলামিক চরমপন্থী সংগঠনই ঘটনার জন্য দায়ী বলে মনে করা  হচ্ছে। এই ঘটনার পর শ্রীলঙ্কায় জরুরি অবস্থা জারি করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন  রাষ্ট্রপতি। তিনি জানান সোমবার রাত থেকেই জরুরি অবস্থা  জারি হবে। রাষ্ট্রপতির মিডিয়া টিম জানিয়েছে  সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে  ব্যবস্থা নিতেই জরুরি অবস্থা  জারি হচ্ছে। নাগরিকদের মতপ্রকাশের অধিকারের উপর কোনও রকম  হস্তক্ষেপ হবে না। 

সুপ্রিম কোর্টের রাফাল রায় নিয়ে মন্তব্য করায় ক্ষমা চাইলেন রাহুল

ধারাবাহিক বিস্ফোরণে তছনছ হয়ে গিয়েছে এই দ্বীপ রাষ্ট্র। একটি সূত্র বলছে  প্রাণ হারিয়েছেন প্রায়  ২৯০ জন। আর আহত হয়েছেন প্রায় ৫০০জন। ঘটনায় এ পর্যন্ত ২৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এদিকে জরুরি অবস্থার পাশাপাশি রাতে  কারফিউও জারি হবে। আজ রাত ৮ টা থেকে ভোর ৪ টে  পর্যন্ত কারফিউ জারি থাকবে।

এ পর্যন্ত শ্রীলঙ্কার প্রশাসন জানতে পেরেছে এনটিজে নামে একটি ইসলামিক চরমপন্থী সংগঠন। তাদের  সম্পর্কে প্রশাসনের কাছে খুব একটা তথ্য নেই। তবে এটুকু জানা আছে এই  সংগঠন বৌদ্ধ স্মৃতি সৌধগুলিতে আঘাত হানে। তাছাড়া এদের  সঙ্গে আন্তর্জাতিক কোন সংগঠনের যোগাযোগ আছে  কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

শ্রীলঙ্কারর ধারাবাহিক বিস্ফোরণে তদন্ত করতে গিয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এলো। জানা গেল বোমা বিস্ফোরণ করার ঠিক আগে কলম্বোর গ্র্যান্ড হোটেলের খাবারের লাইনে দাঁড়িয়ে ছিল আততায়ী। ঠিক যে সময় তার পাতে খাবার তুলে দেওয়ার কথা তখনই বিস্ফোরণ ঘটিয়ে দেয় মহম্মদ আজম। হোটেলে সে সময় প্রচুর মানুষ উপস্থিত ছিলেন বলে মুহূর্তেই আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। ঘটনাস্থলেই অনেকের প্রাণ যায়। দৌড়তে গিয়ে আহতও হন  অনেকে। হোটেলের ম্যানেজার জানিয়েছেন, লাইনে দাঁড়িয়ে খাবারের কাউন্টারের সামনে পর্যন্ত যায় আজম। তারপরই সে বিস্ফোরণ ঘটিয়ে দেয়। খাবার পরিবেশনের দায়িত্বে থাকা কর্মী সঙ্গে সঙ্গে মৃত্যু হয় হামলাকারী। 

         

NDTV Beeps - your daily newsletter

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................