This Article is From Feb 14, 2019

"এমন শিক্ষা দেব, কোনওদিন ভুলবে না", পুলওয়ামায় জঙ্গিহানার পর কড়া বার্তা জেটলির

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অরুণ জেটলি টুইট করে বলেন, যারা এই অপরাধ ঘটাল, তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হবে। এমন শাস্তি, যা ওরা কখনও ভুলতে পারবে না।

Pulwama terror attack: অবন্তীপুরায় এই হামলার দায় স্বীকার করেছে সন্ত্রাসবাদী সংগঠন জইশ-ই-মহম্মদ।

হাইলাইটস

  • শুক্রবার শ্রীনগর সফরে যাবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংহ
  • এই হানার তীব্র নিন্দা করে প্রধানমন্ত্রী কথা বলেন রাজনাথের সঙ্গে
  • জইশ-ই-মহম্মদ হানার দায় স্বীকার করেছে
নিউ দিল্লি:

স্মরণকালের মধ্যে সেনাবাহিনীর ওপর সবথেকে ভয়াবহ আক্রমণের ঘটনাটি ঘটে গেল বৃহস্পতিবার। জম্মু ও কাশ্মীরের পুলওয়ামা জেলায় সিআরপিএফের বাসে ভয়াবহ জঙ্গিহানার ফলে শহিদ হলেন প্রায় ৪০ জনের কাছাকাছি সেনা। আহতের পরিমাণও প্রায় সমান। শ্রীনগরের সেনা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে তাদের। অবন্তীপুরায় এই হামলার দায় স্বীকার করেছে সন্ত্রাসবাদী সংগঠন জইশ-ই-মহম্মদ। এই হামলার তীব্র নিন্দা করেন প্রায় সমস্ত রাজনৈতিক দলের নেতারাই। কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী বলেন, অত্যন্ত কাপুরুষের মতো কাজ এটা। এতজন সেনার শহীদ হয়ে যাওয়া মেনে যাওয়া না। আমি তাঁদের আত্মার শান্তি কামনা করি। তাঁদের পরিবারকে সমবেদনা জানাই। আহতদেরও দ্রুত আরোগ্য কামনা করি। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অরুণ জেটলি টুইট করে বলেন, যারা এই অপরাধ ঘটাল, তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হবে। এমন শাস্তি, যা ওরা কখনও ভুলতে পারবে না। এর আগে ২০১৬ সালে সেপ্টেম্বর মাসে উরির সেনা ছাউনিতে আক্রমণ করা হয়েছিল। সেই সময় শহিদ হন ১৯ জন সেনা। আজকের হামলায় এখনও পর্যন্ত সেনাদের মৃত্যুর সংখ্যা সেই হামলাকেও ছাড়িয়ে গিয়েছে।

“আত্মবলিদান বিফলে যাবে না”, পুলওয়ামায় হামলা নিয়ে প্রতিক্রিয়া প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর

আগামীকাল শ্রীনগর যাবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংহ। অরুণ জেটলি টুইট করে লেখেন, আজকের হামলা অত্যন্ত কাপুরুষোচিত। এবং, নিন্দনীয়। শহিদ হওয়া সেনাদের প্রতি শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করছে গোটা দেশ। আমরা আহত সেনাদের দ্রুত আরোগ্যর জন্যও প্রার্থনা করছি। সেই সঙ্গে আরেকটি কথাও বলে রাখি, এই ঘটনা যারা ঘটাল, সেই জঙ্গিদের এমন শিক্ষা দেওয়া হবে, যা ওরা কোনওদিন ভুলতে পারবে না।

আত্মঘাতী জঙ্গিকে চিহ্নিত করতে পেরেছে পুলিশ। তার নাম আদিল আহমেদ দার। 'জন্নত'-এ যাওয়ার আশায় বিভোর এই জইশ-ই-মহম্মদের জঙ্গি হানার আগে ভিডিও করেছিল। পুলওয়ামার কাকাপোরা অঞ্চলের বাসিন্দা ছিল সে। ২০১৮ সালেই যোগ দেয় জইশ-ই-মহম্মদে।