"ভগবান রাম সবার সঙ্গে রয়েছেন": ভূমিপুজোর আগে টুইট করলেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধি

“ভগবান রাম ও সীতা মার বার্তা এবং কৃপায় রামালালার মন্দিরের ভূমিপুজোর অনুষ্ঠান জাতীয় ঐক্য, ভ্রাতৃত্ব এবং সাংস্কৃতিক চর্চার একটি উপলক্ষে পরিণত হয়েছে,” আরও একটি টুইটে লিখেছেন কংগ্রেস নেত্রী।

নয়াদিল্লি:

অযোধ্যাতে আগামিকাল রামমন্দির নির্মাণের ভূমিপুজোর অনুষ্ঠানের ঠিক আগে অযোধ্যা ইস্যুতে দলের অবস্থানকে বদলে দিয়ে একটি টুইট করে ভগবান রামকে অভিবাদন জানালেন কংগ্রেসের প্রিয়াঙ্কা গান্ধি বঢরা! “রাম সবার সঙ্গে রয়েছেন”, টুইট করেন কংগ্রেস নেত্রী! প্রিয়াঙ্কা আশা প্রকাশ করে জানিয়েছেন যে রামের জন্মভূমির বিতর্কিত জায়গায় আগামিকালের অনুষ্ঠান “জাতীয় ঐক্য, ভ্রাতৃত্ব এবং সাংস্কৃতিক চর্চার” একটি উপলক্ষে পরিণত হবে। “সারল্য, সাহস, সংযম, ত্যাগ, প্রতিশ্রুতি, দীনবন্ধু রামের নামের সারাংশ। রাম সবার সঙ্গে আছেন, রাম সকলের জন্য আছেন,” হিন্দিতে টুইট করেছেন উত্তর প্রদেশ কংগ্রেসের ইনচার্জ প্রিয়াঙ্কা গান্ধি।

“ভগবান রাম ও সীতা মার বার্তা এবং কৃপায় রামালালার মন্দিরের ভূমিপুজোর অনুষ্ঠান জাতীয় ঐক্য, ভ্রাতৃত্ব এবং সাংস্কৃতিক চর্চার একটি উপলক্ষে পরিণত হয়েছে,” আরও একটি টুইটে লিখেছেন কংগ্রেস নেত্রী।

গত বছরের নির্বাচনের আগে, প্রিয়াঙ্কা গান্ধি বঢরাকে পূর্ব উত্তর প্রদেশে দলের পুনরুদ্ধারের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। আগামিকাল অযোধ্যাতে কংগ্রেসকে এই অনুষ্ঠানের জন্য আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। ভূমিপুজোয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং শতাধিক ভিআইপি অংশ নেবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

নভেম্বরে সুপ্রিম কোর্ট নিয়ে রায়ে জানিয়েছিল যে অযোধ্যায় বিতর্কিত জমিতে একটি মন্দিরই তৈরি করা উচিত, কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটি এই রায়কে স্বাগত জানিয়ে একটি প্রস্তাব পাস করেছিল।

কংগ্রেসের প্রধান মুখপাত্র রণদীপ সুরজেওয়ালা এই সিদ্ধান্তের প্রেক্ষিতে বলেছিলেন, “যুগ যুগ ধরে আমাদের সমাজের বিভিন্ন স্তরের মধ্যে পারস্পরিক শ্রদ্ধা ও ঐক্যের ঐতিহ্যকে পুনরায় নিশ্চিত করা আমাদের প্রত্যেকের দায়িত্ব।" রণদীপ সুরজেওয়ালা জানিয়েছিলেন যে কংগ্রেস মন্দির নির্মাণের পক্ষেই ছিল।

তবে কংগ্রেস এই ইস্যু নিয়ে তারপর থেকেই নীরব। যে কোনও ভুল পদক্ষেপ গো বলয়, বিশেষত উত্তর প্রদেশে দলের ভোটব্যাঙ্কের সম্ভাবনাকে আরও দুর্বল করে ফেলবে এই আশঙ্কায় কংগ্রেস কোনওদিনই রাম মন্দির ইস্যু নিয়ে ততখানি সমালোচনা করেনি কেন্দ্রের।